শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৭ জুলাই, ২০২২, ০৮:০২ রাত
আপডেট : ০৭ জুলাই, ২০২২, ০৮:০২ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

করোনা থেকে রক্ষা পেতে মাস্ক পড়তে হবে পরিবারের সবাইকে

করোনায় মাস্ক পরিধান

শাহীন খন্দকার: রাজধানীর ধানমন্ডি সোবহানবাগের সানিয়া গৃহবধু আফরোজ শাপলা গত এক সপ্তাহ ধরে ভুগছেন ঠান্ডাজ্বরে। এরই মধ্যে তার মেয়ে কলেজ শিক্ষার্থী দ্বিতীয়ারও দেখা দিয়েছে সর্দি-জ্বর। গত কয়েকদিন তারা জ্বর, সর্দি, মাথা ব্যথায় ভুগছেন। মৌসুমি এই ঠান্ডা-জ্বর, সর্দি-কাশি চলছে সারা দেশেই।

এ প্রসঙ্গে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ)-এর সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সেনাল বলেন, সর্দি-জ্বর থেকে রেহাই পেতে সর্তকতা ছাড়া উপায় নেই। দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আবারও বাড়ছে। কারণ আমরা সর্তক না, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছি না। করোনা থেকে রক্ষা পেতে পরিবারের সবাইকে এখন স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে, পড়তে হবে মাস্ক।

ডা. ইকবাল আর্সেনাল আরো বলেন, আমরা সর্দিজ্বরে আক্রান্ত হচ্ছি, অথচ পরীক্ষা করাচ্ছিনা। তবে সর্দিজ্বরে আক্রান্ত হলেই করোনা পরীক্ষা করা উচিত। কেননা সন্দেহজনকভাবে যারাই করোনা পরীক্ষা করাচ্ছেন, তাদেরই করোনা পজেটিভ দেখা যাচ্ছে।

তবে ডা. ইকবাল আর্সেনাল বলেন, সংক্রমণের হার বাড়লেও আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সবাইকে হাত ধোয়ার অভ্যাস করতে হবে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। তা ছাড়া করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা পেতে সবাইকে অবশ্যই দ্রুত টিকা নিতে হবে। 

তিনি বলেন, হঠাৎ করোনা সংক্রমণ বাড়ার জন্য ওমিক্রনের দুটি সাব-ভ্যারিয়েন্টকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা।

শ্যামলী ২৫০ শয্যা টিবি ও অ্যাজমা হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা. আয়শা আক্তার বলেন, করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় চাপ পড়ছে নমুনা পরীক্ষায়। যারা আসছেন, তাদের প্রায় সবারই করোনাভাইরাসের মৃদু উপসর্গ রয়েছে। সম্পাদনা: মাজহারুল ইসলাম 

  • সর্বশেষ