শিরোনাম
◈ পদ্মা সেতুর বিরোধীতাকারীরা লজ্জিত: তথ্যমন্ত্রী ◈ শাহজালালে ২৩ লাখ সৌদি রিয়াল ফেলে পালালো যাত্রী ◈ ফিনল্যান্ড-সুইডেনে ন্যাটো সেনা পাঠালে জবাব দেবে রাশিয়া: পুতিন ◈ বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ঢেলে সাজানো হচ্ছে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা ◈ পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে নাচ-গান? দর্শকদের রোষানলে অভিনেতা অপূর্ব ◈ শিক্ষককে হেনস্তার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রিট ◈ মানবতাবিরোধী অপরাধে ১ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৩ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড ◈ সাকিবকে নিয়ে আবার সমস্যায় বিসিবি ◈ পদ্মা সেতুর অর্থায়ন বন্ধের অভিযোগ কল্পনাপ্রসূত: ইউনূস সেন্টার ◈ পদ্মা সেতু নিয়ে ভারতের উচ্ছ্বাস, ফের বাস চলাচল শুরু 

প্রকাশিত : ২২ মে, ২০২২, ০১:৪২ রাত
আপডেট : ২২ মে, ২০২২, ০১:৪২ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বর্তমান নির্মূল কমিটির নেতৃস্থানীয়দের সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা তলানিতে

আনিস আলমগীর

আনিস আলমগীর: আইনমন্ত্রী বলেন, অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে অপসারণ করা হয়েছে। তারপর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি ওই মহিলাকে দুর্নীতির অভিযোগ থেকে খালাস দিয়েছে তাদের তদন্তে। তাদের তদন্ত করার প্রয়োজন হল কেন! নিজের সংগঠনের সদস্যের জন্য তদন্ত কমিশন করে, নিজেরাই তাকে সাধু বলে সার্টিফিকেট দেয়- কেউ জীবনে শুনেছেন! ফলে এদের তদন্ত যে কতটা ফাস্ট ক্লাস হবে বুঝেছেন সবাই? বর্তমান নির্মূল কমিটির নেতৃত্ব স্থানীয়দের সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা তলানিতে, সংগঠনের মান কোথায় নেমেছে এটা থেকে অনুমান করা যায়। দুদকের সঙ্গে সম্পর্ক দুর্নীতির, তার সঙ্গে সম্পর্ক ধর্মব্যবসার নয়। দুর্নীতি এবং ধর্ম ব্যবসায়ীদের তদন্ত করার দায়িত্ব সরকারের নিজস্ব সংগঠনের, দুর্নীতিগ্রস্ত, নষ্ট ভ্রষ্টদের নেতৃত্বে পরিচালিত কোনো সংগঠনের নয়।

২০০১ সালের নির্বাচনের আগে আগে কুকুরের মাথায় টুপি লাগিয়ে যারা পোস্টার বানিয়ে ছিল, এদের সঙ্গে ১১৬ জন আলেমের তথাকথিত তদন্তকারীদের সম্পর্ক আছে কিনা আওয়ামী লীগ নেতাদের খুঁজে দেখা দরকার। কারণ আবার নির্বাচনের মৌসুম এসেছে। আমাদের নিজেদেরকে ধিক্কার দিতে হবে যেই নির্মূল কমিটির জন্য এক সময় আমরা শ্রম দিয়েছিলাম, স্লোগান দিয়েছিলাম, কলম ধরেছিলাম, জাহানারা ইমামের পেছনে সর্বাত্মকভাবে দাঁড়িয়ে ছিলাম, সেই সংগঠন এখন দুর্নীতিবাজদের রক্ষাকবচ, নষ্ট-ভ্রষ্টদের আশ্রয়স্থল। ব্যক্তিবিশেষের পকেট সংগঠন।
 লেখক: সাংবাদিক। ফেসবুক থেকে 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়