শিরোনাম
◈ প্রাইভেটকারের ওপর গার্ডার: ক্রেনের চালক ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা ◈ গার্ডার চাপায় নিহতদের ময়নাতদন্ত হবে সোহরাওয়ার্দীর মর্গে ◈ উত্তরায় দুর্ঘটনা: শিশু জাকারিয়া জীবিত ছিল আধাঘণ্টা ◈ পুলিশের উদ্দেশ্যই ছিল ছাত্রলীগের ছেলেদের মারবে: এমপি শম্ভু ◈ রাজধানীতে ক্রেন থেকে রড পড়ে ৫ পথচারী আহত ◈ চকবাজার ও উত্তরার ঘটনায় শোক জানিয়ে তদন্তের দাবি ফখরুলের ◈ মানবাধিকারকর্মীদের কথা শুনলেন জাতিসংঘের মিশেল ব্যাচেলেট ◈ উত্তরায় ক্রেন দুর্ঘটনা: বেঁচে রইলেন শুধু নবদম্পতি ◈ খায়রুনকে লাথি মেরে সেই রাতে বাইরে যান স্বামী ◈ উত্তরায় প্রাইভেট কারের উপর ফ্লাইওভারের গার্ডার, নিহত ৫ (ভিডিও)

প্রকাশিত : ০৪ আগস্ট, ২০২২, ০১:০৫ দুপুর
আপডেট : ০৪ আগস্ট, ২০২২, ০১:১০ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

সৌন্দর্য্য ছড়াচ্ছে বর্ণিল পদ্মফুল

পদ্ম ফুল

সোহাগ হাসান, সিরাজগঞ্জ: সৌন্দর্য্য ছড়াচ্ছে বর্ণিল পদ্ম ফুল। পদ্ম ফুলে ভরে গেছে সোনাকান্ত বিল। সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার হাটিকুমরুল ইউনিয়নের আমডাঙ্গা এলাকায় সোনাকান্ত বিলের এমন অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে দূর-দূরান্ত থেকে আসছেন প্রকৃতি প্রেমীরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিলের চারপাশে পদ্ম ফুলে ফুলে ভরে গেছে। যত দূর চোখ যায়-শুধু গোলাপি রঙের আভা। দিনের আলোর স্পর্শে এ রঙ যেন আরও ঝলমলে হয়ে ওঠে। পদ্মের এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে এলাকার বিভিন্ন বয়সী মানুষ আসছেন বিলে। চোখ ভরে দেখছেন, স্মৃতি রাখতে ছবিও তুলছেন। তবে বিলে যাতায়াতে নৌকা এবং রাস্তার না থাকায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বলে কয়েকজন দর্শনার্থীরা জানান।

স্থানীয়রা জানান, তাদের কাছে এটি ‘সোনাকান্ত বিল নামেই পরিচিত। গত ২ বছর ধরে বর্ষাকালে এ বিলে গোলাপি রঙের অসংখ্য পদ্ম ফুল ফোটে। এমনিতে পদ্ম ফুল সারা বছর থাকে না। বর্ষা কালেই শুধু দেখা যায়। তবে গত দুই বছর ধরে প্রকৃতি প্রেমীদের কাছে এটি ‘আমডাঙ্গার পদ্মবিলথ নামে পরিচিত হয়ে উঠেছে।

স্থানীয় বেলাল হোসেন,সিদ্দিক শেখ,নাজমুল হক বলেন, বিলে ফুটে থাকা পদ্ম ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে এখানে এসেছি; খুবই ভালো লাগছে। এই বিলে প্রবেশের জন্য নৌকার ব্যবস্থা এবং রাস্তা নেই। তবে নৌকা থাকলে দর্শনার্থীরা ফুলের কাছে গিয়ে সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারতো। “পাশাপাশি স্থানীয়রাও নৌকা চালিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারতো। এখন লোকজন হেঁটেই বিলে গিয়ে ফুলের সৌন্দর্য দেখে ফিরে আসছে। এতে কিছুটা ভোগান্তি হচ্ছে।” পদ্ম ফুল ফোটার সময়ে বিলটা সংরক্ষক করা গেলে দর্শনার্থীরা আরও বেশি উপভোগ করতে পারতেন বলে মনে। গত কয়েক বছর আগে এই বিলে পদ্ম ফুল দেখার পর থেকে তিনি প্রতি বছর বর্ষার সময় সোনাকান্ত বিলে আসার চেষ্টা করি।

পাচঁলিয়া গ্রামের রশিদ মিয়া বলেন, “আমি গত ২ বছর হলো এই বিলে পদ্ম ফুটতে দেখছি। এটাকে অনেকে সোনাকান্ত বিল বলে, আমরা বলি ‘পদ্ম বিলথ। এখানে প্রকৃতিপ্রেমী অনেক লোকজন বেড়াতে আসে, ছবি তোলে।” অনেকে আবার পদ্ম ফুল ছিড়ে নষ্ট করে ফেলে জানিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন একই এলাকার নাসিম আহমেদ। তিনি বলেন, “পদ্মফুলের কাছে যাওয়া মাত্রই স্থানীয়রা ফুল না ছেঁড়ার জন্য অনুরোধ করেন। কিন্তু যখন কেউ থাকে না, তখন দর্শনার্থীদের অনেকে যে যার মত ফুল ছিড়ে নষ্ট করে ফেলে। এ বিষয়টা খুবই খারাপ লাগে।
“একটা সময় আমাদের দেশে অনেক পদ্ম দেখা যেতো। কিন্তু বর্তমান সময় বিল জলাশয় ভরাট করে ফেলার কারণে পদ্ম ফুল বিলুপ্তির পথে চলে যাচ্ছে। পদ্মফুলের অনেক ওষুধীগুণও রয়েছে।”

এ বিষয়ে উল্লাপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সূবর্ণা ইয়াসমিন বলেন, প্রতিবছর বর্ষায় বিভিন্ন বিলে পদ্ম ফুলের দেখা মেলে। এই পদ্মফুলে ঔষধের গুণাগুণ রয়েছে। কৃষি জমিতে কীটনাশক ব্যবহার কমে যাওয়াতে বিলে শাপলা, পদ্ম ফুলের দেখা যাচ্ছে। সম্পাদনা: হ্যাপী

  • সর্বশেষ