প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীনের সঙ্গে সবধরনের ফ্লাইট বন্ধ করে দিচ্ছে এয়ারলাইন্সগুলো

ডেস্ক রিপোর্ট  : এয়ারওয়েজের আর কোনো ফ্লাইট চীনের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে না। বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্সগুলোও চীনে ফ্লাইট সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমিয়ে এনেছে। কেউ কেউ পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের ৭টি এয়ারলাইন্স চীনে ফ্লাইট বন্ধ অথবা সীমিত করেছে।

ব্রিটিশ এয়াওয়েজ

ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ চীনে তাদের সব ফ্লাইট স্থগিত করেছে। আজ বুধবার (২৯ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জানানো হয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে চীনে যাওয়া এবং চীন থেকে আসার সব ফ্লাইট (খুব প্রয়োজন ছাড়া) অবিলম্বে স্থগিত করা হলো।

এয়ার ফ্রান্স

২৪ জানুয়ারি থেকে এয়ার ফ্রান্স উহানের উদ্দেশ্যে তিনটি সাপ্তাহিক ফ্লাইট স্থগিত করেছে। তবে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বেইজিং ও সাংহাইয়ে মধ্যকার সাপ্তাহিক ২৩টি ফ্লাইট চালু আছে।

ক্যাথে প্যাসিফিক

হংকংয়ের উড়োজাহাজ চলাচল সংস্থা ক্যাথে প্যাসিফিক গতকাল জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার থেকে চীনের মূল ভূখণ্ডের সাথে তারা যোগাযোগ অর্ধেকের বেশি কমিয়ে আনবে। মার্চের শেষ পর্যন্ত এই আদেশ কার্যকর থাকবে বলছে কর্তৃপক্ষ।

ক্যাথে প্যাসিফিকের সাথে এর সহযোগী সংস্থা ক্যাথে ড্রাগনও একই ঘোষণা দিয়েছে।

ফিন এয়ার

ফিনল্যন্ডের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা ফিন এয়ার। ইউরোপ ও এশিয়ার মধ্যে অনেকগুলো ফ্লাইট পরিচালনা করে। মঙ্গলবার সংস্থাটি জানিয়েছে, চীনের সঙ্গে বেশকিছু ফ্লাইট ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। তবে এই সময়ের মধ্যে চীনের বেইজিং ও সাংহাইয়ে প্রতিদিন একটি ফ্লাইট, হংকংয়ে দিনে দুটি এবং গুয়ানঝুতে সপ্তাহে দুটি ফ্লাইট চালু থাকবে।

লায়ন এয়ার

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বৃহত্তম বিমান চলাচল সংস্থা ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ার গ্রুপ। সংস্থাটির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের কারণে চীনের সাথে উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ করে দিচ্ছে সংস্থাটি।

১ ফেব্রুয়ারি থেকে এই স্থগিতাদেশ কার্যকর হলে চীনের ১৫ টি শহরের সঙ্গে উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে সংস্থাটির।

প্রতি বছর দশ লাখেরও বেশি চীনা পর্যটক ইন্দোনেশিয়া ভ্রমণ করে এবং লাখখানেক শ্রমিক কাজের উদ্দেশে চীন থেকে ইন্দোনেশিয়া যায়।

ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স জানিয়েছে, চীনে যাতায়াতের ফ্লাইট কমিয়ে আনছে তারা। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য বিভাগের সতর্কতার পর উল্লেখযোগ্যহারে যাত্রী কমে যাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

উরালস এয়ারলাইন্স

রাশিয়ার উরালস এয়ারলাইন্স এরই মধ্যে চীনের বেশ কয়েকটি গন্তব্যে ফ্লাইট স্থগিত করেছে। সংস্থাটি বুধবার ঘোষণা দিয়েছে, ইউরোপের বেশ কয়েকটি শহর যেগুলো চীনের নাগরিকদের কাছে জনপ্রিয় যেমন- প্যারিস ও রোম, সেসব গন্তব্যেও করোনাভাইরাসের শঙ্কায় উড়োজাহাজ চলাচল সীমিত করছে তারা।

পূর্বপশ্চিমবিডি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত