শিরোনাম

প্রকাশিত : ০২ জুলাই, ২০২২, ০৬:৪২ বিকাল
আপডেট : ০২ জুলাই, ২০২২, ০৯:২১ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এরশাদ নেই বলেই জাতীয় পার্টি এলোমেলো: রওশন

রওশন এরশাদ

শাহীন খন্দকার: জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ বলেছেন, পল্লীবন্ধু এরশাদ নেই। উনি থাকলে পার্টি অন্যরকম হতো। উনি নেই, তাই আজ জাতীয় পার্টি এলোমেলো হয়ে গেছে।

শনিবার (২ জুলাই) দুপুরে গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে দলের বিভিন্নস্তরের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি। 

সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মোহম্মদ এরশাদ নেই বলেই আজ জাতীয় পার্টি এলোমেলো হয়ে গেছে। এসময়ে সভায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরসহ শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন না। রওশন এরশাদ বলেন, যাদের দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে তাদের ফিরিয়ে নিতে হবে। যারা চলে গেছেন তাদেরও ফিরিয়ে আনতে হবে। নতুবা আমরা পিছিয়ে যাবো। জাতীয় পার্টিতে স্বেচ্ছাচারিতা চলছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

রওশন এরশাদ তার বক্তব্যে ক্ষোভপ্রকাশ করে বলেন, দীর্ঘ ছয়মাস আমি থাইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলাম। পার্টির কেউ খোঁজ নেয়নি আমার। আমি সবার খোঁজ নিয়েছি। অথচ যাদের দল থেকে বের করে দেয়া হয়েছে তারাই আমার নিয়মিত খোঁজ রেখেছেন। মসজিদ, মাজারসহ বিভিন্ন উপাসনালয়ে দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

তিনি বলেন, অনেক ভালো ভালো নেতাকর্মী দলের বাইরে আছেন, তাদের দলে আনতে হবে। নতুন প্রজন্মকে দলে আনতে হবে। কাজী জাফর, শাহ্ মোয়াজ্জেম, আনোয়ার হোসেন মঞ্জুসহ অনেক সিনিয়র নেতা পার্টি ছেড়ে চলে গেছেনন, তাদের ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করতে হবে।

তিনি বলেন যে সব নেতা চলে গেছেন তাদের ফিরিয়ে এনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমকক্ষ বানাতে হবে জাতীয় পার্টিকে। নতুবা রাজনীতিতে টিকে থাকতে পারবো না। বিরোধী দলীয় এই সংসদ নেতা আরো বলেন, জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালী করার প্রয়োজনে যা যা করার দরকার তাই করবো।

তিনি বলেন, এরশাদ সাহেব তিলে তিলে জাতীয় পার্টিকে একটু একটু করে গড়েছেন। তাই তার হাতে গড়া দলটি সবাইকে নিয়েই কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, দীর্ঘ দিন চিকিৎসা শেষে আমি দেশে ফিরে এলে বিমানবন্দরে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীসহ এতো মানুষ আমাকে যে অভ্যর্থণা জানিয়েছেন, তাতে আমি অভিভ’ত এবং দু’চোখে জল এসে গেছে যে আপনারা আমাকে এতো সম্মান করেন, ভালোবাসেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়