শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৫:৫১ বিকাল
আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৫:৫১ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পরিবেশবান্ধব শিল্পায়নের অগ্রগতি জানালেন এফবিসিসিআই সভাপতি

মনজুর এ আজিজ: পরিবেশবান্ধব শিল্পায়নে সরকারের সঙ্গে বেসরকারি খাত কাজ করছে বলে জানিয়েছেন এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। সোমবার লন্ডনে কমনওয়েলথ বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্মেলনে শূন্য কার্বন নির্গমনের জন্য মান ও নিয়মকানুনের ভূমিকা নিয়ে এক গোলটেবিল আলোচনায় এমন মত দেন তিনি। মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে এফবিসিসিআই।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, বিশ্বের সর্বনিম্ন কার্বন নির্গমনকারী দেশ হওয়া সত্ত্বেও বৈশ্বিক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ ৮৯ দশমিক ৪৭ মিলিয়ন টন কমাতে বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ, পরিবহন, শিল্প, গৃহস্থালি, বাণিজ্যিক, কৃষি, ইটভাটা ও জ্বালানি খাত থেকে ৯৬ দশমিক ১ শতাংশ নির্গমন কমাবে। অবশিষ্ট ৩ দশমিক ৯ শতাংশ কৃষি ও পশুসম্পদ, বনায়ন এবং নগরের কঠিন বর্জ্য থেকে কমানো হবে। তিনি বলেন, পরিবেশবান্ধব মান বজায় রাখতে বাংলাদেশের শিল্পকারখানাগুলো উদ্ভাবনমূলক কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

তিনি জানান, কার্বন নিঃসরণ শূন্যে নামিয়ে আনতে এবং জলবায়ু বিপর্যয় এড়াতে ২০৫০ সালের মধ্যে প্রায় ৫০ ট্রিলিয়ন ডলারের ক্রমবর্ধমান বিনিয়োগ প্রয়োজন। জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত জাতিসংঘের ২৭তম সম্মেলনে অর্থায়নের ওপর বাংলাদেশ জোর দিয়েছে উল্লেখ করে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, সবুজায়ন ও বৈশ্বিক জলবায়ু অর্থায়নে বহুপক্ষীয় তহবিল গঠন ভালো বিকল্প হতে পারে।

ইস্ট অ্যান্ড কমিউনিটি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ব্রোনেক মাসোজ্যাডারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ইউকে অ্যাক্রেডিটেশন সার্ভিসের চেয়ারম্যান লর্ড লিন্ডসে, ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড ইনস্টিটিউশনের সিইও সুজান টেইলর মার্টিন, ইনস্টিটিউট অব এক্সপোর্ট অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল ট্রেডের মহাপরিচালক মার্কো ফরজিওন, এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, পরিচালক মো. জামাল উদ্দিন, মোহাম্মদ বজলুর রহমান, আবু হোসেন ভুঁইয়া (রানু)-সহ বাংলাদেশের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

এমএ/এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়