শিরোনাম
◈ সিরিজ বোমা হামলার ১৭ বছর পূর্তিতে সারা দেশে আওয়ামী লীগ বিক্ষোভ করবে ◈ ১৭ বছরেও সিরিজ বোমা হামলার বিচার শেষ হয়নি ◈ কর্তৃপক্ষের আশ্বাস পেয়ে আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন খুবি শিক্ষার্থীরা ◈ নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ড পুনর্গঠন ◈ কুয়াকাটায় অনির্দিষ্টকালের জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ ঘোষণা ◈ ছাত্রদের মারধর করায় ট্রেন অবরোধ, দুই সহকারী চেকার সাসপেন্ড ◈ দেশের মানুষ এখন অনেক শান্তিতে আছে : সমাজকল্যাণমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীনতা পেতাম না: রণজিৎ কুমার রায় এমপি ◈ উত্তরায় গার্ডার পড়ে নিহত ৪ জনের দাফন জামালপুরে সম্পন্ন ◈ দিরাইয়ে বসতঘর থেকে যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত : ০৭ জুলাই, ২০২২, ০৬:১৮ বিকাল
আপডেট : ০৭ জুলাই, ২০২২, ০৭:১৯ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বিএসএমএমইউ’র ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের প্রথম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উদযাপিত

বিএসএমএমইউ

শাহীন খন্দকার: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ডা. মিলন হলে সাড়ম্বরে উদযাপিত হলো ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের প্রথম প্রতিষ্ঠা বাষির্কী। এই উপলক্ষে আয়োজিত ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শরফুদ্দিন আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের কেন্দ্রীয় মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম. এ.আজিজ আর এতে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এসোসিয়েশন ফর দ্যা স্টাডি অব লিভার ডিজিজেজ বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. সেলিমুর রহমান। সন্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মোঃ জাহিদ হোসেন এবং উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) অধ্যাপক ডা. একেএম মোশাররফ হোসেন। হেপাটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আইয়ুব আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা ডিভিশন প্রধান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল)।

দিবসটি উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ দেশ-বিদেশের প্রথিতযষা লিভার বিশেষজ্ঞরা বাণী প্রদান করেছেন, যাদের মধ্যে আছেন ইউরেশিয়ান গ্যাস্ট্রোএন্টারলজিকাল এসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ডা. হাসান ওজকান, সাউথ এশিয়ান এসোসিয়েশন ফর দ্যা স্টাডি অব দ্যা লিভারের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এস পি সিং, এসোসিয়েশন ফর দ্যা স্টাডি অব লিভার ডিজিজেজ বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. সেলিমুর রহমান, ইউরেশিয়ান জার্নাল অব হেপাটোগ্যাস্ট্রোএন্টারলজির এডিটর ইন চিফ ডা. শেখ মোহাম্মদ ফজলে আকবর, কিউবার সেন্টার ফর জেনেটিং ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজির ডাইরেক্টর ডা. হেরারডো গুলিয়েন প্রমুখ। 

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার বানীতে ন্যাসভ্যাক নামক হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের নতুন ওষুধটি সহ উদ্ধাবনের জন্য দেশীয় লিভার বিশেষজ্ঞদের প্রশংসা করেন। তিনি ডিভিশনটিতে স্টেম সেল থেরাপী, টেইস ইত্যাদি আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি প্রচলনের জন্য তার সন্তুোষ প্রকাশ করেন এবং এসস্ত বিষয়ে তার সহযোগীতার আশ্বাস দেন।  

অধ্যাপক ডা. স্বপ্নীল তার স্বাগত বক্তব্যে ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের কার্যক্রম এবং লিভার চিকিৎসার আধুনিকতম পদ্ধতিগুলোয় দেশীয় লিভার বিশেষজ্ঞদের প্রশিক্ষিত করে তোলা ও পাশাপাশি ঢাকার গন্ডির বাইরে এই চিকিৎসা সেবা উপলব্ধ করার জন্য ডিভিশনটির উদ্যোগগুলোর উপর আলোকপাত করেন। 

বিশেষ অতিথির বক্তেব্যে সচিবের মহাসচিব অধ্যাপক এম. এ. আজিজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও মাননীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রীর সুযোগ্য পরিচালনায় দেশের স্বাস্থ্যখাতের একের পর এক সাফল্যের কথা তুলে ধরেন। তিনি বাংলাদেশে ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজির প্রচলন ও প্রসারে অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীলের ভূমিকার ভুয়সী প্রশংসা করেন। 

প্রধান অতিথি অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ এই ডিভিশনটির কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন এবং এটিকে অন্যান্য সব ডিভিশন এবং ডিপাটমেন্টের জন্য উদাহরনস্বরূপ হিসেবে উল্লেখ করেন। প্রধান অতিথিসহ অনুষ্ঠানে অন্যান্য সকল বক্তার বক্তেব্যেই অধ্যাপক ডা. স্বপ্নীলের প্রশংসা ছিল।    

উৎসবের দ্বিতীয়ার্ধে ছিল লাইভ কেইস ডেমোন্সট্রেশন। এতে এন্ডোস্কপি স্যুইট থেকে এন্ডোস্কপিক রেট্রোগ্রেড কোলাঞ্জিও প্যানক্রিয়েটোগ্রাফি (ই.আর.সি.পি) ও উইথ স্পাইগ্লাস কোলাঞ্জিওস্কোপি করেন অধ্যাপক ডা. স্বপ্নীল ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. এম এ রহিম। অন্যদিকে ক্যাথল্যাব থেকে ট্রান্স আর্টারিয়াল কেমো এম্বোলাইযেশন (টেইস) করেন সহযোগী অধ্যাপক শেখ মোহাম্মদ নুরে আলম, সহযোগী অধ্যাপক ফয়েজ আহমেদ খন্দকার এবং সহকারী অধ্যাপক আহমেদ লুৎফুল মবিন এবং এ্যানেসথেসিওলজিস্ট সহকারী অধ্যাপক একরামুল হক সজল।

উল্লেখ্য ডিভিশনটিতে মুজিব বর্ষ উদযাপনের আনুষ্ঠানিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে লিভার ফেইলিওর রোগীদের চিকিৎসায় ‘মুজিব প্রটোকল’ বা প্লাজমা একেচেঞ্জ চালু করা হয়েছিল। তাছাড়াও বাংলাদেশের লিভার বিশেষজ্ঞরা লিভার সিরোসিসের চিকিৎসায় এদেশে প্রথমবারেরমত অটোলোগাস হেমোপয়েটিক স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টেশন শুরু করেন। পাশাপাশি একিউট এবং একিউট অন ক্রনিক লিভার ফেইলিওরের চিকিৎসায় লিভার ডায়ালাইসিস এবং লিভার সিরোসিস রোগীদের জন্য হেপাটিক ভেনাস প্রেশার গ্রেডিয়েন্ট মেজারমেন্ট (এইচ.ভি.পি.জি) প্রথমবারেরমত শুরু করার কৃতিত্বও তাদেরই। এদেশে লিভার ক্যান্সারের রোগীদের জন্য বিশ্বের সর্বাধুনিক লোকোরিজিওনাল থেরাপী রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি এ্যাবলেশন এবং ট্রান্সআর্টারিয়াল কেমোএম্বোলাইজেশন আর নোবেল পুরস্কার বিজয়ী কনসেপ্ট ইমিউনথেরাপী প্রবর্তনের প্রতিকৃতও তারাই। বাংলাদেশের হেপাটোলজিষ্টরা হেপাটোলজি বিষয়ে কমপক্ষে ছয়টি টেক্সট ও রেফারেন্স বই সম্পাদনা করেছেন, যেগুলো এলসেভিয়ার, ম্যাকমিলান ও জেপির মতন আর্ন্তজাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মেডিকেল পাবলিশিং হাউজ থেকে প্রকাশিত হয়েছে। 

লিভার বিশেষজ্ঞদের এতসব অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের অনুমোদনক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনটি প্রতিষ্ঠিত হয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ ৭ জুলাই, ২০২১, এ সংক্রান্ত আদেশটি ডিভিশনটির প্রতিষ্ঠাতা ডিভিশন প্রধান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীলের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। 

পাশাপাশি ডিভিশনটি ঢাকার বাইরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে লিভার রোগের আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতিগুলো প্রবর্তনের কাজ করে যাচ্ছে। এরই মধ্যে ডিভিশনটির সহযোগিতায় সিলেটের একটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অটোলোগাস হেমোপয়েটিক স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টেশন ও ট্রান্সআর্টারিয়াল কেমোএম্বোলাইজেশন শুরু করা হয়েছে।

ডিভিশন প্রধান অধ্যাপক ডা. স্বপ্নীল জানান, “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনটি জাতির পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়। 

  • সর্বশেষ