শিরোনাম
◈ প্রাইভেটকারের ওপর গার্ডার: ক্রেনের চালক ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা ◈ গার্ডার চাপায় নিহতদের ময়নাতদন্ত হবে সোহরাওয়ার্দীর মর্গে ◈ উত্তরায় দুর্ঘটনা: শিশু জাকারিয়া জীবিত ছিল আধাঘণ্টা ◈ পুলিশের উদ্দেশ্যই ছিল ছাত্রলীগের ছেলেদের মারবে: এমপি শম্ভু ◈ রাজধানীতে ক্রেন থেকে রড পড়ে ৫ পথচারী আহত ◈ চকবাজার ও উত্তরার ঘটনায় শোক জানিয়ে তদন্তের দাবি ফখরুলের ◈ মানবাধিকারকর্মীদের কথা শুনলেন জাতিসংঘের মিশেল ব্যাচেলেট ◈ উত্তরায় ক্রেন দুর্ঘটনা: বেঁচে রইলেন শুধু নবদম্পতি ◈ খায়রুনকে লাথি মেরে সেই রাতে বাইরে যান স্বামী ◈ উত্তরায় প্রাইভেট কারের উপর ফ্লাইওভারের গার্ডার, নিহত ৫ (ভিডিও)

প্রকাশিত : ০৪ আগস্ট, ২০২২, ০৪:১২ সকাল
আপডেট : ০৪ আগস্ট, ২০২২, ০৪:১২ সকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

দ্রুত শরীরের ওজন কমাতে কার্যকর যেসব পানীয়

প্রতীকী ছবি

লাইফস্টাইল ডেস্ক: শরীরের ওজন বৃদ্ধি এখন অনেকেরই সমস্যায় পরিণত হয়েছে। বেশিরভাগ মানুষই ওজন কমানোর বিষয়টি ভাবলেও কাজে বাস্তবায়ন করতে চান না। ওজন কমানোর ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যকর খাবার, নিয়মিত ব্যায়ামের বিকল্প নেই। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না এগুলো ছাড়াও দ্রুত শরীরের ওজন কমাতে সহায়তা করে কিছু পানীয়। এসব পানীয় পান করলে ওজন কমানোর প্রক্রিয়া আরও দ্রুত হয়। সহজলভ্য জিনিস দিয়ে তৈরি এই পানীয় ওজন কমাতে অত্যন্ত কার্যকরী। চলুন সেইসব পানীয় সম্পর্কে জেনে নিই-

জিরা ভেজানো পানি

ওজন কম করতে হলে জিরা ভেজানো পানি বেশ কার্যকরী। এর জন্য রাতে এক গ্লাস পানিতে এক চামচ জিরা ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে এই পানি ছেঁকে খালি পেটে খেয়ে নিন। সকালে খালি পেটে যাদের ইষদুষ্ণ পানি পাতিলেবুর রস দিয়ে খেলে অ্যাসিডিটির সমস্যা হয়। তারা পাতিলেবুর রসের বদলে এই জিরা ভিজানো পানি খেতে পারেন।

পাতিলেবুর রস

পেটের চর্বি কম করতে গেলে লেবু পানির কার্যকারিতার তুলনা হয় না। অ্যাসিডিটির সমস্যা না থাকলে খালি পেটে ইষদুষ্ণ পানিতে পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খালি পেটে খেতে পারেন।

গ্রিন টি

ওজন কমাতে চাইলে সকালে খালি পেটে গ্রিনটিও খাওয়া যেতে পারে। এতে প্রচুর মাত্রায় পরিফেনলস থাকে। এই উপাদান মেটাবলিজম বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

কালো কফি

কালো বা ব্ল্যাক কফিতে যেহেতু কোনো দুধ-চিনি থাকে না। কাজেই এটি দিনে দুই-তিনবার পান করার ফলে তা শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করে।

দারুচিনি ভিজানো পানি

খালি পেটে দারুচিনি ভিজানো পানি খেলেও পেটের মেদ ঝরে। এর জন্য এক গ্লাস পানিতে এক থেকে দু’টুকরো দারুচিনি দিয়ে পানি ভাল করে ফুটিয়ে নিন। এই পানি ঠাণ্ডা হয়ে গেলে ছেঁকে খেয়ে নিন।

দইয়ের স্মুদি

একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, দই যদি খাদ্যাভ্যাসে রাখা যায়, তবে তা ৬১ শতাংশ মেদ ঝরাতে সাহায্য করে।

আদা ভিজানো পানি

পেটের একাধিক সমস্যায় আদার উপকারিতা অনেকেই জানেন। তবে ওজন কমাতে আদা বেশ কার্যকরী তা হয়ত অনেকেই জানেন না। এর সঠিক উপকার পেতে আদা কুচিয়ে সঙ্গে কয়েকটা তুলসী পাতা দিয়ে পানি ফুটিয়ে নিন। পানি ফুটে গেলে সেটা ছেঁকে ঠাণ্ডা করে মধু মিশিয়ে খেয়ে নিন।

ডাবের পানি

অনেক সময় দেখা যায় আমরা ক্লান্তি কাটাতে কোমল পানীয় পান করি। এগুলো শরীরের ওজন বাড়ায়। এসবের বদলে ডাবের পানি পান করা যেতে পারে। ডাবের পানিতে ক্যালোরি কম থাকে এবং পটাসিয়াম, ফাইবার এবং প্রোটিন সহ প্রাকৃতিক এনজাইম এবং খনিজ থাকে। যা ডাবের পানিকে ওজন হ্রাসের জন্য উপযুক্ত করে তোলে।

মৌরি ভিজানো পানি

শুধু হজম করতেই নয় ওজন কমাতেও বেশ কার্যকরী মৌরি। এর জন্য রাতে পানিতে মৌরি ভিজিয়ে রাখুন এবং পরের দিন সকালে ওই পানি ছেঁকে খেয়ে নিন খালি পেটে। নিয়মিত খেলে উপকার পাবেন।

সবজির জুস

খাওয়ার আগে যদি এক গ্লাস সবজির জুস পান করা যায়, তবে তা ওজন কমাতে অনেক ক্ষেত্রে সাহায্য করে।

শশা এবং পার্সলে স্মুদি

শশা এবং পার্সলে পাতার শরবত ডিটক্স করতে সাহায্য করবে। ফ্যাট বার্ন করতেও এটি উপকারী। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন এ, বি এবং কে শরীরের জন্য উপকারী। ব্লাগ সুগার ব্যালেন্স করে যেকোনো খাবার সহজে হজম করতে এই স্মুদি খুব উপকারী। প্রথমেই শশা টুকরো করে কেটে নিন। মিক্সিতে শশার টুকরো এবং পরিমাণ মতো পার্সলে পাতা একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এটি স্মুদি হিসেবে খেতে পারেন। বাড়তি স্বাদের জন্য আদা কুচি মিশিয়ে নিতে পারেন। চাইলে মিশিয়ে নিতে পারেন হালকা লেবুর রসও।

পাস্তুরিত দুধ বা স্কিমড মিল্ক

পাস্তুরিত দুধে কোনো রকম ক্যালরি থাকে না। ফলে তা খাওয়ার ফলে শরীরের মেদ ঝরে যায়।

মেথি চা

হজমশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। ফ্যাট বার্ন হয় দ্রুত। একগ্লাস মেথির পানি দিনের যেকোনো সময় খেলেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে। প্রাকৃতিক উপায়ে ডিটক্স হবে আপনার শরীর। এক কাপ ফুটন্ত পানিতে এক বা দুই চা চামচ মেথি দানা দিয়ে দিন। ধীরে ধীরে পানিতে মেথির রং বের হয়ে আসবে। কিছুক্ষণ ঢেকে রেখে কাপে ঢেলে নিন। স্বাদের জন্য গুড় মিশিয়ে নিতে পারেন। প্রতিদিন রাতে এটি খেলে ওজন কমবে দ্রুত।

তবে এই সব পানীয়র সঠিক উপকারিতা পেতে গেলে এই বিষয়গুলো মেনে চলতে হবে। যেমন- রাতে বেশি ক্যালোরি যুক্ত খাওয়ার খাবেন না। প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন। নিয়মিত শরীরচর্চা করুন। শরীর সুস্থ রাখতে বাইরের খাবার কম খান। প্রয়োজনে চিকিৎসক বা ডায়াটেশিয়ানের পরামর্শ মেনে চলুন।

  • সর্বশেষ