শিরোনাম
◈ ৫ শতাংশ কোটা রেখে সংসদে আইন পাসের দাবিতে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম ◈ রেলওয়ের চাকরিতে ৪০ শতাংশ পোষ্য কোটা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট ◈ আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশ লেলিয়ে দেবেন না: সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি ◈ জামালপুরে বন্যার পানিতে গোসলে নেমে ৪ জনের মৃত্যু ◈ সাংবাদিকদের পেনশন স্কিমে যুক্ত হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ◈ মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এতো ক্ষোভ কেনো, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর ◈ ট্রাম্পের ওপর হামলা নিন্দনীয়: শেখ হাসিনা  ◈ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিকে আর্তমানবতার সেবায় আরও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের আহ্বান রাষ্ট্রপতির ◈ কোটা প্রসঙ্গে আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে এখন আমার বলার কিছুই নাই: প্রধানমন্ত্রী  ◈ প্রশ্নফাঁসের সুবিধাভোগীদের আইনের  আওতায় আনা হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২১ জুন, ২০২৪, ০৮:৩৩ রাত
আপডেট : ২২ জুন, ২০২৪, ০২:০৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এলডব্লিউজি সনদ না থাকায় বাংলাদেশের চামড়া রপ্তানি কমছে 

ফাইল ছবি

সালেহ ইমরান: [২] এক সময় বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রপ্তানি আয়ের খাত ছিলো চামড়া। কিন্তু নানা কারণে গত এক দশকে দুর্বল অবস্থানে চলে গেছে এই রফতানি খাতটি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এর অন্যতম কারণ চামড়া শিল্পের বৈশ্বিক মান নিয়ন্ত্রণকারী বৈশ্বিক সংস্থা ওয়ার্কিং লেদার গ্রুপের (এলডব্লিউজি) সনদ না থাকা। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) এক গবেষণা প্রতিবেদনে দেশের চামড়া রপ্তানি কমে যাওয়ার এসব তথ্য উঠে এসেছে। (ডেইলি স্টার ২১-০৬-২০২৪) 

[৩] বিডার তথ্যমতে, বৈশ্বিক চাহিদার ৩ শতাংশ চামড়া উৎপাদন হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশের চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি বৈশ্বিক রপ্তানির মাত্র ০.৭ শতাংশ। এলডব্লিউজি সনদ না থাকলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো প্রক্রিয়াজাত (ফিনিশড) চামড়া রপ্তানিতে বড় ধরনের বাধার মুখে পড়ে। ইউরোপ-আমেরিকাসহ পশ্চিমা বিশ্বের দেশগুলো এই সনদ না থাকলে সেই প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো পণ্য কেনে না। ফলে বাংলাদেশ পর্যাপ্ত কাঁচামালের যোগান থাকা সত্ত্বেও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানির বড় বাজারগুলো ধরতে পারছে না। (ভোরের কাগজ ২১-০৬-২০২৪)  

[৪] রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্য অনুযায়ী, ২০২২-২৩ অর্থবছরে বাংলাদেশের চামড়া রপ্তানি বাবদ আয় ছিলো ১২ কোটি ৩৪ লাখ ডলার। ১০ বছর আগে ২০১২-১৩ অর্থবছরে যা ছিলো ৩৯ কোটি ৭৫ লাখ ডলার। চলতি অর্থবছরের এই হিসাব এখনো আসেনি। 

[৫] বাংলাদেশ লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স আ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন, ২৫ বছর আগেও চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের মোট রপ্তানির ৭৫ শতাংশই ছিলো চামড়া। এখন তা কমে ১৩ শতাংশে নেমে এসেছে। তাছাড়া ট্যানারি ও সাভারের চামড়া শিল্পনগরীর পরিবেশগতমান না থাকাও চামড়া রপ্তানি কমে যাওয়ার একটি বড় কারণ। (বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড ২০-০৬-২০২৪)

[৬] বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএ) সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, সাভারের চামড়া শিল্প নগরীতে দুর্বল কমপ্লায়েন্সের কারণে দেশের ব্যবসায়ীরা ইউরোপ, উত্তর আমেরিকাসহ আন্তর্জাতিক বাজারে চামড়া বিক্রি করতে পারছেন না। আর এই দুর্বল কমপ্লায়েন্সের কারণে লেদার ওয়ার্কিং গ্রুপের (এলডব্লিউজি) সনদ পাচ্ছেন না অনেক ট্যানারি মালিক। (বিডি নিউজ ২০-০৬-২০২৪)

[৭] নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন ট্যানারি মালিক জানান, তারা ৬৫ শতাংশ চামড়া চীনে পাঠাতে বাধ্য হচ্ছেন। আর সেখানকার ব্যবসায়ীরাও দাম দিচ্ছেন আন্তর্জাতিক দামের তুলনায় ৬০ শতাংশ কম। এছাড়া কিছু চামড়া ভারতসহ কয়েকটি দেশে পাঠানো হয়। (আমার সংবাদ ২০-০৬-২০২৪) 

[৮] বিটিএ সূত্র জানায়, বর্তমানে ৩-৪ টি ট্যানারি এলডব্লিউজি সনদ পাওয়ার যোগ্য, কিন্তু সেন্ট্রাল এফ্লুয়েন্ট প্লান্টর (সিইপিটি) না থাকায় তারাও সনদ পাচ্ছেন না। (বণিকবার্তা ২০-০৬-২০২৪)

[৯] ২০০৫ সালে এলডব্লিউজি সনদ প্রবর্তনের আগে ইতালীর মতো কয়েকটি দেশ বাংলাদেশ থেকে বিপুল পরিমাণ চামড়া আমদানি করতো। (বাংলানিউজ ২০-০৬-২০২৪)। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এসএম/এসবি/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়