শিরোনাম
◈ তৃণমূলের কর্মসূচি সফলে বিএনপির ১০ টিম গঠন ◈ গার্ডার দুর্ঘটনায় দোষীদের শাস্তিমূলক ব্যবস্থায় আপত্তি করবেনা চীন ◈ নারীর পোশাক ‘উস্কানিমূলক’! যৌন নিগ্রহের অভিযুক্তকে জামিন দিয়ে বিতর্কে ভারতের আদালত ◈ পাকিস্তান-আফগানিস্তান অঞ্চলে সেনা মোতায়েন করতে চায় চীন ◈ রোহিঙ্গাদের ফ্ল্যাট দেওয়ার কথা বলেও পিছু হঠলো দিল্লি ◈ একযোগে ১৪৬ কনস্টেবলকে ঢাকায় বদলি ◈ জিয়া জড়িত না থাকলে খুনীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সাহস পেত না: কাদের ◈ ইসরাইলের সঙ্গে পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্কে ফিরে গেল তুরস্ক ◈ ইউক্রেনে আটক পশ্চিমা অস্ত্রের প্রদর্শনী করল রাশিয়া ◈ গার্ডার পড়ার ঘটনার সময় ক্রেনটি চালাচ্ছিলেন চালকের সহকারী রাকিব: র‌্যাব

প্রকাশিত : ২৫ জুন, ২০২২, ০২:১৮ রাত
আপডেট : ২৫ জুন, ২০২২, ০২:১৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

‘কীতিনাশা পদ্মা’ এখন কীর্তিমান শেখ হাসিনার সাহসিকতায়

রবিউল আলম

রবিউল আলম: পদ্মা সেতু বাংলাদেশকে যুক্ত করেছে, যুক্ত করেছে বাঙালির মন, বিশ্বকে করেছে চমৎকৃত। কত খরচ, কত টোলের হিসেব মিলিয়ে হবে না পদ্মা সেতুর হিসাব। পদ্মা সেতু জাতির অহংকারের, মিলনের সেতুবন্ধনের। কত টাকা দিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের জবাব, বিশ্বকে বাংলাদেশ দিতে পারতেন? প্রশ্নটা নিন্দুকদের জন্য। আপনাদের হতাশা কারণ টাকা বেশি খরচ হয়েছে? নাকি পদ্মা সেতু শেখ হাসিনার শাসনামলে বানানোয় অখুশি আপনারা?  ভালো কাজের প্রশংসা করতে হয়, খারাপ কাজে সমালোচনা। জাতীয় কাজের উপদেশের জন্য বিরোধী দলকে ছায়া সরকার বলা হয়। সরকারের সফলতা ও ব্যর্থতার দায় নিতে হবে বিরোধী দলকেও। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে আপনারা সেই সুযোগটাও নিতে পারছেন না। সকালে বলেন, পদ্মা সেতু হাসিনা বানাইতে পারবো না। জোরাতালির সেতুতে কেউ উঠবেন না। 

পদ্মা সেতুর সফলতা বাঙালি জাতির অহংকারে পরিণত হয়েছে। বিশ্ব রাজনীতির আলোচনায় এসেছে। আলোচিত হয়েছে বাংলাদেশ। সঠিক পরিকল্পনার জন্য শেখ হাসিনা আলোচনার বিষয়বস্তু। সম্মানের অংশীদার আপনারা ইচ্ছে করলে হতে পারতেন। গ্রহণ না করে প্রশ্ন জুড়ে দিলেন বাপের টাকায় সেতু হয় নাই। বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের টাকায় সেতু হলে, আমার সন্তান কেন বলতে পারবে না? আমার বাপের টাকায় পদ্মা  সেতু। আপনাদের বাপ বিশ্ব ব্যাংকের টাকা নয়। আপনারা মিথ্যে অহংকারে পদ্মা সেতুর জন্য টাকা বন্ধ করেছেন। জাতি আপনাদের মীরজাফর হিসেবে চিহ্নিত করেছে, বিশ্বব্যাংকটাকেই বাপের মনে করার জন্যে। জাতির কাছে, দেশের কাছে আপনাদের দায়বদ্ধতা কোথায়? রাজনীতিকে রঙ্গমঞ্চ মনে করেই হাওয়া ভবন, খৈয়াম ভবন গড়ে তুলেছিলেন, জনগণের অবরোধে তারেক-কোকোর ক্রিকেট খেলা দেশের মানুষ দেখেছে মির্জা ফকরুল। এখন লন্ডন থেকে চাবি দিলে পুতলের মতো ঘুরেন। ব্যক্তিত্ব, নেতৃত্ব বলে কি কিছু আছে এখন আপনাদের?

বাংলাদেশের একজন পাগলেও পদ্মা সেতুর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। আপনারাও অনুভব করেন। অস্বীকারের নাটক করছেন কেন? কেন জনবিছিন্ন হচ্ছেন? শেখ হাসিনার কাছ থেকে কিছুই শিখতে পারলেন না। একসময় বিসমিল্লাহ আপনাদের সম্পত্তি ছিলো! শেখ হাসিনার একটি আদেশে বিসমিল্লাহ রাজনীতি শেষ। পদ্মা সেতুর রাজনীতি শেষ করতে চাইলে, পদ্মা সেতুকে গ্রহণ করতে হবে। সত্যকে সত্য বলতে হবে, বিরোধিতা করে জন বিছিন্ন হওয়ার চাইতে। বিশ্ব রাজনীতির ও পদ্মা সেতুর ডেউয়ের সাথে শেখ হাসিনার বিচক্ষণতার প্রমাণ বহন করছে। যুক্তি ছাড়া কথা বললে জাতির কাছে থেকে দৌড়ানি খাইতে পারেন। ওবায়দুল কাদেরের আমন্ত্রণ রক্ষা করে নিজেদের রক্ষা করতে পারেন।  লেখক: মহাসচিব, বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি

  • সর্বশেষ