শিরোনাম
◈ আজ স্বল্প দূরত্বের কিছু যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করবে: রেলওয়ে ◈ নাশকতাকারীদের ছাড় না দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের দাবি ◈ কোটা আন্দোলনের তিন সমন্বয়কের সন্ধান মিলেছে ◈ জনমনে স্বস্তি ফিরে এলেই কারফিউ প্রত্যাহার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ যে কোন সহিংস ঘটনার নিন্দা করে যুক্তরাষ্ট্র: ম্যাথু মিলার ◈ দুষ্কৃতিদের বিষয়ে তথ্য দিয়ে সহযোগিতার অনুরোধ পুলিশের ◈ ঢাকার বাইরের কারফিউ পরিস্থিতি ◈ দুষ্কৃতকারীরা যেখানেই থাকুক তাদের আইনের আওতায় আনা হবে: আইজিপি ◈ ১৮ থেকে ২০ জুলাই তিন দিনে ৯৯৯-এ সোয়া লাখ ফোন কল ◈ কতজন শিক্ষার্থী মারা গেছেন, জানতে সময় লাগবে: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত : ১০ জুলাই, ২০২৪, ০৮:৪৩ রাত
আপডেট : ১০ জুলাই, ২০২৪, ০৮:৪৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

রাখাইনে থামেনি বিস্ফোরণ, আতংকিত এপারের লোকজন

জিয়াবুল হক, টেকনাফ: [২] মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু টাউনশিপের বিভিন্ন এলাকায় মুহুর্মুহু বিস্ফোরণ অব্যাহত রয়েছে। বিস্ফোরণের বিকট শব্দ ভেসে আসায় কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাফনদীর সীমান্তবর্তী বিভিন্ন এলাকার মানুষের মাঝে  আতঙ্কের মধ্যে দিন পার করছেন। এদিকে মিয়ানমারে সংঘাতময় পরিস্থিতিতে বিভিন্ন কৌশলে  নতুন করে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে করছে বলে স্থানীয় সুত্রে জানা যায়।

[৩] ৯ জুলাই মঙ্গলবার রাত ১০টা থেকে ১০ জুলাই বুধবার বিকাল ৩ টা পর্যন্ত মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে ভেসে আসা বিস্ফোরণের বিকট শব্দ শুনতে পেয়েছেন টেকনাফের বাসিন্দারা। 

[৪] তাঁরা জানান, মিয়ানমারের যেসব এলাকা থেকে বিস্ফোরণের শব্দ ভেসে আসছে, সেখানে মিয়ানমারের রাখাইনের মংডু টাউনশিপের পেরাংপুরু, কাদিরবিল, হারিপাড়া, মংনিপাড়া, নলবন্ন্যা, সুদাপাড়া, সিকদারপাড়া, নুরুল্লাপাড়া হাসুরাতা ও ফাতংজা গ্রাম অবস্থিত। মর্টার শেল ও শক্তিশালী গ্রেনেড বিস্ফোরণের কারণে বিকট শব্দ হচ্ছে বলে দাবি টেকনাফের বাসিন্দাদের।

[৫] স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জানান, মিয়ানমারের যেসব এলাকা থেকে বিস্ফোরণের শব্দ ভেসে আসছে, তা রোহিঙ্গা অধ্যুষিত। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে সরকারি বাহিনীর সঙ্গে সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর সংঘাত চলছে। ওই এলাকায় আকাশে যুদ্ধবিমানও উড়তে দেখা যাচ্ছে। সংঘাতের কারণে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর অনেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার চেষ্টায় রয়েছেন। 

[৬] এমনকি টেকনাফ থানা উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুড়া, লেদা, টেকনাফ সদর ইউনিয়নের বরইতলি, কেরুনতলী, মহেষখালী পাড়া, কোনকার পাড়া, সাবরাং ইউনিয়নের লেজির পাড়া, আচারবনিয়া পাড়া, দক্ষিণ নয়া পাড়া ও শাহপরীর দ্বীপের জালিয়া পাড়া, মিন্ত্রী পাড়া, দক্ষিণ পাড়া, মাঝের পাড়া এলাকা দিয়ে বিভিন্ন কৌশলে মিয়ানমারের নারী-পুরুষ ও শিশুরা আসছে। এতে এক শ্রেনীর লোকজন স্থানীয় আইনশৃংখলা বাহিনীকে ম্যানেজ করে জেলেদের নৌকা দিয়ে পাচার করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

[৭] এব্যাপারে সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর হোসেন বলেন, টেকনাফের নাফনদীর কিনারায় মিয়ানমারের মংডু। মাত্র কয়েক কিলোমিটার দূরে চার মাস ধরে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটছে। ফলে এপারের মানুষ বিস্ফোরণের শব্দে ঘুমাতে পারছেন না। তাঁদের স্বাভাবিক জীবনযাপন ব্যাহত হচ্ছে।

[৮] টেকনাফ পৌরসভার প্যানেল মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, বিস্ফোরণের শব্দে এলাকার ঘরবাড়ি কেঁপে উঠছে। সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষ আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

[৯] এবিষয়ে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আদনান চৌধুরী বলেন, টেকনাফ উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সীমান্তে বিজিবি ও কোস্টগার্ডের টহল জোরদার রয়েছে। সম্পাদনা: এ আর শাকিল

প্রতিনিধি/এআরএস

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়