প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা চলছে, এগিয়ে বিজেপি

খালিদ আহমেদ ও সুস্মিতা সিকদার : ভারতের ১৭ তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত মোট ৫৪২টি আসনের মধ্যে বিজেপি পেয়েছে ২৭৪টি, কংগ্রেস পেয়েছে ১০৩টি এবং জোটের বাইরের দল পেয়েছে ৯১টি।

বৃহস্পতিবার সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনার মধ্য দিয়ে সব প্রশ্নের উত্তর মিলবে। আজই অবসান হবে ভারতে চলমান দীর্ঘ আড়াই মাসের উত্তেজনা, উত্কণ্ঠারও। ইতিমধ্যে বুথ ফেরত জরিপগুলো ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের সহজ জয়ের আভাস দিয়েছে। জরিপের ফলে অনেকটাই নির্ভার বিজেপি। সরকার গঠনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ একটি পরিকল্পনা উপস্থাপন করেছেন। অন্যদিকে বুথ ফেরত জরিপকে গুরুত্ব দিতে রাজি নয় কংগ্রেস-সহ বিরোধীদলগুলো। বরং জনতার রায় যেন বদলে ফেলা না হয় সেজন্য তৎপরতা অব্যাহত রেখেছেন ২২টি বিরোধীদলের নেতারা। রাত জেগে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পাহারা দিচ্ছে দলগুলো। ইতিমধ্যে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী দলীয় নেতা-কর্মীদের আগামী ২৪ ঘণ্টায় সতর্ক এবং ভয়হীন থাকতে বলেছেন। এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

ভারত বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক দেশ। ‘১৩০ কোটি’ জনসংখ্যার দেশে ভোটার ৯০ কোটি। বড় দেশ, বিপুল জনসংখ্যা, অসংখ্য রাজনৈতিক দল ও প্রার্থী, সব কিছুর বিচারে ভারতের লোকসভার নির্বাচন এক বিরাট মহাযজ্ঞ। গত ১১ এপ্রিল সাত ধাপের ভোটযুদ্ধ শুরু হয় এবং ১৯ মে শেষ তা হয়েছে। বিক্ষিপ্ত সহিংসতা হলেও সর্বোপরি শান্তিপূর্ণভাবে ৫৪২ আসনে ভোটগ্রহণ হয়েছে। নগদ অর্থের ছড়াছড়ির অভিযোগ ওঠার পর তামিল নাড়ুর ভেলোর আসনে ভোটগ্রহণ স্থগিত রেখেছে নির্বাচন কমিশন। ৫৪৩ আসনের লোকসভায় সরকার গঠন করতে কোনো দল বা জোটের ২৭২টি আসন প্রয়োজন। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি একাই ২৮২টি আসনে জয়লাভ করে। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেয়েছিল ৩৩৬ আসন। ওই নির্বাচনে ভরাডুবি হয় জাতীয় কংগ্রেসের। তারা পেয়েছিল ৪৪ আসন আর তাদের ইউপিএ জোট পেয়েছিল ৬০টি আসন। তামিলনাড়ুর এআইডিএমকে ৩৭ এবং মমতার তৃণমূল কংগ্রেস ৩৪ আসন পেয়েছিল ওই নির্বাচনে।

গতবারের সাফল্যের ওপর ভর করে টানা দ্বিতীয়বারের মতো নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে চাইছে বিজেপি। বুথ ফেরত জরিপগুলো বলছে, এনডিএ জোট তিনশোর মতো আসনে জয় পেতে পারে। আর সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন থেকে অনেক দূরেই থাকছে বিরোধীদল কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট।

বুথ ফেরত জরিপ প্রকাশের পর চাঙ্গাভাব বিরাজ করছে বিজেপিতে। এর ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাতে এনডিএ জোটেরশরিকদের জন্য নৈশভোজের আয়োজন করেন প্রধানমন্ত্রী মোদি ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তারা সম্ভাব্য নতুন সরকারের একটি পরিকল্পনা তুলে ধরেন। যাকে এনডিএ-২ জোট সরকার গঠনের ব­ু-প্রিন্ট নাম দেওয়া হয়েছে। আবারো এনডিএ জোট সরকার গঠিত হলে সেই সরকার কেমন হবে, কীভাবে পরিচালিত হবে, তাদের অগ্রাধিকার কী হবে- এসব বিষয়ই রয়েছে এই পরিকল্পনায়। নৈশভোজের আগে সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়েও দীর্ঘ বৈঠক করেন মোদি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত