শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৭ আগস্ট, ২০২২, ০১:৪৩ রাত
আপডেট : ০৭ আগস্ট, ২০২২, ০১:৪৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

সরকার মনে করে, স্বৈরতন্ত্রী দাপটে তারা যা খুশি তাই করতে পারে!

আনু মুহাম্মদ

আনু মুহাম্মদ: সরকার যেন বারবার প্রমাণ করতে চায়, জনগণের দুর্ভোগ আর অর্থনীতির শৃঙ্খল বাড়াতেই তার বেশি আগ্রহ এবং আনন্দ। নইলে অনেক ভালো বিকল্প থাকা সত্ত্বেও কীভাবে মাত্র কয়েক মাসের মাথায় এইরকম উচ্চ হারে ডিজেল, পেট্রোল, অকটেন-এর দাম বাড়ায়? সরকার একটা ভাঙা যুক্তি দেবেÑ বিশ্ববাজারে এসব তেলের দাম বেড়েছে তাই বাধ্য হয়ে বাড়াতে হচ্ছে। কথাটা বিভিন্ন দিক থেকে ভুল। প্রথমত, এখন বিশ্ববাজারে তেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী না, বরং নিম্নমুখী। দ্রুত তেলের দাম কমে যাচ্ছে। দ্বিতীয়ত, এর আগে বিশ্ববাজারে তেলের দাম যখন অনেক কম ছিল তখন সরকার কয় বছরে লাভ করেছিলো ৪৭ হাজার কোটি টাকা, গত কিছুদিনে যে লোকসান হয়েছে তার তুলনায় এই লাভ কয়েকগুণ বেশি। তার মানে সরকার জনস্বার্থ ও অর্থনীতির কথা চিন্তা করলে লাভের টাকার একাংশ দিয়েই এই লোকসান ঠেকাতে পারতো। 

তৃতীয়ত, দাম বাড়ালে যে ভয়াবহ পরিণতি হয় তার কথা চিন্তা করে বহু দেশেই তেল আমদানির ওপর শুল্ক প্রত্যাহার করে দাম কম রাখতে চেষ্টা করছে। সরকার সেটাও করে নাই। চতুর্থত, প্রধানমন্ত্রী তো কয়দিন আগেই আমাদের জানিয়েছিলেন, অকটেন পেট্রোল আমাদের কিনতে হয় না, দেশেই উদ্বৃত্ত হয়। তাহলে? জনগণের জীবন দুর্বিষহ করে, অর্থনীতিকে বিপদগ্রস্ত করে সম্পূর্ণ অযৌক্তিকভাবে ডিজেল, অকটেন, পেট্রোলের দাম বাড়ানোর পেছনে তাই সরকারের লোকজনদের লুটপাটে শতচ্ছিন্ন ছালা ভরা ছাড়া আর কোনো যুক্তি পাওয়া যায় না। সরকার মনে করে, স্বৈরতন্ত্রী দাপটে তারা যা খুশি তাই করতে পারে! ফেসবুক থেকে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়