শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৮ অক্টোবর, ২০২২, ০১:১৫ রাত
আপডেট : ০৯ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৫৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

জাতীয় পার্টিতে দ্বন্দ্ব চরমে

রওশন এরশাদ ও জি এম কাদের

শাহীন খন্দকার: যতোই জাতীয় নির্বাচন এগিয়ে আসছে, জাতীয় পার্টির মধ্যে ত্রিমুখী দ্বন্দ্বের মুখোমুখি হচ্ছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের। এসবের মধ্যেই জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘোষণা দিয়েছেন কাউন্সিলের। এর পরপরই মসিউর রহমান রাঙ্গাসহ দলের বেশ কয়েকজনকে দল থেকে অব্যাহতি কিংবা কারণ দর্শানো নোটিশ দিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান ।

থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ দেশে আসবেন আগামী ১৫-২০ তারিখে, দলের একটি নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যে আগামী ২৬ নভেম্বর রওশন এরশাদের ডাকা কাউন্সিলের প্রস্তুতিও দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে বেশ জোরেশোরে। অন্যদিকে সিলেট চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ বিভাগে রওশনপন্থিরা কাউন্সিলের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বলে জানা যায়।

খুলনা ও রাজশাহীসহ অন্যান্য বিভাগেও  সম্মেলন প্রস্তুতির কাজ চলছে। দেশের ১৩ জেলায় কাউন্সিলের প্রস্তুতি কমিটিও হয়েছে। কাউন্সিল সফল করতে জেলায় জেলায় যাচ্ছেন রওশনপন্থি নেতারা রওশনপন্থি জাপার এক মুখপাত্র জানান, রাজধানী ঢাকাসহ ঢাকা বিভাগেও কাজ চলছে। 
জাতীয় পার্টি একাধিক সূত্রে জানা গেছে, যদিও দলের অনেক গুরুত্বপূর্ণ নেতা রওশনের ডাকে সাড়া দেননি। তবে রওশন এরশাদপন্থিরা বলেছেন, জাতীয় পার্টি সংসদ সদস্যদের মধ্যে দ্বিধাদ্বন্দ কাজ করলেও অনেকেই তথ্যগোপন রাখার শর্তে যোগাযোগ করছেন।

তবে তৃণমুলের নেতা-কর্মীদের সাড়া পাওয়া গেছে ব্যাপক। রওশন এরশাদ ফিরে এলে কাউন্সিলের যাবতীয় কাজ আরও জোরেশোরে হবে। যে কোনো মূল্যে কাউন্সিল সফল করতে নির্দেশনা দিয়েছেন রওশন।

এনিয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের এর সঙ্গে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়