শিরোনাম

প্রকাশিত : ১৮ জুন, ২০২২, ১১:৫৯ দুপুর
আপডেট : ১৯ জুন, ২০২২, ১১:৪৫ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

৬ ধর্মীয় নেতা, ১ সঙ্গীত শিল্পীসহ ভারতের কালো তালিকায় ৭ বাংলাদেশি

ইমরুল শাহেদ: ভারতে অবস্থানে ভিসা নীতি লংঘন করে ‘আপত্তিকর কর্মকাণ্ডে’ লিপ্ত থাকার অভিযোগে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সাত বাংলাদেশিকে নিষিদ্ধ করেছে বলে জানিয়েছে দি নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। তাদের মধ্যে ছয়জন ধর্মীয় নেতা এবং একজন সঙ্গীত শিল্পী। ধর্মীয় নেতারা হলেন জালাল উদ্দিন ওসমানী, মুফতি হোসেইন, আবু তাহের, মোহাম্মদ জাকারিয়া, খাজা বদরুদ্দৌজা হায়দার এবং হযরত মৌলানা মুফতি। সঙ্গীত শিল্পী হলেন মুনিয়া মুন। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আসাম সরকার তাদের কর্মকাণ্ড কেন্দ্রের নজরে আনে।

কর্মকর্তাদের সূত্রে বলা হয়েছে, উল্লিখিত ধর্মীয় নেতারা বেশ কয়েকবার ভারত সফরে গেছেন এবং সেখানে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে উস্কানিমূলক বক্তৃতা দিয়েছেন। 

নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তারা মাঝেমধ্যেই মেডিক্যাল ও ট্যুরিস্ট ভিসায় আসাম যান। ভিসা নীতি অনুসারে ট্যুরিস্ট ভিসায় কেউ ভারতে গেলে তারা কোনো ক্রমেই ধর্মীয়, রাজনৈতিক ও ব্যবসায়িক কাজে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। মুন চলতি বছরের শুরুর দিকে ‘বিহু উৎসবে’ পারফর্ম করতে নিমন্ত্রিত হয়ে ভারতে যান। শেষ পর্যন্ত স্থানীয় লোকজনের প্রতিবাদের মুখে অনুষ্ঠানটি বাতিল হয়ে যায়। 

ইতোমধ্যে মেঘালয়ের পূর্ব জৈন্তা হিলস জেলার পুলিশ ভ্রমণে বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ১১ জন বাংলাদেশিকে আটক করেছে। যে গাড়িতে করে তারা মেঘালয়ে প্রবেশ করেছেন সে গাড়ির চালক ও স্থানীয় দুইজনসহ তিনজনকে এ সময় আটক করা হয়। চালকের বাড়ি আসামের কাচার জেলায়। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে ‘অবৈধ প্রবেশে সহায়তা করার’। 

দি হিন্দুর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেঘালয়ের পূর্ব জৈন্তা হিলস জেলায় পুুলিশ ১১ জন বাংলাদেশিকে আটক করেছে। এরপরই বাংলাদেশি ওই সাত নাগরিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়। আটক ১১ বাংলাদেশির মধ্যে আছে নারী ও শিশু।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়