শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৭ জুন, ২০২২, ০৩:২২ রাত
আপডেট : ২৭ জুন, ২০২২, ০৩:২২ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

দেশকে চিকিৎসা খাতে আত্মর্নিরশীল করতে পারছেন না কেন?

মুশফিক ওয়াদুদ

মুশফিক ওয়াদুদ: বাংলাদেশে সবচেয়ে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী যাদের ভাবা হয় তাঁরা মেডিকেলে পড়তে যান। শিক্ষায় জনগণের সবচেয়ে বেশি করের টাকাও মেডিকেল শিক্ষার্থীদের জন্য ব্যয় হয়। চিকিৎসক রা দেশে অস্বাভাবিক সম্মানও পেয়ে থাকেন। তাঁদের স্যার/ম্যাডাম না ডাকলে রাগ হন অনেক সময়। আমি ৭৫ বৃদ্ধ মানুষদের ৩০/৩৫ বয়সের চিকিৎসকদের স্যার ডাকতে দেখেছি। এতকিছুর পরও চিকিৎসা খাত দেশের সবচেয়ে পরর্নিরশীল খাত। জ্বালানি তেল  ছাড়া এমন পরর্নিরশীল খাত সম্ভবত আর একটিও নেই দেশে। এবং দিনে দিনে এ পরর্নিরশীলতা বাড়ছেই।

দেশে মোটামুটি মধ্যবিত্ত কেউ দেশে চিকিৎসা করেন না। ভারত অথবা থাইল্যান্ডে চলে যান। উচ্চবিত্তরা সামান্য অসুস্থতায়ও সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নেন। দেশের চিকিৎসকরা বড় রোগের বলেছেন অথবা অপরারেশন করতে বলেছেন তারপর ভারতে গিয়ে সামান্য ওষুধেই সুস্থ হয়েছেন এমন ঘটনা প্রায় শোনা যায়। বিবিএসের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বাংলাদেশ থেকে বিদেশে যাওয়া র্পটকদের অধিকাংশই চিকিৎসা সংক্রান্ত পর্যটক। ২০১৮-২০১৯ সালে এ খাতে ৩৩ হাজার ৬ শত আশি কোটি টাকা খরচ হয়েছে। বর্তমানে তা বহু গুণে বৃদ্ধি পেয়েছে সন্দেহ নাই। প্রশ্ন হলো, দেশে সবচেয়ে মেধাবী যাদের ভাবা, দেশে যারা সবচেয়ে সম্মানিত তাঁরা দেশের এ বিপুল বৈদেশিক মূদ্রা বাঁচাতে সাহায্য করতে পারছেন না কেন? দেশকে চিকিৎসা খাতে আত্মর্নিরশীল করতে পারছেন না কেন? লেখক ও গবেষক

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়