শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৯ জুন, ২০২২, ০২:১২ দুপুর
আপডেট : ২৯ জুন, ২০২২, ০৪:৫৫ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

লকডাউনে মৌমাছি

মৌমাছি

ইমরুল শাহেদ: কোভিড-১৯-এর পর অস্ট্রেলিয়া এবার লকডাউন আরোপ করেছে মৌমাছির উপর। বায়োসিকিউরিটি কর্তৃপক্ষ দেশটির সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য নিউ সাউথ ওয়েলসের নিউক্যাসল বন্দরে ভারোয়া মাইট (পরজীবী) শনাক্ত হওয়ার পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই লকডাউন দেওয়া হয়েছে মৌমাছিকে রক্ষা করার জন্য। ফিন্যান্সিয়াল টাইমস

একমাত্র প্রধান মধু উৎপাদক হিসাবে মারাত্মক কীটপতঙ্গের কারণে হুমকির মুখে পড়েছে মৌমাছি। এর জন্য নিওনিকোটিনয়েড কীটনাশকের ব্যাপক ব্যবহারকেও এর সঙ্গে দায়ী করা হয়েছে। লকডাউনের পরিকল্পনায় বলা হয়, বন্দরের চারপাশের ১০ কিলোমিটারের জরুরি অঞ্চলের কোনও মৌমাছিকে স্থানান্তরিত করার অনুমতি দেওয়া হবে না।

নিউ সাউথ ওয়েলসের কৃষিমন্ত্রী ডুগাল্ড  সেন্ডার্স বলেছেন, যদি ভারোয়া মাইট রাজ্যে প্রবেশ করে, তাহলে এর মারাত্মক পরিণতি হবে, তাই আমরা পরজীবীটি ধারণ করতে এবং স্থানীয় মধু শিল্প ও পরাগায়নকে রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত সতর্কতা ও পদক্ষেপ নিচ্ছি।

ভারোয়া মাইটের সঙ্গে ভারী সংক্রমণ ইউরোপীয় মৌমাছিদের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের রোগ সৃষ্টি করে। এর ফলে দুর্বল হয় মৌমাছি। একইসঙ্গে সংখ্যাও হ্রাস করে, যার ফলে পুরো দলের মৃত্যু ঘটে। পরজীবীটি ছোট ও  হুলবিহীন দেশীয় মৌমাছিকে প্রভাবিত করে না।

মৌমাছির মৌচাকের মধ্যে মৃত্যুর হার বিশ্বজুড়ে কয়েক দশক ধরে উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। অস্ট্রেলিয়া কানাডা সহ ইউরোপীয় দেশগুলো মৌমাছি রপ্তানি করে। কৃষি উৎপাদনকারীরা বর্তমানে মৌমাছির পতনের বিষয়টির সঙ্গে লড়াই করছে।

  • সর্বশেষ