শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৫ জুলাই, ২০২২, ১২:৪৭ রাত
আপডেট : ০৫ জুলাই, ২০২২, ১২:৪৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এ গিফ্ট ফর রজার

নির্মলেন্দু গুণ

নির্মলেন্দু গুণ

কিছুদিন হয় আমি সিগারেট ছেড়ে পাইপ ধরেছি। 
এই চমৎকার পাইপটি লসএঞ্জেলস থেকে ফেরার সময়
বিমানবন্দরে বিদায় নিতে এসে রজার আমাকে উপহার দিয়েছিল। 
পাইপটি আমার খুবই পছন্দ।

টিক চিহ্নের মতো, জমাট-বাঁধা রক্তবর্ণবিশিষ্ট এই
অজানা কাঠের পাইপটির নাম হচ্ছে ডক্টর গ্রাবো। 
গ্রাবোকে আমি জানি না, আমি রজারকেই চিনি। 
আমি যে সুইডেনের ‘বরকুম রিফ’ তামাকের ভক্ত, 
তাও রজারের কারণেই, সে চেরিফুলের সুগন্ধিযুক্ত 
এক প্যাকেট চেরি-ক্যাভেন্ডিশও আমাকে দিয়েছিল। 
ভাগ্য ভালো, বিদেশি পণ্য-ধন্য ঢাকার বাজারে 
আজকাল ঐ তামাক সহজলভ্য, দামও যুক্তিযুক্ত। 
ফলত ডক্টর গ্রাবো ও বরকুম রিফের বদৌলতে
এখন আমার ঢাকার দিনগুলো বেশ ভালো কাটছে। 
রজারকে আমি কোনোই উপহার দিতে পারিনি। 
এই কবিতাটি আমি লিখছি রজারের কথা ভেবে। 
ব্রিটিশ কুলোদ্ভব, মার্কিন-প্রবাসী উইলিয়াম রজার, 
লস এঞ্জেলেসে লিমুজিন-ক্যাবের মালিক-চালক। 
বঙ্গবন্ধুর মতোই দীর্ঘ-শালপ্রাংশু দেহের অধিকারী। 
পাশ্চাত্যের এন্টাই-স্মোকিং প্রচারের মুখেও আমি 
রজারের মুখ থেকে চিমনির মতো ধোঁয়া নির্গত হতে 
দেখেছি। 

তার সঙ্গে আমার সম্পর্ক ধূম্রসূত্রে গাঁথা। 
রজার জানে না, পাইপের চুল্লিতে, তামাকের মধ্যে
যখন আমার লাইটার প্রস্রাব করে অগ্নি, যখন ঐ
তামাকের সুগন্ধ-সৌরভে আমোদিত হয় পরিপার্শ্ব, 
তখন আমার কেবলই রজারের কথা মনে পড়ে। 
প্রিয়-রমণীদের কথাও আমার এতো মনে পড়ে না। 
এই কবিতাটি আমি লিখছি রজারের কথা ভেবে। 
কবিতার জন্য আমি আমার পাঠকের কাছে কখনো
অনুগ্রহ প্রার্থনা করি না, কিন্তু এই কবিতাটির জন্য
আমি আমার পাঠকের কাছে নতজানু হতে চাই। 
যদি অমরত্বের যোগ্য নাও হয়ে থাকে, তবু আমি 
চাই এই কবিতাটি তারা ভালোবেসে গ্রহণ করুক। 
এই কবিতার জন্ম হয়েছে এক কৃতজ্ঞ কবির হৃদয়ে। 
তৃষ্ণার্ত হরিণের মতো সে এমন এক ঝরনার উদ্দেশে
ধাবমান, সে এমন এক প্রকাশ-পাগল অনুভবের বাহক,
যার সবচেয়ে কম মূল্যবান নাম হতে পারে, প্রেম।  
তোমাদের ইংরেজির মতো আমাদের বাংলা ভাষায়ও
প্রেম শব্দটির চেয়ে মূল্যবান কোনো শব্দই যে নেই, 
তার জন্য, রজার, তুমি বা আমি কেউ-ই দায়ী নই। 
রজার, তুমি যদি আমাকে পাইপটি উপহার না দিতে, 
তাহলে কাঠের সঙ্গে অগ্নির সহাবস্থানের চিত্রকল্পটি 
হয়তো আমার অবলোকনের বাইরেই থেকে যেতো। 
রজার, তুমি যদি পাইপটি আমাকে উপহার না দিতে, 
তাহলে আমি হয়তো কোনোদিন জানতে পারতাম না
নক্ষত্রের মতো যার বুক অহোরাত্র অগ্নিতাপে পোড়ে-
তার মুখও পাথরের মতো এমন শীতল থাকতে পারে। 
এখন আমি অগ্নিকে আর ভয় করি না, ভালোবাসি।

 

  • সর্বশেষ