শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৩ জুলাই, ২০২২, ০২:৩৫ দুপুর
আপডেট : ০৩ জুলাই, ২০২২, ০৮:৪২ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

কমলাপুরে টিকিটের অপেক্ষায় শতাধিক নারীর সারারাত অপেক্ষা

কমলাপুর স্টেশন

শাহীন খন্দকার: ঈদে বাড়ি ফেরার আশায় কমলাপুর রেল স্টেশনে ট্রেনের টিকিটের জন্য শনিবার সারারাত রেলস্টেশনে কাটিয়েছেন টিকিট প্রত্যাশিত শতাধিক নারী।

রংপুরের নূরানী বেগম জানিয়েছেন, করোনা মহামারি চলমান থেকে তিনি বাড়ি যান নাই। নূরানী স্টেশনে এসে ভিড় বেশী থাকায় তিনি বাসায় ফিরে না গিয়ে স্টেশনেই অন্যান্য নারীদের সাথে কাটিয়ে দিয়েছেন শনিবার রাতটি, টিকিট না পাওয়ার শঙ্কায়। তার মতো অনেকেই রয়েছে স্টেশনে বলে জানালেন তিনি।

কমলাপুর স্টেশনে রয়েছে ১০টি টিকিট কাউন্টার । তার মধ্যে ৯টি কাউণ্টার থেকে দেওয়া হচ্ছে পুরুষ যাত্রীদের টিকিট। একটি মাত্র কাউন্টার থেকে দেওয়া হচ্ছে নারীদের টিকিট। এখানেও রয়েছে প্রতিবন্ধিদের জন্য টিকিট সংগ্রহের জন্য নির্ধারণ করা। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন প্রতিবন্ধিসহ নারীরা।

নূরানী বলেন, রাতে স্টেশনেই কাটিয়েছি। আমরা কয়েকজন মিলে নিজেরাই সিরিয়াল করেছি। গতকাল মধ্যরাত পর্যন্ত ১৪৪ জন নারীর সিরিয়াল করেছি। ভোররাতে বা তার পর থেকে যেসব নারী এসেছেন, তাদের তথ্য হালনাগাদ করা হয়নি। এত কষ্ট করার পরও বুঝতে পারছি না টিকিট পাব কি না ?

রাজধানীর মীরপুরের হাজেরা বেগম বলেন, ঈদ করতে লালমনিরহাটের গ্রামের বাড়ি যাবেন তিনি। তিনি বলেন, আমার টিকিট কেটে দেওয়ার কেউ নেই। তাই রাতেই এসেছি সঙ্গীদের সাথে। রাতে এখানেই ছিলাম। কিন্তু এখনো টিকিট পাইনি। প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তবে রেলস্টেশনে নিরাপত্তার কোনো সংকট ছিল না। কিন্তু দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে থাকতে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।

এদিকে গতকাল কমলাপুর রেলস্টেশনে রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, নারীদের জন্য দুটি কাউন্টারের ব্যবস্থা করা যায় কি না, তা দেখবেন তিনি। কিন্তু নারীদের জন্য রোববারেও  কাউন্টার বাড়েনি, বরং যে একটি কাউন্টার আছে, সেখানে আজও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের লম্বা লাইন।

ট্রেনের টিকিটের আশায় সারা রাত কমলাপুর রেলস্টেশনে কাটিয়েছেন টিকিট প্রত্যাশী শতাধিক নারী। চারজন নারীর পর একজন শারীরিক প্রতিবন্ধীকে টিকিট দেওয়া হচ্ছে। নারীদের কাউন্টারের সামনে অন্তত ২৫ জন শারীরিক প্রতিবন্ধীকে দেখা যায় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে।

কমলাপুর রেলস্টেশনের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলেন, প্রতিবন্ধিদের জন্য আগামীকাল সোমবার পৃথক কাউন্টারের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে । তবে নারীদের জন্য পৃথক কাউন্টার করার আপতত সুযোগ নেই বলে জানান তিনি। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়