প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আটকের ৫ মাস পর প্রখ্যাত সৌদি আলেম শেখ সালমান হাসপাতালে (ভিডিও)

রাশিদ রিয়াজ : প্রখ্যাত সৌদি আলেম শেখ সালমান আল-আওদা কাতারের ওপর সৌদি জোটের অবরোধের সমালোচনা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়েছিলেন। এর কয়েক ঘন্টার পর গত সেপ্টেম্বরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। শেখ সালমান আল-আওদা ছাড়াও আরো অন্তত কুড়ি জনকে আটক করে সৌদি পুলিশ। এরপর শেখ সালমানকে গত অক্টোবরে মাত্র একবার ফোন করতে দেওয়া হয়েছে। এ্যামনেস্টি বলছে, গত মঙ্গলবার শেখ সালাম আল-আওদাকে জেদ্দার পশ্চিমাঞ্চলে একটি হাসপাতালে ভর্ করা হয়েছে।

এ্যামনিস্টির মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক পরিচালক সামাহ হাদিদ বলেছেন, সৌদির প্রখ্যাত এই আলেমকে আটকের পর হাসপাতালে নেওয়া লজ্জাজনক ও তার পরিবারের জন্যে গভীর পরিতাপের বিষয়। ৫ মাস ধরে আটক করে রাখা হলেও তাকে কথা বলতে দেওয়া হয়নি, কোনো আইনের সুবিচার তিনি পাননি, তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনা হয়নি অথচ তাকে অস্বাভাবিকভাবে আটক রাখা হয়েছে।

সামাহ বলেন, তার সুচিকিৎসার নিশ্চয়তা দিতে হবে সৌদি কর্পক্ষকে। তিনি যাতে পরিবার ও তার আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলতে পারেন সে সুযোগ দিতে হবে। এবং তাকে মুক্তি দিতে হবে অবিলম্বে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেখ সালাম কাতার ও সৌদি আরবের মধ্যে আলোচনার কথা বলেছিলেন। গত জুনে কাতারের সঙ্গে সৌদি জোট সকল সম্পর্ ছিন্ন করে দেশটির ওপর অবরোধ আরোপ করে। শেখ সালামের পরিবার বলছে তার মত অনেক প্রভাবশালী সৌদি নেতৃত্ব বাদশাহ সালমান ও ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের কাছে কাতারের বিরুদ্ধে অবরোধ প্রত্যাহারের আবেদন জানালেও কোনো কাজ হয়নি। শেখ সালামের ভাই খালেদকেও আটক করেছে সৌদি পুলিশ।

টুইটার বার্ায় শেখ সালাম বলেছিলেন, বাহারাইন, মিসর, আমিরাত ও সৌদি আরবের শাসকরা যে কাতারের ওপর অবরোধ করেছে এবং কাতারের আমির ও সৌদি বাদশাহ তা নিরসনে যে টেলিফোন আলাপ করেছে সেখানে আল্লাহ যেন তাদের জনস্বার্র বিষয়টি উপলব্ধি করার তৌফিক দেন। শেখ সালামের টুইটার অনুসারির সংখ্যা ১ কোটি ৪০ লাখ। এর আগে ১৯৯৪ ও ১৯৯৯ সালেও সরকার বিরোধী তৎপরতার অভিযোগে শেখ সালামকে আটক করা হয়। তাকে কারাগারে থাকতে হয় ৫ বছর। আলআরাবি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত