শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৬ জুন, ২০২২, ০৩:২৪ দুপুর
আপডেট : ২৬ জুন, ২০২২, ০৩:২৪ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এভাবেই বিন্দু বিন্দু করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে 

রুমি আহমেদ: ছোটবেলায় ঢাকা থেকে দাদাবাড়ি মুন্সীগঞ্জ যেতে হতো লঞ্চে করে আর নানাবাড়ী চিটাগং যেতাম ট্রেইন বা বাসে করে । 
ঢাকা থেকে চিটাগং বাসে যাবার পথে তিনটা ফেরী পরতো - প্রথমে পড়তো শীতলক্ষ্যা ফেরী তারপর মেঘনা ফেরী তারপর দাউদকান্দি ফেরী! 
একদিন শীতলক্ষ্যার উপর কাঁচপুর ব্রিজ হয়ে গেলো - মনে আছে দেশবাসী আমরা সবাই খুব উৎফুল্ল হলাম - ঢাকা চিটাগং যাবার পথে একটি ফেরী কমলো! বাসে কাঁচপুর ব্রিজ এর উপর দিয়ে যাবার সময় আমরা বিপুল বিস্ময়ে অবলোকন  করতাম বিশাল উঁচু সুন্দর এই ব্রিজটাকে!
অনেক দিন মেঘনার উপর একটা এবং তারো কিছুদিন পর মেঘনার দ্বিতীয় ব্রিজটাও হয়ে গেলো! ঢাকা চিটাগং যোগাযোগে বিপ্লব হয়ে গেলো - চার পাঁচ ঘন্টায় চিটাগং পৌঁছে যাওয়া যাচ্ছে, পথে কোন ফেরী নাই! অকল্পনীয় একটা ব্যাপার!
ট্রেনে চিটাগং যাবার পথটা অনেক ঘোরানো পেঁচানো ছিল! প্রথমে উল্টোদিকে যেতে হতো দুতিন ঘন্টা - ঘোড়াশাল - আশুগঞ্জ ব্রিজ ক্রস করে তারপর আখাউড়া হয়ে চিটাগং এর দিকে যাত্রা! রেল লাইন এর অবস্থা এখনো এই অবস্থায়ই আছে - ঢাকার সাথে চিটাগং এর সরাসরি রেল যোগাযোগ নেই - হয়তো শীতলক্ষা আর মেঘনার উপর রেইল ব্রিজ না থাকার কারণে! 
আর মুন্সিগঞ্জে যাবার জন্য একদিন রাস্তা হয়ে গেলো - গাড়ি করে গিয়ে একটা ফেরী ক্রস করলেই দাদাবাড়ি! চোখের সামনেই সেই ফেরী পথের উপর একদিন ব্রিজ গড়ে উঠলো - মোক্তারপুর ব্রিজ! এখন বাসা থেকে গাড়ি চালিয়ে সরাসরি দাদাবাড়ীর আঙিনায় চলে যাওয়া যায়!
১৫ বিসিএস এ আমার প্রথম পোস্টিং হয়েছিল চাঁপাই নবাবগঞ্জের ভোলারহাট উপজেলায়! তখন ঢাকা থেকে দেশের উত্তর বঙ্গের যে কোন অঞ্চলে যেতে হলে যমুনা ফেরী পার হতে তিন চার ঘন্টার মতো লাগতো! একদিন বিশাল যমুনার উপর ও ব্রিজ হয়ে গেলো - ঢাকা থেকে রাজশাহী বগুড়া পাবনা রংপুর যাওয়া মাত্র ঘন্টা কয়েকের ব্যাপার হয়ে গেলো! 
পদ্মার দক্ষিণ অংশে কোন ব্রিজ না থাকার কারণে ঢাকার সাথে দেশের দক্ষিণ - দক্ষিণ পশ্চিম অংশের সরাসরি কোন সড়ক যোগাযোগ ছিল না! পদ্মা নদীর উপর নুতন ব্রিজটা আজ যে চালু হলো - ঢাকার সাথে এখন দক্ষিণ - পশ্চিম বঙ্গের যোগাযোগটা অনেক সহজ হয়ে গেলো!
এখন দরকার চাঁদপুর  এর ঠিক নিচদিয়ে মেঘনার উপর দিয়ে আরেকটি ব্রিজ! এই ব্রিজটা দেশের দক্ষিণ পূর্ব অংশের সাথে দেশের দক্ষিণ পশ্চিম অংশের সড়ক যোগাযোগ করিয়ে দেবে! গোপালগঞ্জ থেকে গাড়ি চালিয়ে একঘন্টার মধ্যে ফেনী গিয়ে চা সিঙ্গারা খাওয়া যাবে! খুলনা থেকে চট্টগ্রাম হবে তিন ঘন্টার ড্রাইভ! 
আর দরকার ঢাকা চিটাগং রেল যোগাযোগ এর উন্নয়ন - যাতে তিনঘন্টা উল্টোপথে চলতে না হয় ঢাকা থেকে ট্রেইনে চিটাগং যেতে হলে!
এভাবেই বিন্দু বিন্দু করে - ব্রিজ ব্রিজ করেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে!

ডা. রুমি আহমেদ খান: অরল্যান্ডো হেলথ, অরল্যান্ডোর-এর ইন্টারনাল মেডিসিন, বক্ষব্যাধি, ক্রিটিকাল কেয়ার ও নিউরোক্রিটিকাল কেয়ার বিশেষজ্ঞ, সহযোগী অধ্যাপক 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়