শিরোনাম
◈ আদালতের আদেশ তো শিক্ষার্থীদের পক্ষেই, তাহলে কার বিপক্ষে আন্দোলন: ওবায়দুল কাদের ◈ গণতন্ত্রের জন্যও শিক্ষার্থীদের লড়াই করার আহ্বান আমির খসরুর ◈ চাল কেজিতে ২ থেকে ৫ টাকা, সবজি ১৫ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে ◈ কোটাবিরোধীরা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা শনিবার ◈ ৫ শতাংশ কোটা পুনর্বহালের দাবিতে আন্দোলনে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সদস্যরা ◈ আনোয়ারা-ফৌজদারহাট পাইপলাইন মেরামত সম্পন্ন, কমবে গ্যাস সংকট ◈ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চীন সফরে বাংলাদেশ, ভারত ও চীন তিনদেশই খুশি ◈ আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটালে বরদাশত করা হবে না: ডিএমপি কমিশনার ◈ কোটা আন্দোলনকারীরা ঘরে ফিরে যাবে বলে আশাবাদ আইনমন্ত্রীর ◈ অতি বৃষ্টিতে রাজধানীর বেশিরভাগ এলাকায় হাঁটুপানি, জনজীবন বিপর্যস্ত

প্রকাশিত : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০১:২৩ রাত
আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০১:২৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীর পক্ষ থেকে

সৈয়দা সাজিয়া আফরিন

সৈয়দা সাজিয়া আফরিন: পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীর পক্ষ থেকে এটিকে খুব গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়। তবুও বিয়েতে পক্ষরা পরস্পরের আর্থিক সঙ্গতি দেখার ব্যপারটাকে খুব হেয় করে দেখার সুযোগ নেই। বিয়ে ব্যাপারটা যতটা না ব্যক্তিগত, ধর্মীয় তার চেয়ে ঢের বেশি হলো বিয়ে সামাজিক। মূলত পরিবার তৈরির কারখানা বিয়ে। বিয়েতে দেখা হয় [১] শরীরিক সৌন্দর্য, [২] টাকা, [৩] সামাজিক মর্যাদা, [৪] শিক্ষাগত যোগ্যতা। ‘গোল্ড ডিগার’ শব্দটা ফকিন্নি পুরুষের আত্মগ্লানি ভোলানোর একটা অক্ষম চেষ্টা। বিয়ে বা প্রেম মাত্রই হয় ‘চাইচিতি’, মানে দেখেশুনে বুঝে। এটা পুরুষ আরও বেশি করে। মেয়েপক্ষ বা প্রেমের ক্ষেত্রে মেয়ে নিজেই পুরুষটির আর্থিক সঙ্গতি যাচাই করে। সেটাও কিন্তু কম দরকারি না। ‘ফকিন্নি’ কুদ্দুসের চেয়ে স্বপ্নধারার মালিক রণভীর অবশ্যই ভাল। তাই তিশা-মুশতাক, মামুন ফেইরি লায়লার প্রেমে আপত্তির কিছু দেখি না। 

তবে সমস্যা একটু আছে। সেটা হচ্ছে যখন ইনারা বলেন ‘মন দেখে’ প্রেম ‘মন দেখে’ বিয়ে। এই মনটাও কিন্তু অনেকখানি নির্ভর করে আর্থসামাজিক নানা বিষয়ের উপর। এ সমাজে নারী দলিত তাই আর্থিক নিশ্চয়তাই নারী ও নারীর পরিবারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। যে নারী ও তার পরিবার যত বেশি দলিত সে নারী তত বেশি ও ততটা বেশি করে চায় টাকার নিশ্চয়তা। মন দেখে তিশা রিকশাঅলার প্রেমে পড়বে না, মামুন তার পাড়ার আন্টির প্রেমে পড়বে না। শরীরী চাহিদা পূরণও বিয়ের সাধারণ উদ্দেশ্য। অবশ্যই উভয়ের। তবে এ সমাজে পুরুষেরটা জায়েজ পুরুষেরটা জরুরি বেশি। তাই পুরুষ শরীর এনজয় করে, আর নারী তা বিক্রি করে। নারীটি অন্যান্য অনেক ফ্যাক্টরকে একেবারেই বাদ দিয়ে ক্ষমতা ও টাকাকে গুরুত্ব দেয়, সেখানে নারীটি বিক্রেতা পুরুষটি ক্রেতা। সেটা অপরাধের কিছু না। তবে ‘মন দেখে’ ভালোবেসেছি এই ভাওতাবাজি করাটাও কাম্য না। ভুল মেসেজ যায়।
 লেখক: সাংবাদিক

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়