শিরোনাম

প্রকাশিত : ১৬ মে, ২০২২, ১১:২৫ রাত
আপডেট : ১৬ মে, ২০২২, ১১:২৫ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

রপ্তানির সুযোগ রেখে নিরাপদ খাদ্য আইন সংশোধন প্রস্তাব

খাদ্য আইন সংশোধন প্রস্তাব

আনিস তপন: [২] প্রস্তাবিত খসড়ায় খাদ্য-পণ্য রপ্তানির সুযোগ দিয়ে বিদ্যমান নিরাপদ খাদ্য আইন সংশোধন করছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

[৩] বিদ্যমান আইনে মানুষের জীবন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিরাপদ খাদ্য প্রাওয়ার অধিকার নিশ্চিত করতে উৎপাদন, আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ, বিপণন, বিক্রয় সংশ্লিষ্ট কার্যাবলীর বিধান রয়েছে। কিন্তু খাদ্য-পণ্য রপ্তানির বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত নেই। তাই প্রস্তাবিত আইনে খাদ্য-পণ্য রপ্তানির সুযোগ রাখা হয়েছে। এতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে উল্লেখযোগ্য হারে বিদেশে খাদ্যপণ্য রপ্তানি করা সম্ভব হবে, এমনটা জানানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে এ তথ্য।

[৪] এছাড়াও প্রস্তাবিত আইনে বেশ কিছু ক্ষেত্রে দণ্ডের পরিমান কয়েকগুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। খসড়াতে মানুষের জীবন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে এবং ব্যাপকভাবে আইন কার্যকরে পুনরায় একই অপরাধ সংগঠনের জন্য আরোপযোগ্য দণ্ডের সর্বনিম্ন স্তর বিলুপ্ত র্ক হয়েছে।

[৫] আইনে মানবস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর অথবা বিষক্রিয়া সৃষ্টির জন্য দায়ী খাদ্যোপকরণ ব্যবহার বা অন্তর্ভূক্তি বা মিশ্রিত খাদ্যদ্রব্য মজুত, বিপনন বা বিক্রয়ে একই ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রথমবার অপরাধ সংগঠনের জন্য অনূর্ধ্ব পাঁচ বছর কারাদণ্ড বা অনূর্ধ্ব দশ লক্ষ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। পুনরায় একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে পাঁচ বছর কারাদণ্ড বা ২০ লাখ টাকা জরিমান বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এক্ষেত্রে জরিমানার পরিমান দ্বিগুন করার প্রস্তাব দেয় হয়েছে।

[৬] খাদ্যে নির্ধারিত মাত্রার অতিরিক্ত তেজস্ক্রিয় সম্পন্ন বা বিকিরণযুক্ত পদার্থ অথবা প্রাকৃতিক বা অন্য কোনভাবে থাকা সমজাতীয় পদার্র্থ বা ভারী-ধাতু ব্যবহার বা অন্তর্ভূক্ত থাকলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব চার বছর কারাদণ্ড বা অনূর্ধ্ব আট লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে চার বছর কারাদণ্ড বা ১৬ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[৭] ভেজাল খাদ্য বা খাদ্যোপকরণ উৎপাদন, আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ বা বিক্রয়ে প্রথমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[৮] নিম্নমানের খাদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণ উৎপাদন, আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ বা বিক্রয়ে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[৯] নির্ধারিত মাত্রার অতিরিক্ত পরিমান খাদ্য সংযোজন-দ্রব্য বা প্রক্রিয়াকরণ-সহায়ক দ্রব্য কোন খাদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণে ব্যবহার বা অন্তর্ভূক্ত করে প্রস্তুত করা খাদ্যদ্রব্য আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ বা বিক্রয়ে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১০] খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল মেশানোর উদ্দেশ্যে শিল্প কারখানায় ব্যবহৃত তেল, বর্জ্য বা কোন ভেজালকারী দ্রব্য খাদ্য স্থাপনায় রাখা বা এজন্য অনুমতি দিলে প্রথমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১১] মেয়দোত্তীর্ণ খাদ্যদ্রব্য বা খদ্যোপকরণ আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ বা বিক্রিতে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১২] নির্ধারিত মাত্রার বেশি কীটনাশক বা বালাইনাশকের অবশিষ্টাংশ পশু বা মৎস্য-রোগের ওষুধ, হরমোন এ্যান্টিবায়োটিক বা বৃদ্ধি, দ্রাবকের অবশিষ্ট অংশ, ওষুধের সক্রিয় পদার্থ, অণুজীব বা পরজীবী খদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণ ব্যবহার বা মেশানো খাদ্য মজুদ, বিপণন বা বিক্রিতে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৩] নির্ধারিত পদ্ধতির বাইরে বংশগত বৈশিষ্ট পরিবর্তন বা সংশোধন, জৈব্য-খাদ্য, বিশেষ পথ্য হিসেবে ব্যবহৃত খাদ্য, নিউট্রাসিউটিক্যালসহ এমন খাদ্য উপাদান আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ বা বিক্রিতে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৪] নির্ধারিত পদ্ধতির বাইরে মোড়ক দেয়া, চিহ্নিত করা ও লেবেল লাগিয়ে প্যাকেটজাত খাদ্যদ্রব্য বিতরণ ও বিক্রিতে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব দুই বছর কারাদণ্ড বা অনধিক চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে দুই বছর কারাদণ্ড বা আট লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৫] খাদ্যের গুরুত্ব বাড়াতে পরিমান ও পুষ্টিগুণের বিষয়ে মিথ্যা তথ্য বা দাবি বা অপ-কৌশল অথবা বিভ্রান্তিকর তথ্য বা রোগ নিরাময়কারী বা উৎস্য স্থল সম্পর্কে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার বা লিখলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব দুই বছর কারাদণ্ড বা অনধিক চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে দুই বছর কারাদণ্ড বা আট লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৬] নির্ধারিত পদ্ধতির বাইরে মোড়কে উৎপাদন, মোড়কীকরণ ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ স্পষ্টভাবে লিখা না থাকলে সেই মোড়কজাত পণ্য বা খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, বিতরণ বা বিক্রতে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব দুই বছর কারাদণ্ড বা অনধিক চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে দুই বছর কারাদণ্ড বা আট লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৭] প্যাকেটজাত খাদ্যের মোড়কে লিখা তথ্য পরিবর্তন বা মুছে ফেলে বিক্রি করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব দুই বছর কারাদণ্ড বা অনধিক চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে দুই বছর কারাদণ্ড বা আট লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৮] স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ সংরক্ষণ বা প্রক্রিয়া অনুসরণের মানদণ্ড ও শর্ত ভঙ্গ করে মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর প্রক্রিয়ায় প্রস্তুত করা খাদ্য উৎপাদন, আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ বা বিক্রি করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[১৯] রোগাক্রান্ত বা পচা মাছ, রোগাক্রান্ত বা মৃত পশু-পাখির মাংস, দুধ বা ডিম দিয়ে তৈরী খাদ্য প্রস্তুত, সংরক্ষণ বা বিক্রি করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[২০] হোটেল, রেস্তোরায় নির্ধারিত মানদণ্ডের অনুসরণ না করে দায়িত্বহীন আচরণ, অবহেলা বা অসতর্কতার কারণে মানব স্বাস্থ্যহানি ঘটালে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[২১] ছোঁয়াচে রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি দিয়ে খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুত, পরিবেশন বা বিক্রি করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব দুই বছর কারাদণ্ড বা অনধিক চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে দুই বছর কারাদণ্ড বা আট লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[২২] নকল খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, আমদানি, মজুদ, সরবরাহ বা বিক্রি করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব তিন বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ছয় লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে তিন বছর কারাদণ্ড বা ১২ লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[২৩] বিজ্ঞাপনের শর্ত ভঙ্গ করে খাদ্যপণ্য বিপণনের লক্ষ্যে বিজ্ঞাপনে বিভ্রান্তিকর বা অসত্য তথ্য প্রচার করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব এক বছর কারাদণ্ড বা অনধিক দুই লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে এক বছর কারাদণ্ড বা চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

[২৪] খাদ্যদ্রব্যে গুণ, প্রকৃতি, মান ইত্যাদি সম্পর্কে অসত্য তথ্য দিয়ে বিজ্ঞাপন প্রচার করলে প্রমবার অপরাধের জন্য অনূর্ধ্ব এক বছর কারাদণ্ড বা অনধিক দুই লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার একই অপরাধের জন্য চূড়ান্তভাবে এক বছর কারাদণ্ড বা চার লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের প্রস্তাব দিয়ে বিদ্যমান আইন সংশোধন করছে সরকার।

[২৫] এছাড়াও বিদ্যমান আইনে মানুষের জীবন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করতে খাদ্য উৎপাদন, আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ, সরবরাহ, বিপণন, বিক্রয় সংশ্লিষ্ট কার্যাবলী থাকলেও রপ্তানির বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত নেই। প্রস্তাবিত আইনে রপ্তানির বিষয়টি সংযোজন করে রপ্তানি করা খাদ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে উল্লেখযোগ্য হারে বিদেশে খাদ্যপণ্য রপ্তানি বৃদ্ধির সুযোগ রাখা হয়েছে।

 

 

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়