শিরোনাম
◈ সরকারের কাছে 'আট দফা দাবি' কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ◈ শুক্রবারের সহিংসতায় ঢাকায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ জনে ◈ এটা অবশ্যই কারফিউ, এটা নিয়ম অনুযায়ীই হবে এবং সেটা শুট অ্যাট সাইট হবে: ওবায়দুল কাদের ◈ কারফিউ’র পরিপত্র জারি ◈ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা কোটা আন্দোলনকারীদের ◈ ওবায়দুল কাদের কারফিউ জারি প্রসঙ্গে যা বললেন ◈ সারা দেশে কারফিউ জারি, সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত ◈ নরসিংদীর কারাগারে হামলার পর বের হয়ে গেছে কয়েকশ কয়েদি ◈ বাংলাদেশে সহিংসতা ও মৃত্যুর ঘটনায় জাতিসংঘের উদ্বেগ ◈ রাজধানীর উত্তরা, মোহাম্মদপুর, বাড্ডাসহ বিভিন্ন এলাকায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

প্রকাশিত : ০১ এপ্রিল, ২০২৩, ১২:২৮ রাত
আপডেট : ০১ এপ্রিল, ২০২৩, ১২:২৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

প্রথম আলোর এডিটরিয়াল লিডারশিপে নিউজরুমের লোকজন যেতে পারলেন না কেন?

গাজী নাসিরউদ্দিন আহমেদ

গাজী নাসিরউদ্দিন আহমেদ: প্রথম আলো ও এন্টি প্রথম আলো ডামাডোলের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেছেন জাহিদ নেওয়াজ খান জুয়েল ভাই। তিনি বলছেন, প্রথম আলোর ঘটনাটা মিডিয়ার সামনে, এমনকি লিখেও পরিষ্কার করে বলতে পারেননি পত্রিকাটির দ্বিতীয় ও তৃতীয় শীর্ষ কর্মকর্তা। তিনি নামোল্লেখ করেছেন নির্বাহী সম্পাদক সাজ্জাদ শরিফ ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক আনিসুল হকের। তারা মূলত কবি ও সাহিত্যিক। নিউজরুমের লোক নন। জুয়েল ভাই বলেছেন, হাতে কলমে  নিউজে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে এমন একজন প্রথম আলোতেই ঘটনাটার সঠিক চিত্র তুলে ধরে লিখেছেন। তার নাম, নাদিম মাহমুদ। 

প্রবাসী গবেষক নাদিম বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় থেকেই রিপোর্টিং করেছেন। এমনকি জাপানে পিএইচডি করার সময়ও রিপোর্টিংয়ের প্যাশন তিনি ছাড়তে পারেননি। কথা নাদিমকে নিয়ে নয়। প্রশ্ন হলো, প্রথম আলোর এডিটরিয়াল লিডারশিপে নিউজরুমের লোকজন যেতে পারলেন না কেন? মতিউর রহমানের নিজেরও সরাসরি নিউজরুমে কাজ করার অভিজ্ঞতা নেই। দেশের সবচেয়ে বড় সংবাদপ্রতিষ্ঠানের শীর্ষ তিন ব্যক্তিই সংবাদ সংগ্রহ, রচনা, সম্পাদনা ও প্রকাশের অভিজ্ঞতাহীন। কেন এমন হলো? আমাদের রাজনৈতিক নেতারা যেমন প্রশ্নহীন আনুগত্য চান, মতিউর রহমানও তেমনি প্রশ্নহীন আনুগত্য চান। পেশাদারিত্বের কথা বলেন বিজ্ঞাপন হিসেবে। আসলে পেশাদারিত্ব নেই। সমস্যা হচ্ছে, বাংলাদেশে বাকিরা আরও বেশি অপেশাদার। এই যে আনিসুল হক একটা লেখা লিখলেন, তার কোনো ফোকাস নেই। কোনো আর্গুমেন্ট নেই। কান্নাকাটি ছাড়া কোনো এডিটরিয়াল স্ট্যান্ড নেই। 

পুনশ্চঃ প্রথম আলোর গ্রেপ্তারকৃত সাংবাদিকটির আইনত দোষ করার সুযোগ নেই। ফটোকার্ডটি প্রকাশের কয়েক মিনিটের মধ্যে সরিয়ে নেওয়ায় মতিউর রহমানকেও জুডিশিয়াল প্রসেসে আটকানো সম্ভব না বলে আমার মনে হয়। আশা করি, তিনি জামিন পাবেন। এই আইনটি থেকে সাংবাদিকদের রেহাই দিন। লেখক: সাংবাদিক। ফেসবুক থেকে 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়