শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০২:৫৮ দুপুর
আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০২:৫৮ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পদ্মা সেতুর প্রভাব সুন্দরবনে: চালু হচ্ছে ৪ ইকো-ট্যুরিজম সেন্টার

ষাট গম্বুজ মসজিদ

সঞ্চয় বিশ্বাস: পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় দক্ষিণ অঞ্চলের যাতায়াত সহজ হয়ে গিয়েছে। যার ফলে সুন্দরবন ও ঐতিহাসিক ষাটগম্বুজ মসজিদসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলের পর্যটন স্পটগুলোতে পর্যটকদের আগমন বাড়তে শুরু করছে। তাই পর্যটকদের ক্রমবর্ধমান ভিড় নিয়ন্ত্রণে আনতে সুন্দরবনে আরও চারটি ইকো-ট্যুরিজম সেন্টার খুলতে যাচ্ছে বন বিভাগ। ঢাকা ট্রিবিউন

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন জানান, বর্তমানে পর্যটকদের ভ্রমণের জন্য সুন্দরবনের করমজল, হারবারিয়া, কলাগাছিয়া, কটকা, কচিখালী, দুবলা এবং হিরোনপয়েন্ট এলাকায় সাতটি ইকোট্যুরিজম সেন্টার রয়েছে। পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর পর্যটকদের ভিড় বেড়ে যাওয়াই নতুন করে আলীবান্দা, আন্দারমানিক, শেখেরটেক এবং কালাবগিতে আরও চারটি ইকোট্যুরিজম সেন্টার চালু করা হচ্ছে।

পর্যটকরা করমজল, হারবাড়িয়া এবং কলাগাছিয়া তিনটি কেন্দ্রে একটি নির্দিষ্ট প্রবেশ মূল্য দিয়ে যেতে পারেন এবং তাদের দিনের মধ্যে ফিরতে হয়। অন্য জায়গায় যেতে পর্যটকদের আগে বন বিভাগের অনুমতি নিতে হয়।

তিনি আরো জানান, ‘গড়ে প্রতিবছর দেশি-বিদেশি এক লক্ষাধিক পর্যটক সুন্দরবনে ভ্রমণ করতে আসেন। সুন্দরবন বিভাগ পর্যটনখাত থেকে বছরে এক কোটি টাকার বেশি রাজস্ব আয় করা হচ্ছে।  সুন্দরবনকে ঘিরে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ১০ লাখেরও বেশি মানুষ জীবিকা নির্বাহ করে। এই ম্যানগ্রোভ বন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষকে ঘূর্ণিঝড় ও বন্যা থেকে রক্ষা করে আসছে।’

খুলনা বিভাগে সুন্দরবন ছাড়াও ইউনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে পরিচিত পেয়েছে ষাটগম্বুজ মসজিদ। প্রায় ৬০০ বছরের পুরাতন এই মসজিদের সঙ্গে রয়েছে জাদুঘর। প্রতিদিন গড়ে প্রায় এক হাজার পর্যটক ষাট গম্বুজ দেখতে আসেন।

প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের বাগেরহাট জাদুঘরের কাস্টোডিয়ান মো. জায়েদ বলেন, গতবছর প্রায় পাঁচ লাখ পর্যটক ঐতিহাসিক মসজিদটি পরিদর্শন করেন যেখান থেকে মসজিদটি রাজস্ব পেয়েছে ৫৭ লাখ টাকা।

বাগেরহাট ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক মোশারফ হোসেন জানান, পর্যটকদের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দিতে ট্যুরিস্ট পুলিশ কাজ করছে।

  • সর্বশেষ