শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৬ মে, ২০২২, ০১:৪৪ রাত
আপডেট : ২৬ মে, ২০২২, ১২:০৩ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

সেটা কেন আপনারে গর্বিত করবে না?

ধরেন, আপনার বাপ-দাদার টাকাতেই তৈরি হইছে পদ্মা সেতু

অমি রহমান পিয়াল

অমি রহমান পিয়াল: এমন তো না বহু বছর আগের কথা! আপনারা নান্না বাচ্চা ছিলেন, কিংবা জন্ম হয় নাই, বাপ-দাদার কাছ থিকা গল্প শুনছেন। মহামারী শুরু হইছিলো তিন বছর আগে, তখন সুশীলসমাজের ভবিষ্যৎবাণী নিশ্চয়ই ভুইলা যান নাই। জ্বী, তারা বাংলাদেশ শ্মশান হবে ভবিষ্যৎবাণী করছিলেন। লকডাউন আর কারফিউতে তফাৎ নাই, লোকের কাজ নাই, বাড়িভাড়া দিতে পারে নাই, তারপরও বাংলাদেশের মানুষ না খাইয়া মরে নাই। উদাহরণ নাই। যেভাবেই হোক অভাবীদের চুলা জ্বালায়া রাখার ব্যবস্থা হইছে। তাই না খাইয়া মরার গল্প দিয়েন না প্লিজ। বন্যায় শীতে দুর্গতদের কখনো বিপন্ন ছেড়ে দেওয়া হয় নাই। এটা জিয়ার আমল না যে ফকির দেখলে ট্রাকে তুইলা হিলট্র্যাক্টস পাঠায়া দিবে। বরং ভূমিহীনদের ঘরবাড়ি বানায়া পুনর্বাসন করা হইছে। তো মিনিমাম কৃতজ্ঞতাবোধ নাই কেন আপনাদের?

ইউক্রেন যুদ্ধ দ্রব্যমূল্যে যে চাপ সৃষ্টি করছে তা কী শুধু বাংলাদেশে? আমেরিকায় কিংবা মিডলইস্টে পরিচিত কেউ আছে? ইউরোপে? ইংল্যান্ডে? 

তাগো একবার জিগান পরিস্থিতি কী। তারপর মিলায়া দেখেন কতো খারাপ আছেন। শোকর করেন সুশীলদের আশঙ্কা মিথ্যা কইরা আমরা ভালো আছি। ভর্তুকি দিয়া হইলেও পরিস্থিতি সহনীয় রাখার চেষ্টা চলতেছে। শ্রীলঙ্কা গেছে। পাকিস্তান যাই যাই করতেছে। এর মধ্যে আফগানিস্তানরে এক কোটি টাকা অনুদান দেওয়া হইছে। এতো কিছুর মধ্যে আপনাগো খানাপিনা কিন্তু ঠিক আছে, জন্মদিন, বিয়াশাদী ডেটিং খাটের খেলা সবই চলতে আছে। তারপরও পদ্মা সেতু নিয়া গর্ব করা যাইবো না, লেখা যাইবো না। লিখলেই আপনাগো চাপাবাজি শুরু হয়া যাবে। ধরেন আপনার বাপ-দাদার টাকাতেই তৈরি হইছে, সেটা কেনো আপনারে গর্বিত করবে না? এক টাকা যখন দুই রূপীর সমান, নিজেরে আর গোলাম ভাবার দরকার আছে কোনো? লেখক ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট। ফেসবুক থেকে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়