শিরোনাম
◈ তৃণমূলের কর্মসূচি সফলে বিএনপির ১০ টিম গঠন ◈ গার্ডার দুর্ঘটনায় দোষীদের শাস্তিমূলক ব্যবস্থায় আপত্তি করবেনা চীন ◈ নারীর পোশাক ‘উস্কানিমূলক’! যৌন নিগ্রহের অভিযুক্তকে জামিন দিয়ে বিতর্কে ভারতের আদালত ◈ পাকিস্তান-আফগানিস্তান অঞ্চলে সেনা মোতায়েন করতে চায় চীন ◈ রোহিঙ্গাদের ফ্ল্যাট দেওয়ার কথা বলেও পিছু হঠলো দিল্লি ◈ একযোগে ১৪৬ কনস্টেবলকে ঢাকায় বদলি ◈ জিয়া জড়িত না থাকলে খুনীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সাহস পেত না: কাদের ◈ ইসরাইলের সঙ্গে পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্কে ফিরে গেল তুরস্ক ◈ ইউক্রেনে আটক পশ্চিমা অস্ত্রের প্রদর্শনী করল রাশিয়া ◈ গার্ডার পড়ার ঘটনার সময় ক্রেনটি চালাচ্ছিলেন চালকের সহকারী রাকিব: র‌্যাব

প্রকাশিত : ১৮ মে, ২০২২, ১২:৪৯ রাত
আপডেট : ১৮ মে, ২০২২, ১০:৫০ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

জবি ছাত্রী হলে রুমের চাবি বাবদ নেওয়া হচ্ছে ৮০০ টাকা!

ফাইল ছবি

অপূর্ব চৌধুরী, জবি প্রতিবেদক: [২] জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে প্রতি রুমের তালা ফ্রিতে দেওয়া হলেও চাবি বাবদ ৮০০ টাকা নিচ্ছে হল কর্তৃপক্ষ। চাবির দোকানে খোঁজ নিয়ে জানা যায় ৮ টি চাবির একই তালা ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এদিকে তালা-চাবি বাবদ দ্বিগুণের চেয়েও বেশি টাকা নেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হলের শিক্ষার্থীরা।

[৩] ১৬ তলা বিশিষ্ট হলটিতে কক্ষ আছে ১৫৬টি। প্রতি রুমে ৮ জন করে শিক্ষার্থী থাকেন। একটি রুমে একটি করে তালা ফ্রিতে দেয়া হলেও রুমের ৮ জনের চাবির জন্য হল কর্তৃপক্ষকে ৮০০ টাকা করে দিতে হচ্ছে। অর্থাৎ চাবির জন্য শিক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা করে দিতে হচ্ছে।

[৪] কিন্তু আলিফ প্রিমিয়ারের এই তালাটি ৮ চাবিসহ বাজারে ৩৫০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে বলে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির পাশে রায়সাহেব বাজার মোড়ে লাকি স্ক্রুসহ পাশের দোকান গুলোতে ৮টি চাবিসহ একই তালা ৩৫০ টাকা ও ১২ টি চাবিসহ একই তালা ৪২০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। 

[৫] হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, আমরাও বাজার থেকে শুনেছি, তালার দাম এতো টাকা না। এক তালায় দ্বিগুণের চেয়েও বেশি টাকা নিচ্ছে। এখানেও লাভ করছে। আমাদের বলা হচ্ছে, রুমে তালা ফ্রি, তবে চাবি ১০০ টাকা করে। রুম প্রতি ৮০০ টাকা নিলে তালা ফ্রি বলা অদ্ভুদ ব্যাপার। এক ধরণের বাটপারি এটা। 

[৬] বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিনিয়া আফ্রিন বলেন, তালা-চাবির দাম তো এতো টাকা না। হল কর্তৃপক্ষ বলছে তালা ফ্রি। তবে চাবি বাবদ রুমের ৮ জনের কাছে ৮০০ টাকা নিচ্ছে। তালার সাথে তো চাবি এমনিতেই দেয়। এছাড়া চাবি বানাতে গেলে তো এতো টাকা লাগে না। তাই এতো টাকা নেয়া সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। 

[৭] হলের আবাসিক শিক্ষক ড. শরাবান তোহুরার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তালা-চাবি ক্রয় ও বন্টনের জন্য একটি আহবায়ক কমিটি আছে। সেটির আহবায়ক আবাসিক শিক্ষক প্রতিভা ম্যাম। আমি এই কমিটিতে ছিলাম না। তাই কিভাবে বন্টন হলো, কতো টাকা নেয়া হলো আমি জানি না। 

[৮] এবিষয়ে হলের আবাসিক শিক্ষক ও তালা-চাবি বন্টন কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. প্রতিভা রানী কর্মকার ও হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. শামীমা বেগমের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের সাড়া পাওয়া যায়নি। 

  • সর্বশেষ