শিরোনাম

প্রকাশিত : ২২ এপ্রিল, ২০২৪, ০১:৩৩ দুপুর
আপডেট : ২২ এপ্রিল, ২০২৪, ০১:৩৩ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

টেকনাফে পল্লী চিকিৎসকসহ দুই ব্যক্তিকে অপহরণ

জিয়াবুল হক, টেকনাফ: [২] কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া- হোয়াইক্যং ঢালা নামক সড়কে গহীন অরণ্যে লুকিয়ে থাকা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা স্থানীয় পল্লী চিকিৎসকসহ দুই ব্যক্তিকে অপহরণ করেছে।

[৩] গতকাল রোববার (২১ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার দিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর ও হোয়াইক্যং ঢালা নামক সড়ক দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে অপহরণের শিকার হয়েছে।

[৪] অপহরণের শিকার হওয়া একজন হচ্ছে- উখিয়া উপজেলার থাইংখালী গ্রামের বাসিন্দা পল্লী চিকিৎসক জহির উদ্দিন ও অপর নাম ঠিকানা পাওয়া যায়নি।

[৫] ঘটনার বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করে অপহৃতদের বহনকারী সিএনজির চালক ইলিয়াস গণমাধ্যম কর্মীদের জানিয়েছেন, বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর অতিক্রম করে হোয়াইক্যং ঢালা সড়কের কুদুমগুহা নামক এলাকায় পৌঁছালে ব্যারিকেড দিয়ে সিএনজির গতিরোধ করে অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা দুইজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গহীন পাহাড়ের দিকে নিয়ে যায়। এসময় তাকেও মারধর করে তার ব্যবহৃত মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এরপর সে সিএনজি চালিয়ে দ্রুত হোয়াইক্যং বাজারে চলে আসে। 

[৬] এব্যাপারে বাহাড়ছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মশিউর রহমান জানান, অপহরণের বিষয়টি খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে শামলাপুর-হোয়াইক্যং সড়কের  কুদুমগুহা নামক জায়গায় পুলিশ একটি টিম নিয়ে অভিযান চালানো হয়েছে। অপহৃতদের উদ্ধার করার জন্য পুলিশ সদস্যরা কাজ করছে।

[৭] এদিকে অপহৃত হওয়া পল্লী চিকিৎসক জহির উদ্দিনের ছোট ভাই উখিয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কমরুদ্দিন মুকুল জানান, আমার বড় ভাই জহির উদ্দিন টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর বাজারে দীর্ঘ দিন ধরে পল্লী চিকিৎসকের দায়িত্ব পালন করছেন। রাতে বাড়ি ফেরার পথে অপহরণ চক্রের সদস্যরা তাকে এবং তার সাথে থাকা অপর যাত্রীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে পাহাড়ে দিকে নিয়ে গেছে। এরপর থেকে তার ভাই কোথায় আছে কেমন আছে এ পর্যন্ত কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। তার ভাইকে অক্ষত অবস্থায় মুক্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।

[৮] নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী পরিবারের এক শুভাকাঙ্ক্ষী জানান, অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা দুই ব্যক্তির স্বজনদের কাছ থেকে কৌশলে দাবিকৃত মুক্তিপণ আদায় করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

[৯] এবিষয়ে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ ওসমান গনি (ওসি) জানান, ঘটনাটি শুনার পর থেকে তাদের উদ্ধার করার পাশাপাশি ঘটনার রহস্য উদঘাটন করার জন্য পুলিশের গোয়েন্দা নজরদারি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আশা করছি অপহৃতদের উদ্ধার করতে আমরা সক্ষম হবো।

প্রতিনিধি/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়