শিরোনাম
◈ সরকার দূর্নীতির মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি পঙ্গু করেছে: মির্জা ফখরুল ◈ ইসরাইলের সঙ্গে উত্তেজনা, ইহুদি এজেন্সি বন্ধ করে দিচ্ছে রাশিয়া ◈ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য ব্যক্তিগত, ভারতকে অনুরোধ করেনি আওয়ামী লীগ ◈ মিডিয়াকে সহনশীল হওয়ার অনুরোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ◈ টি-টোয়েন্টি একাদশ নির্বাচন করবে সাকিব ◈ ইতালিতে বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাঙচুর, পুলিশ মোতায়েন ◈ বিশ্বের ১০০ শীর্ষ বন্দরের তালিকায় ৬৪তম চট্টগ্রাম বন্দর ◈ চলন্ত লঞ্চে সন্তান প্রসব, আজীবন যাতায়াত ‘ফ্রি’ ◈ মৌলভীবাজারে টিলা ধসে ৪ নারী চা শ্রমিক নিহত ◈ ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য প্রমাণ করে স্বাধীনতায় তাদের বিশ্বাস নাই’

প্রকাশিত : ০৪ জুলাই, ২০২২, ০১:২৮ রাত
আপডেট : ০৪ জুলাই, ২০২২, ০১:২৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

যে কারণে ক্ষমতাবানরা শক্ত মনোবল নিয়ে ধর্মব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে পারে না

সুফি ফারুক

সুফি ফারুক: লোকের রাস্তা বন্ধ করে নামাজ পড়া হারাম কিনা, এসব নিয়ে কথা বলা অর্থহীন। আমার এতদিনের ধর্ম নিয়ে ফেসবুকে লেখালেখির অভিজ্ঞতা এটাই। এজন্যই গতমাসে সিদ্ধান্ত নিয়ে, এসব বিষয়ে ফেসবুকে লেখা বন্ধ করেছি। যারা লিখছেন, তাদের জন্য শুভেচ্ছা। তবে আপনাদের অবগতির জন্যই বলি- কোরআনে কি লেখা আছে, তাতে এদেশের সোয়াব শিকারিদের বিন্দুমাত্র এসে যায় না। এরা সেইসব মাসালাই চায় এবং আমল করে, যাতে অন্যের উপরে অনধিকার চর্চা করা যায়, অন্যের কাজে হস্তক্ষেপ করা যায়, অন্যের উপরে আক্রমণ করা যায়, নিজেকে অন্যদের চেয়ে আলাদা করা যায়। একজন ধর্ম ব্যবসায়ীই আমার চোখ খুলে দিয়েছেন। তাকে উত্তেজিত করার একপর্যায়ে তিনি যা বলেছিলেন, তার সারমর্ম হলো, আপনি যতোই কোরআন হাদিসের কথা বলেন, লোকে শুনবে না। আপনার কি মনে হয়, ইসলাম বলতে লোকে কোরআন-হাদিস বোঝে? লোকে যদি তাই বুঝত, তাহলে তো তারা নিজেরা পড়ে নিতো। 

লোকে ইসলাম বলতে আমাদের বোঝে। আমরা যা বলি সেটাই ইসলাম। আর লোকে যেটা শুনতে পছন্দ করে সেটাই আমরা কোরআন-হাদিসের আলোকে বলি। আমাদের ব্যাখ্যাই লোকে চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করে। তাই আমার মনে হয় না ফেসবুকের মর্দে মুমিনদের এসব লেখালেখিতে কোনো লাভ হবে। অকারণে আপনি আমি গালাগালির শিকার হবো, আক্রান্ত হবো। আর আমাদের নীতিনির্ধারকদের মধ্যে প্রচুর মোনাফেক রয়েছে। তারা মুসলিম সেজে আছে। সেজে আছে বলছি কারণ, তারা নিজেরা কোরআন-হাদিস পড়েনি, পড়তেও চায় না (আর যে মুসলিম হবার পরে বা বুদ্ধি হবার পরে, কোরআন-হাদিস অর্থ না জেনে পড়া ছাড়া, নিশ্চিন্তে সময় অতিবাহিত করতে থাকে, তাকে আমি কোরআনের শিক্ষা অনুযায়ী সঠিক মুসলমান বলতে পারি না)। যার ফলে সেসব ক্ষমতাবানরা জানেই না ইসলাম কি বলেছে। এজন্য তারাও মনের কোণে ধর্ম ব্যবসায়ীদের প্রতি একধরনের ভয়মিশ্রিত সমীহ লালন করে। আর এ কারণেই তারা শক্ত মনোবল নিয়ে ধর্ম ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে পারে না। উপরের আদেশের ছুতো খুঁজতে থাকে। এই সামাজিক ব্যাধিটি ইতোমধ্যে ক্যান্সার হয়ে গেছে। বড় বড় মানুষদের ছেলেমেয়েরা লাঞ্ছিত বা আক্রান্ত হবার আগে পর্যন্ত হুশ ফেরার সম্ভাবনা কম। তাই পচতে দেয়াটাই ভালো। যখন দেয়ালে পিঠ ঠেকে, সত্যিই সমাধান চাইবে, তখন আমরা সাহায্য করবো। তার আগে পর্যন্ত আসুন ফেসবুকে আমরা রাজনীতির অন্যান্য বিষয় ও ফুল-পাখি-লতা-পাতা নিয়েই থাকি। ফেসবুক থেকে 

  • সর্বশেষ