প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি তৃতীয় মামলায় ৫ বছরের জেল লালুর

রাশিদ রিয়াজ : পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির তৃতীয় মামলাতে দোষী সাব্যস্ত হবার পর ৫ বছরের কারাদ- দেওয়া হয়েছে ভারতীয় রাজনীতিবিদ লালুপ্রসাদ যাদবকে। বুধবার সকালে এ রায় ঘোষণা করেন বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারপতি এসএস প্রসাদ। একইসঙ্গে লালুর ৫ লাখ টাকা জরিমানার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। চাঁইবাসা ট্রেজারি থেকে বেআইনি ভাবে ৩৩.৬৭ কোটি টাকার তোলার দায়ে শাস্তি পেলেন লালুপ্রসাদ যাদব।

পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির দ’টি মামলায় আগেই দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালুপ্রসাদ যাদব। তৃতীয় মামলাতেও তাকে দোষী ঘোষণা করল আদালত। লালুপ্রসাদের পাশাপাশি চাঁইবাসা ট্রেজারির ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বিহারের আর এক প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জগন্নাথ মিশ্র। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির দ্বিতীয় মামলার জগন্নাথ মিশ্রকে নিরাপরাধ ঘোষণা করা হলেও তৃতীয় মামলায় রেহাই পেলেন না তিনি। তাকেও ৫ বছরের কারাদ- ও ৫ লাখ টাকা জরিমানার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

তৃতীয় ওই মামলাটিতে লালুপ্রসাদের বিরুদ্ধে ১৯৯২-৯৩ সালে ভুয়া চিঠি ব্যবহার করে ৩৩.৬৭ কোটি টাকা চাঁইবাসা ট্রেজারি থেকে তোলার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। সেখানে সরকার অনুমোদিত অর্থের পরিমাণ ছিল ৭.১০ লক্ষ টাকা। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির মোট ৫৬ জন অভিযুক্তের মধ্যে রয়েছেন ঝাড়খন্ডের সাবেক মুখ্যসচিব সজল চক্রবর্তী। যে সময়ে এই বিপুল পরিমাণ অর্থের কেলেঙ্কারীতে সেই সময় পশ্চিম সিংভূম জেলার ডেপুটি কমিশনার পদে দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

এর আগে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির দ্বিতীয় মামলায় দোষী প্রমাণিত হয়ে বর্তমানে রাঁচির বিরসা মু-া জেলে রয়েছেন লালুপ্রসাদ। গত ৬ জানুয়ারি দেওঘর ট্রেজারি থেকে আর্থিক নয়ছয়ের ঘটনায় তাকে সাড়ে তিন বছরের কারাদ- দেয় বিশেষ সিবিআই আদালত। এর আগে ২০১৩ সালে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির প্রথম মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে ৫ বছরের কারাদ- হয় তার। টাইমস অব ইন্ডিয়া

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত