শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ১২:৩৯ দুপুর
আপডেট : ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ০৫:৪৮ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারবে না: মির্জা ফখরুল

মির্জা ফখরুল

মো. শাখাওয়াত হোসেন : কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আগামীকাল শুক্রবার রাজধানীর লালবাগে সমাবেশ করবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি।  

বিএনপি মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার বেলা আড়াইটায়  লালবাগ কেল্লার মোড় সংলগ্ন শ্মশান ঘাটের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি যুগ্ম আহবায়ক মোশাররফ হোসেন  খোকনের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি থাকবেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। বিশেষ অতিথি থাকবেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি আহ্বায়ক আব্দুস সালাম।

 সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শুক্রবার(০৭ অক্টোবর) রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই মন্তব্য করেন। 

জনগণের কাছে ভোট চাওয়ার বিএনপির কিছু নেই, তাই তারা নির্বাচনকে ভয় পায় প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, এটা তাদের পুরোনো কথা, আজ এটা নতুন কিছু নয়। জনগণের সঙ্গে প্রতারণা, মিথ্যা ও ভয় দেখিয়েই তো তিনি ক্ষমতায় টিকে আছেন।

ফখরুল বলেন, আমরা একটা গণতান্ত্রিক দল, নির্বাচন তো করতেই চাই। কিন্তু সেটা তো হতে হবে নির্বাচনের মতো। ভোটের আগের রাতে নির্বাচন হয়ে যাবে, ১৫৪ জনকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করে দিবে, বিরোধী দলের প্রার্থীরা কেউ প্রচারণা চালাতে পারবে না, তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হবে, এটা তো হতে পারে না। সুতরাং আমাদের ভয় পাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। 

এ সময় তিনি বলেন, সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি বেতার বার্তা ভাইরাল হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষ শাখার হেডকোয়াটার্সের বরাত দিয়ে ২৫ সেপ্টেম্বর রাঙ্গামাটি জেলার পুলিশ সুপারের বেতার বার্তা বলা হয়েছে, বিএনপিসহ অন্যান্য বিরোধী রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের জেলার কমপক্ষে ৮ জন শীর্ষ ব্যক্তি, প্রতি উপজেলার শীর্ষ ৫ ব্যক্তি এবং রাঙ্গামাটি জেলার সকল পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের অধীন কমপক্ষে ৫ ব্যক্তি যারা বর্তমান সরকার বিরোধী চলমান গণআন্দোলনে জনবল সংগঠক বা অর্থায়ন করে কিংবা অন্য কোনভাবে সহযোগিতা করে এমন ব্যক্তিদের বিস্তারিত তথ্য দিতে। 

তিনি বলেন, বিএনপি জানতে পেরেছে যে পুলিশের বিবশষ শাখার সদর দপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী সারা দেশের সকল জেলার পুলিশ সুপার নিজ নিজ এলাকার সকল থানার ওসিকে উপরোক্ত বেতার বার্তা অনুযায়ী তথ্য সংগ্রহের জন্য অনুরূপ নির্দেশনা জারী করেছেন। যা অত্যন্ত ভয়ংকর, অপ্রত্যাশিত, অসাংবিধানিক, এখতিয়ার বহির্ভূত।  গণতান্ত্রিক রীতিনীতি ও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী আচরণবিধি পরিপন্থী এবং রাজনৈতিক দল তথা গণমানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও আন্দোলন সমাবেশ করার মৌলিক অধিকার বিরোধী। 

তিনি বলেন, বেতার বার্তা থেকে প্রমাণিত হয় যে বাংলাদেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থসমূহ বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকারের নির্দেশে একটি নীল নকশার অধীনে চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে দমন করার জন্য কাজ করছে।  

ফখরুল বলেন, বর্তমান গণআন্দোলন চলছে মানুষের ভোটাধিকার পুণরুদ্ধার করা, মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধ করা, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও মূল্যস্ফীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন। তিনি আরও বলেন, বিরোধী রাজনৈতিক দলসমূহের নেতাকর্মীদের যে তথ্য সংগ্রহ করছে পুলিশ তা আমাদের সংবিধান, কিংবা দেশের অন্য কোন প্রচলিত আইন বা বিধি বিধানের আওতায় করতে পারেনা। পুলিশ সুপার তার আওতাধীন ওসিদের নিকট বেতার বার্তা বা অন্য কোন ব্যবস্থায় যে সব তথ্য চেয়েছে তা যে কোন মানদণ্ডে বে-আইনি এং অননুমোদিত পদক্ষেপ। 

ফখরুল বলেন, সংবিধানের ২৭, ৩২, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪১, ৪৪ অনুচ্ছেদে প্রচলিত আইন এবং আন্তর্জাতিক আইনেও দেশের প্রতিটি মানুষের স্বাধীনভাবে রাজনীতি করা এবং মত প্রকাশের পূর্ণ স্বাধীনতা স্বীকৃত রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এই ধরনের বেতার বার্তা বা অন্য প্রকারে তথ্য সংগ্রহ আইনের দৃষ্টিতে অকার্যকর, বেআইনি এবং অসাংবিধানিক।  

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়