শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৭ মে, ২০২২, ০২:২৩ রাত
আপডেট : ২৭ মে, ২০২২, ০২:২৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

দেশে দীর্ঘস্থায়ী রাজনৈতিক সংঘাত আসন্ন?

গাজী নাসিরউদ্দিন আহমেদ

গাজী নাসিরউদ্দিন আহমেদ: দেশে একটি দীর্ঘস্থায়ী রাজনৈতিক সংঘাত আসন্ন বলে ধারণা করছি আমি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের সক্রিয় উপস্থিতি ও তৎপরতা এবং ক্ষমতাসীনদের সমর্থক ছাত্রলীগের প্রতিরোধ চেষ্টা এই সংঘাতের ওপেনিং শট। আগামী সাধারণ নির্বাচনকে ঘিরে অদৃশ্য রাজনীতির রসদের জোগান দিতে মাঠের তৎপরতা অনিবার্য। এখন সেটি কতদূর গড়ায় তা-ই দেখার বিষয়। জামায়াতে ইসলামী আলাদা করে শক্তি প্রদর্শনের জন্য বড় বড় মিছিল করেছে। দেখবেন, বিএনপি নেতারা বলছেন, তাদের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। জামায়াতের সঙ্গে আপাত হলেও দূরত্ব রাখবে তারা। জোনায়েদ সাকিরা বামজোট থেকে বের হয়ে ভিপি নূরদের সঙ্গে জোট করেছেন। শহীদুল আলম দৃক নিউজ চালু করেছেন। আমার ধারণার পক্ষে ইঙ্গিতগুলো দিলাম। জাফরুল্লাহ চৌধুরীর দীর্ঘ মেয়াদী  জাতীয় সরকার আর বিএনপির অন্তবর্তী সরকারের লক্ষ্য একটাই। 

আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনা যেন সরকারপ্রধান না থাকেন। বিএনপির উপর মাঠ গরম করার চাপ আছে। সেটা করার সাংগঠনিক ক্ষমতা দলটির নেই বলে মনে হয়। উপরন্তু নানা জায়গায় কমিটি গঠন নিয়ে পুরনো ও নতুন বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ রয়েছে। জামায়াত ইন্ডিপেন্ডেন্টলি আন্দোলন করলেও মাঠ সহিংস করে তুলতে এরা পারঙ্গম। বিএনপিরও আর্থিক সঙ্গতি আছে অস্থিরতা তৈরি করার। ভিপি নূরের প্রচুর তরুণ সমর্থক আছে। কিন্তু বিসিএস লক্ষ্যধারী এসব তরুণকে তিনি সরকার হটানোর মিছিলে নামাতে পারবেন কিনা সন্দেহ। তবে এক শ্রীলঙ্কা দিয়েই সরকারবিরোধীরা বেশ আতঙ্ক ছড়াতে পেরেছে বলে মনে হয়। সরকার জবাব দিচ্ছে পদ্মা সেতু দিয়ে। সরকারপক্ষ ভার্চুয়াল জগতে খানিকটা শক্তি সঞ্চয় করেছে বলে মনে হয়। এটি একচেটিয়া বিরোধীদের দখলে ছিল। আমার কথা হচ্ছে, এই নির্বাচন কমিশনকে জনগণের আস্থা অর্জন করতে হবে আগে। ইভিএম প্রস্তুতি রাখুক। কিন্তু সেটা নিয়ে রিজিড থাকার দরকার নেই।

ইভিএম ম্যানিপুলেশনটা যন্ত্রে হয়েছে বলে আমরা দেখিনি। বুথ দখল করে ইচ্ছেমতো মেশিনে ভোট দেবার ঘটনা ঘটেছে। ভোটকেন্দ্র স্বাধীন থাকলে ইভিএম কোনো সমস্যা না বলেই মনে করি। একটি অংশগ্রহণমূলক সুষ্ঠু নির্বাচনই আমার প্রত্যাশা। গণতন্ত্রের চেক অ্যান্ড ব্যালেন্স সুশাসনের প্রথম শর্ত। দুর্নীতি প্রতিরোধে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতেই হবে। আইনের শাসন লাগবেই।
 লেখক: সাংবাদিক। ফেসবুক থেকে 

  • সর্বশেষ