শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৪ জুলাই, ২০২২, ০১:২৪ রাত
আপডেট : ০৪ জুলাই, ২০২২, ০১:২৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ঘুষ-দুর্নীতি, হারাম থেকে দূরে থাকলে যে লাভ

শরিফুল হাসান

শরিফুল হাসান: ছোটখাটো নানান বিষয়ে আমাদের ধর্মীয় অনুভূতি যতোটা শক্ত মানুষকে কষ্ট দেওয়া, ঘুষ-দুর্নীতি, আরেকজনের জমি দখল বা অবৈধ আয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে ততোটা শক্ত না। এর ফলে দেখবেন, দেশে-বিদেশে খেতে গিয়ে মুরগিটা হালালভাবে জবাই হয়েছে কিনা তা নিয়ে যত চিন্তা আমাদের, হালাল রুজি নিয়ে ততোটা চিন্তা নেই। এমনকি হারাম আয়ে যে ইবাদত কবুল হয় না, সেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টাও আমরা প্রায়ই ভুলে যাই। অথচ এই কথাটা মনে রাখলে সারাজীবন দুর্নীতি করে শেষ জীবনে হজ করার ভাবনা মাথায় আসতো না। 

এই যে আমরা একদিকে সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের দেশ, মাঝে মধ্যেই ধর্মের নামে বাড়াবাড়ি করি আরেকদিকে দেখবেন সর্বগ্রাসী দুর্নীতি। হারাম আয় করতে, হারাম খেতে আমাদের কোন সমস্যা হয় না। বরং অসৎ আয়ে দেখবেন ক্ষমতার দম্ভ। অথচ দেশটা খুব ছোট। যে ঘুষ খায় দুর্নীতি করে সে ভাবে সামনাসামনি লোকে তাকে সালাম দেয়, নানা কমিটির সভাপতি তিনি কিন্তু বাস্তবে সবাই জানে আপনি দুর্নীতি করেন। 

এই যে দুর্নীতি যে কোনভাবে বড়লোক হওয়ার চেষ্টা সেটা কিন্তু আমাদের এই দেশ সমাজ মূল্যবোধ সবকিছু শেষ করে দিচ্ছে। অথচ আমরা যদি সবসময় হালাল রুজি নিয়ে চিন্তা করতাম, সবসময় সৎভাবে চলতাম তাহলে ঘুষ-দুর্নীতিসহ অনেক অপরাধ কমে যেত বাংলাদেশে। আর কোন মানুষের আয়টা হালাল হলে তিনি নিজেও বহু অপরাধ থেকে দূরে থাকবেন। আফসোস আমরা সেদিকে নজর দিই না। বরং যার টাকা আছে হোক সেটা যেনতেন ভাবে তাকেই আমরা ভাবি ক্ষমতাবান। 

এ কারণেই আমি সবসময় ছোট্ট একটা নীতি নিয়ে চলি, যে সবসময় সৎ থাকবো, আয়টা হালাল রাখবো, মানুষকে কষ্ট দেবো না বরং সবসময় মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়াবো। এই ছোট্ট কাজটা করলে দেখবেন আমাদের অধিকাংশ সমস্যা মিটে গেছে। আল্লাহ আমাদের সবাইকে বোধ দিক। ঘুষ-দুর্নীতি হারাম থেকে দূরে রাখুন। হালাল রুজির ব্যবস্থা করুক। ভাল থাকুন সবাই। ভালো থাকুক প্রিয় বাংলাদেশ। লেখক: অভিবাসন কর্মসূচি প্রধান, ব্র্যাক

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়