শিরোনাম
◈ জি এম কাদেরের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনে বাধা নেই : হাইকোর্ট ◈ ১০ টাকায় টিকিট কেটে চক্ষু পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী ◈ বন্দি জঙ্গিরা যেন রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতা চালাতে না পারে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা থেকে দুর্নীতি নির্মূল করাই আমাদের লক্ষ্য: হাইকোর্ট ◈ মুজিব কোট পরলেই মুজিব সৈনিক হওয়া যায় না: কাদের ◈ ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন পরীমণি ◈ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগকারিদের জন্য বিশেষ সুযোগ  ◈ রংপুর সিটি নির্বাচনে মোস্তাফাকে লাঙ্গলের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা রওশনের ◈ পুলিশে ছেয়ে গেছে চীনের রাজপথ ◈ টাঙ্গাইলে বাসচাপায় দুই ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত

প্রকাশিত : ১৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৫:৪২ বিকাল
আপডেট : ১৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৫:৪২ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

জামায়াত নতুন নামে নিবন্ধন চাইলে পাঁচ কমিশনার বসে সিদ্ধান্ত নেব: ইসি রাশেদা 

এম এম লিংকন: জামায়াত সংশ্লিষ্টরা নতুন নামে নিবন্ধন চাইলে আইন অনুযায়ী খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে নির্বাচন কমিশনার (ইসি) রাশেদা সুলতানা বলেন, সেক্ষেত্রে পাচঁ কমিশনার বসেই নেয়া হবে সিদ্ধান্ত। বৃহস্পতিবার রাজধানীর নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি। 

এর আগে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সন্তানদের সংগঠন প্রজন্ম ৭১ বেলা ১১ টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বরাবর একটি স্মারকলিপি জমা দিয়ে জামায়াত সংশ্লিষ্ট কোনো দলকে নিবন্ধন না দেওয়ার দাবি জানায়।

এই প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ইসি রাশেদা সুলতানা বলেন, প্রজন্ম একাত্তর স্মারক লিপি দিয়েছে সিইসিকে। জামায়াত সংশ্লিষ্টের বিষয়টা বিষয়টা আমাদের পরিস্কার ভাবে জানা নাই। আগে দেখবো, জানবো তারপর বলতে পারবো। আমরা এটুকু জানি, আইনে নির্দিষ্ট শর্ত আছে। এই শর্তগুলো পূরণ করলেই কেবল কোনো দল নিবন্ধন পায়। জামায়াত অন্য আদলে আসছে কিনা, তা অগ্রীম বলা ঠিক হবে না। কমিশন মিটিংয়ে ফরমালি না আসলে বলা যাবে না। জামায়াতই আসছে এগুলো আসলে প্রমাণ হোক, তারপর আমরা পাঁচ কমিশনার বসে সিদ্ধান্ত নেবো।

নিবন্ধনে শর্ত পূরণ করলে জামায়াত সংশ্লিষ্টদের নিবন্ধন পেতে বাধা আছে কি-না, এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উচ্চ আদালতের আদেশ অনুযায়ী নিষিদ্ধ মানে জামায়াতে ইসলামী নিষিদ্ধ পাটি, তাদের নিবন্ধনটা বাতিল করা হয়েছে। যেহেতু নিবন্ধন নাই, নির্বাচনে তারা আসতে পারবে না। এখন যেহতেু নিবন্ধনটা ওদের বাতিল হয়ে গেছে এখন যদি প্রমাণ আসে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। আইনের মধ্যে যদি থাকে, আর যদি না থাকে তখন কমিশন বসে সিদ্ধান্ত নেবো। অগ্রীম আসলে এই বষয়ে মন্তব্য করার জায়গা নাই। 

নিবন্ধন দেয়াটা আইনের বিষয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, এগুলো আইনের বিষয়, শর্ত পূরণের বিষয়, প্রমাণ করার বিষয়; যে আসলেই কি জামায়াতই আসলো অন্য নামে। আগে প্রমাণ হোক তাপরপ আমরা পাঁচজনে বসে সিদ্ধান্ত নেবো। তবে আইনের কথা যদি বলি জামায়াত যেহেতু কোর্টের আদেশে নিবন্ধন বাতিল হয়ে গেছে, সেখানে নতুন করে জামায়াতকে দেওয়ার তো সুযোগ নেই।

বাংলাদেশে ডেভেলপমেন্ট পার্টি দরখাস্ত দাখিল করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, আর অন্যরা বলছেন যে, এরা জামায়াত কিন্তু অন্য নামে নিবন্ধন চাইছেন, তবে সেটা তো প্রমাণের বিষয়। আগে যাচাই বাছাই হোক, তখন বলা যাবে। আমরা কেবল এই দল নয়, ৯৩টি পার্টির ব্যাপারেই যাচাই বছাই যতখানি আইনি কঠামো আছে পুরোটাই দেখবো। গঠনতন্ত্র যাচাই করেই নিবন্ধন দেয়া হবে। একজন এসে দাঁড়াল আমরা একটা দল, তাই কী হবে নাকি। তাই তো আর হবে। যাচাই- বাছাই করেই দেবো।

এমএল/এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়