শিরোনাম

প্রকাশিত : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০১:৩৪ দুপুর
আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০১:৫০ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

প্রাণি সম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠানের

কুমিল্লায় ২৮ পদের ১৮ টিই শূন্য

প্রাণি সম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান কুমিল্লা

শাহাজাদা এমরান, কুমিল্লা: প্রাণি সম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান কুমিল্লা (বায়োলজিক্স এন্ড এপ্লাইড রিসার্চ)’র ২৮টি পদের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে শূন্য রয়েছে ১৮টি পদ। অফিসের মোট পদের অর্ধেকের বেশী শূন্য থাকায় ব্যাহত হচ্ছে সার্বিক কর্মকান্ড।

ফলে ভ্যাকসিন উৎপাদনে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে হিমসিম খাচ্ছে সংস্থাটি। প্রাণি সম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান কুমিল্লার সূত্রে জানা যায়, এই অফিসের পূর্ব নাম ছিল প্রাণি সম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

বর্তমানে এর নাম পরিবর্তন করে বায়োলজিক্স এন্ড এপ্লাইড রিসার্চ নামকরণ করা হয়েছে। গবেষণাধর্মী এই প্রতিষ্ঠানের মুল কাজ হচ্ছে হাঁস মুরগীর ভ্যাকসিন উৎপাদন করা।

এরা তড়কা টিকা, গলাফুলা টিকা , বাদলা টিকা , ফাউল কলেরা টিকা ও ক্ষুরারোগের ট্রাইভ্যালেন্ট টিকা উৎপাদন করে।

যা কুমিল্লা জেলার চাহিদা পূরণ করে সারা দেশে সরবরাহ করে। বায়োলজিক্স এন্ড এপ্লাইড রিসার্চ এর বর্তমান অর্গনোগ্রাম অনুযায়ী মোট জনবল হলো ২৮ জন। কিন্তু দীর্ঘ দিন ধরে ১৮টি পদ শূন্য রয়েছে। বিশাল সংখ্যক জনবল শূন্য থাকায় কাজ কর্মে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে বলে অফিস সূত্রে জানা যায়।

শূন্য থাকা পদ গুলো হলো, উপ সহকারী প্রকৌশলী (ইলেকট্রিক্যাল/মেকানিক্যাল) দুটি পদের মধ্যে দুটিই শূন্য,সিনিয়র সায়েন্টিফিক অফিসার (ক্যাডার পদ) একটি পদের মধ্যে একটিই শূন্য, সিনিয়র সায়েন্টিফিক অফিসার(নন ক্যাডার পদ) তিনটি পদের মধ্যে তিনটিই শূন্য, সায়েন্টিফিক অফিসার(নন ক্যাডার পদ) পাঁচটি পদের মধ্যে পাঁচটিই শূন্য, ল্যাব, টেকনিশিয়ান পাঁচটি পদের মধ্যে দুটি শূন্য, ল্যাব.এটেনডেন্ট তিনটি পদের মধ্যে দুটি শূন্য, অফিসসহায়ক (আউট সোর্সিং) একটি পদের মধ্যে একটিই শূন্য এবং নিরাপত্তা প্রহরী (আউট সোর্সিং) দুটি পদের মধ্যে দুটিই শূন্য রয়েছে।

অপর দিকে, এই অফিসে দৈনিক হাজিরা ভিত্তিক কাজ করে মোট ১৫জন শ্রমিক।

কিন্তু বর্তমানে নানা কারণে এখানেও দুই শ্রমিকের পদ শূন্য রয়েছে বলে জানা যায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বায়োলজিক্স এন্ড এপ্লাইড রির্সাচ কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পরিচালক ডা. ফারহানা নাসরীন বলেন, অনেক দিন ধরে আমাদের ২৮টি পদের মধ্যে ১৮টি পদই শূন্য রয়েছে।

যার ফলে আমাদের অফিসের কাজ কর্মে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। কারণ, ২৮ জনের কাজ করতে হচ্ছে ১০জনকে। এতে আমাদের ভ্যাকসিন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনেও সমস্যা হচ্ছে।

আমরা আমাদের এই শূন্য পদ গুলোর বিষয়ে উপরে প্রতিনিয়ত জানাচ্ছি। আশা করি শূন্যপদ গুলো পূরণ হলে আমাদের আর কোন সমস্যা থাকবে না। সম্পাদনা: আল আমিন 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়