শিরোনাম
◈ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার দুই হাতের রগ কর্তন ◈ ‘শিগগিরই সরকারের দুর্নীতির তথ্য তুলে ধরবে বিএনপি’ ◈ বিদ্যুৎ উৎপাদনে বড় অংকের ভর্তুকি দিচ্ছে সরকার, ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ◈ শপথ নিলেন কুমিল্লা সিটি নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলররা ◈ কোরবানির পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ ◈ নাইকো মামলায় খালেদার অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছালো ◈ ‘গাজী আনিসের শরীরে আগুন ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে’ ◈ ‘নূপুর শর্মাকে গ্রেফতার করা উচিত, কারণ উনি আগুন নিয়ে খেলতে পারেন না’, বললেন মমতা ◈ মোহাম্মদপুরে গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণে মা ও ছেলে দগ্ধ ◈ চীনে ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত জাহাজ, ১২ জনের প্রাণহানি

প্রকাশিত : ২৫ মে, ২০২২, ০২:১৩ রাত
আপডেট : ২৫ মে, ২০২২, ০২:১৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

কাজ না করে হায় হায় করা অর্থহীন

জাকির তালুকদার

জাকির তালুকদার: জামায়াতে ইসলাম এবং আরো কিছু সংগঠনের মহিলা শাখার কর্মীরা দেশের প্রতিটি শহরের পাড়া-মহল্লার নারীদের নিয়ে আলোচনা চক্র করে চলেছে বছরের পর বছর। তার ফলাফল এখন পুরোপুরি দেখা যাচ্ছে নরসিংদী, ঢাকাসহ সারাদেশে। কি কি দেখা যাচ্ছে তার তালিকা দরকার নেই। কারণ সকলে নিজেরাই দেখতে পাচ্ছেন। পোশাকের নামে নারী কর্তৃক নারীর লাঞ্ছিত হওয়া সেগুলোর একটি। বেশিরভাগ মানুষ সমাধান হিসাবে সরাসরি সরকারের হস্তক্ষেপ দাবি করাই যথেষ্ট ভাবছেন। কিন্তু আমি পরিষ্কার বিশ^াস করি, সরকারের পক্ষে এটি নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব। পুলিশের সদস্য নিজেই এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে কিছুদিন আগে যা ভাইরাল হয়েছে। খোঁজ নিয়ে দেখুন যারা এসব ঘটায় তারা মনে করে তাদের এসব অপকর্ম সঠিক এবং ধর্মসম্মত। এসব কাজের জন্য তারা অনুতপ্ত নয়, বরং মনে করে সওয়াব হাসিল করছে। ওয়াজে হাজার হাজার মানুষ যায়। তাদের মধ্যে শতকরা ৯৯ জন এক কান দিয়ে যা শোনে, আরেক কান দিয়ে বের করে দেয়। এটাই সত্য। এ নিয়ে প্রকাশ্যেই দুঃখ করে মোল্লা-মওলানারা। কিন্তু সারা দেশে চলমান এইসব ছোট ছোট আলোচনা চক্র নিয়মিত পশ্চাৎমুখী করে চলে মহিলাদের। 

পুরুষ ও শিশুদের জন্যও আলাদা আলাদা পাঠচক্র চালু আছে। এই সংগঠকরা নিরলস এবং নিয়মিত শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন বছরের পর বছর। এই কাজটি তারা শিখেছে বামপন্থীদের কাছ থেকে। ষাট, সত্তর, আশির দশক পর্যন্ত এই ধরনের কাজ করে গেছেন বামপন্থীরা। নব্বই দশক থেকে বামকর্মীর অভাব। তাই বাংলাদেশে নব্বই সালের এরশাদ পতনের পর আর কোনো আন্দোলনের অর্জন নেই। জামাতের মহিলা শাখার আয়োজকদের মতো নিজের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানোর মানসিকতা শুধু বামপন্থীদেরই ছিল। তাদের কাজের ফল ভাঙিয়ে চলেছে নব্বই দশক পর্যন্ত। এখন বিপরীত ধারার মাধ্যমে নারী-পুরুষের মগজ ধোলাই চলছে তিরিশ বছর ধরে। তাই বারবার বলেছি, ফেসবুকে লিখা গুরুত্বহীন নয় বটে, কিন্তু শুধু ফেসবুকে লিখে সামাজিক পরিবর্তন ঘটানো যায় না। দরকার সারাদেশে হাতে-কলমে কাজ। তা নাহলে আমাদের জাতির সর্বনাশ ঠেকানো অসম্ভব।
 লেখক: কথাসাহিত্যিক। ফেসবুক থেকে 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়