প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাংলাদেশি অভিনেত্রীকে কলকাতার পরিচালক ‘ডাকলেন হোটেলে, চাইলেন অশ্লীল ছবি’

বিনোদন প্রতিবেদক : [২] বাংলাদেশের চাঁদপুরের মেয়ে শান্তা পাল। ছোট থেকেই স্বপ্ন রুপালি পর্দায় কাজ করার। স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে র‌্যাম্প মডেলিং দিয়েই কাজ শুরু তার। মডেলিং দিয়ে শুরু হলেও মুল লক্ষ্য বড় পর্দায় কাজ করা। সেই সুবাদে পরিচয় হয় ‘এপার-ওপার’দুই বাংলার নির্মাতাদের সঙ্গে। কিন্তু স্বপ্নপূরণ করতে গিয়ে প্রতারণার ফাঁদে পড়েছিলেন তিনি।সময় টিভি ও যমুনা টিভি

[৩] কাজের সুবাদে ফেসবুকে ওপার বাংলার নির্মাতা রাজিব কুমার বিশ্বাসের সঙ্গে পরিচয় হয় শান্তার। প্রথমে জানতেন না রাজিব বিশ্বাস আসলে কে? দীর্ঘ দুই মাস হায়-হ্যালোর পর তিনি তার পরিচয় জানান। ম্যাসেঞ্জারে রাজিব বিশ্বাস বেশ কিছু স্টিল পাঠিয়ে জানান, তিনি টলিউডের খ্যাতনামা একজন পরিচালক। শান্তাও তার পরিচয় পেয়ে একটু নড়েচড়ে বসেন।

[৪] শান্তার অভিযোগ রাজিব বিশ্বাস শান্তাকে বলেন,‘‘আমি ‘ডেমোক্রেসি’নামে একটি সিনেমা বানাচ্ছি। এর জন্য প্রথমে বনিকে (বনি সেনগুপ্ত) কাস্ট করার কথা ভেবেছিলাম। কিন্তু তোমার সঙ্গে দেবকে ভালো মানাবে। তোমাকে আমার খুব ভালো লেগেছে। আমি তোমাকে কাস্ট করতে চাচ্ছি।’’ এমন প্রস্তাব পাওয়ার পর সিনেমার চিত্রনাট্য চান শান্তা। আর তারপরই বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হন এই অভিনেত্রী।

[৫] শান্তা পাল জানান, ‘‘রাজিব আমাকে বলেন, চিত্রনাট্য, চুক্তি সবই হবে। কিন্তু তার আগে আমার সঙ্গে একরাত হোটেলে থাকতে হবে। তারপর সাইনিং হবে। মাহিকে নিতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু এখন তোমাকে নিতে চাচ্ছি। এই সুযোগ হাতছাড়া করো না।’ ঢাকার একটি হোটেলের নামও বলেন তিনি। আমি তাকে বলেছি, কন্ডিশনে কাজ করবো না। এরপরও তিনি আমাকে বলেন, ‘এতে রাজি না হলে টলিউডের কোনো কাজে সুযোগ পাবে না।’ আমি তাকে বলেছি, আপনি এসব বললে আমি সবাইকে বিষয়টি জানিয়ে দেব। এ কথা লেখার পরই আমাকে ফেসবুকে ব্লক করে দিয়েছে।’’

[৬] একজন পেশাদার পরিচালকের এমন নোংরা আচরণে ভীষণ অবাক হয়েছেন শান্তা। এজন্য রাজিবের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়ে শান্তা বলেন, ‘রাজিব বিশ্বাস আমার সঙ্গে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছিলেন। আমার মনে হয় উনি আমাকে নিয়ে কাজও করতেন না। উনি দেবের কথা বলে আমাকে রাজি করাতে চেয়েছিলেন। বিষয়টি নিয়ে ওপার বাংলার কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। বিমান চলাচল শুরু হলে টলিউডে গিয়ে রাজিবের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট সংগঠনে লিখিত অভিযোগ দেব।’

[৭] অভিনেত্রী শান্তা আরও বলেন, ‘যতদূর জেনেছি রাজিব বিশ্বাস এমন ঘটনা আরো মেয়েদের সঙ্গে ঘটিয়েছেন। কেউ সাহস করে মুখ খুলেনি। তুমি কাজ পাবে না—এই হুমকি দিয়ে তাদেরকে চুপ করিয়ে রাখা হয়েছে। কিন্তু আমি সাহস করে জানিয়েছি। আমরা সচেতন না হয়ে মুখ বুজে থাকলে এমন ঘটনা ঘটতেই থাকবে। আমি বিষয়টি নিয়ে লড়ব।’

[৮] শান্তা পাল এরই মধ্যে তেলেগু ভাষার সিনেমায় নাম লেখিয়েছেন। লকডাউন প্রত্যাহার হলেই ছবির শুটিং শুরু হবে বলে জানা যায়। সেইসাথে, টলিউড অভিনেতা অঙ্কুশের বিপরীতে একটি বাংলা ছবিতেও কাজ করার কথা রয়েছে তার। শান্তা এশিয়া গ্লোবালে সেরা পাঁচে ছিলেন। সেখানে বিউটিফুল আইজ খেতাব অর্জন করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত