শিরোনাম

প্রকাশিত : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৯:২৯ সকাল
আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০২:০৭ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

জবাব দিল শ্রীনগর পুলিশ

কাশ্মীরে সিনেমা হল খোলায় ওয়াইসির প্রশ্ন- জামিয়া মসজিদ বন্ধ কেন?

রাশিদুল ইসলাম: জম্মু-কাশ্মীরে কয়েক দশক পর প্রথমবারের মতো সিনেমা হল খোলায় মজলিশ-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি সেখানকার বিখ্যাত জামিয়া মসজিদ বন্ধ কেন বলে প্রশ্ন তুলেছিলেন। শ্রীনগর পুলিশের পক্ষ থেকে এর জবাবে মসজিদ সম্পূর্ণ খোলা বলে জানানো হয়েছে। পারসটুডে

১৯৯০ সালের পর তখন কাশ্মীরের বিরাজমান পরিস্থিতির কারণে সব সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যায়। জম্মু-কাশ্মীরের জনগণের জন্য পরিস্থিতি সবসময় ভালো ছিল না। কখনো ইন্টারনেটে নিষেধাজ্ঞা, আবার কখনো কারফিউতে মানুষ সমস্যায় পড়েছে। এ সবের মধ্যে কাশ্মীরে বহুবছর পর এবার সিনেমা হল খুলে দেওয়া হল।

সম্প্রতি পুলওয়ামা এবং সোপিয়ানে দু’টি সিনেমা হলের উদ্বোধন করেছেন জম্মু-কাশ্মীরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিনহা। যা নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন ‘মিম’ প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি। তিনি মন্তব্য করেছিলেন, কেন শ্রীনগরের জামিয়া মসজিদ বন্ধ রাখা হয়েছে? সেই প্রশ্নের জবাবে এবার শ্রীনগর পুলিশ তার দাবি প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, জামিয়া মসজিদ সম্পূর্ণ খোলা আছে।

আসলে, ‘মিম’প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি জম্মু-কাশ্মীরে সিনেমা হল খোলার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করেছিলেন। ওয়াইসি লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিংহের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করেছিলেন, সোপিয়ান এবং পুলওয়ামাতে সিনেমা হল খোলা হয়েছে, কিন্তু প্রতি শুক্রবার শ্রীনগর জামিয়া মসজিদ কেন বন্ধ থাকে? 

ওয়াইসির ওই বক্তব্য বেশ ভাইরাল হয় এবং এ নিয়ে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের বিরুদ্ধে  প্রশ্নও ওঠে। এর কিছুক্ষণ পরেই শ্রীনগর পুলিশের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক বার্তায় বলা হয়, জামিয়া মসজিদ সম্পূর্ণ খোলা। আইন-শৃঙ্খলা, সন্ত্রাসী হামলার হুমকির কারণে এবং করোনা পরিস্থিতির পর এটি মাত্র তিনটি সময়ে সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছিল। এ সময়ে জুমার নামাজে নিষেধাজ্ঞা ছিল। জামিয়ার কর্মকর্তারা ভিতরের ঘটনার দায় নিতে অস্বীকার করার পরে ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। দূরে থাকা অজ্ঞতার জন্য অজুহাত নয়।  

প্রসঙ্গত, ১৯৯০ সালের পর প্রথমবারের মতো, জম্মু-কাশ্মীরে সিনেমা হল খোলা হচ্ছে। সে সময়ে কাশ্মীরে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সব সিনেমা হল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এরপর চেষ্টা করা হলেও সন্ত্রাসী ঘটনার কারণে সিনেমা হলগুলো চালু করা যায়নি। এ কারণে গত কয়েক দশক ধরে সিনেমা হলগুলো সম্পূর্ণ বন্ধ ছিল। বর্তমানে  কাশ্মীরে গেরিলাদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীর আগ্রাসী অভিযান চলছে, সেজন্য  প্রশাসনের পক্ষ থেকে নতুন করে সিনেমা হল খোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়