শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৫:৫৬ বিকাল
আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৫:৫৬ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

অর্থনীতির বিকাশ ও ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নয়নে কাজ করছে সরকার 

কর্মশালা

মনজুর এ আজিজ : দেশের অর্থনীতির সার্বিক বিকাশ এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিবেশ উন্নয়নকল্পে, বেসরকারিখাতের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নীতিমালা সংস্কার ও যুগোপযোগীকরণের কাজ সরকার অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য (আয়কর তথ্য ব্যবস্থাপনা ও সেবা) মোহাম্মদ জাহিদ হোসেন। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ডিসিসিআই অডিটোরিয়ামে ‘কাস্টমস্, ভ্যাট অ্যান্ড ইনকাম ট্যাক্স ম্যানেজমেন্ট’ বিষয়ক কর্মশালায় একথা জানান তিনি।  

প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে এনবিআর সদস্য বলেন, বর্তমানে দেশে টিনধারীর সংখ্যা ৮৩ লাখ, যদিও গত অর্থবছরে আয়কর রিটার্ন দাখিল হয়েছে মাত্র ২৫ লাখ ৩০ হাজার, বিষয়টি মোটেই আশাব্যঞ্জক নয়। আয়কর রিটার্ন দাখিলের ব্যাপারে ব্যক্তি পর্যায়ে আরো উদ্যোগী হওয়া ও সচেতনতা বাড়ানোর উপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। তিনি উল্লেখ করেন, আয়কর, ভ্যাট ও শুল্ক ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা আনয়নে এনবিআরের কার্যক্রমে ডিজিটাল ব্যবস্থা চালুর উপর বেশি প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে, ফলে জনগণের ভোগান্তি কমবে এবং রাজস্ব আহরণের হার বৃদ্ধি পাবে। 

তিনি বলেন, দেশে আয়কর প্রদানের সক্ষম লোকের সংখ্যা প্রায় ১ কোটি ১৬ লাখ, যদিও এ বিপুল জনগোষ্ঠীর একটি বড় অংশ এনবিআরের কর ব্যবস্থাপনার বাইরে রয়েছে, তবে করজাল সম্প্রসারণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সারাদেশে কর অঞ্চলের অফিস বাড়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।  

ওয়ার্কশপের স্বাগত বক্তব্যে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি রিজওয়ান রাহমান বলেন, কোম্পানির রাজস্ব ব্যবস্থাপনার জন্য আয়কর ও ভ্যাট সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান রাখা একান্ত অপরিহার্য, যা একজন উদ্যোক্তার ব্যবসায়িক কর্মকান্ড সফলভাবে পরিচালনা ও কৌশল নির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তিনি উল্লেখ করেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে করজাল বৃদ্ধির জন্য ৩৮টি ক্ষেত্রে রিটার্ন দাখিল বাধ্যতামূলক করা, ভ্যাটের কেন্দ্রীয় নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করা, স্থানীয় পর্যায়ে কেমিক্যাল উৎপাদন ৬% ভ্যাট ছাড়, মূসক ফরম-এ পরিবর্তন এবং কম্পিউটার যন্ত্রাংশ আমদানিতে ভ্যাট বৃদ্ধিসহ বেশকিছু পরিবর্তন করা হয়েছে এবং এ ধরনের পরিবর্তন সম্পর্কে ব্যবসায়ী সম্প্রদায়কে অবশ্যই অবগত থাকতে হবে। 

ডিসিসিআই সভাপতি জানান, বিগত বছরের ন্যায় ‘ট্যাক্স গাইড ২০২২-২৩’ প্রকাশ করেছে ঢাকা চেম্বার। বইটিতে আয়কর, ভ্যাট এবং কাস্টমস আইনের বিস্তারিত বিবরণী সন্নিবেশন করা হয়েছে, যা ঢাকা চেম্বারের সদস্যবৃন্দের পাশাপাশি দেশের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের কাজে আসবে। 

কর্মশালায় দুটি মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডিসিসিআই’র কাস্টমস্, ভ্যাট অ্যান্ড এনবিআর বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির উপদেষ্টা স্নেহাশিষ বড়ুয়া এবং যুগ্ম-আহ্বায়ক এমবিএম লুৎফুল হাদী, এফসিএ। ডিসিসিআই ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি আরমান হক কর্মশালার মুক্ত আলোচনা পর্ব সঞ্চালনা করেন এবং সরকারের রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা পূরণের লক্ষ্যে করদাতা ও রাজস্ব কর্মকর্তাদের মধ্যকার সম্পর্ক আরো বাড়ানোর উপর জোরারোপ করেন তিনি।

এমএএ/এএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়