শিরোনাম
◈ সিরিজ বোমা হামলার ১৭ বছর পূর্তিতে সারা দেশে আওয়ামী লীগ বিক্ষোভ করবে ◈ ১৭ বছরেও সিরিজ বোমা হামলার বিচার শেষ হয়নি ◈ কর্তৃপক্ষের আশ্বাস পেয়ে আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন খুবি শিক্ষার্থীরা ◈ নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ড পুনর্গঠন ◈ কুয়াকাটায় অনির্দিষ্টকালের জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ ঘোষণা ◈ ছাত্রদের মারধর করায় ট্রেন অবরোধ, দুই সহকারী চেকার সাসপেন্ড ◈ দেশের মানুষ এখন অনেক শান্তিতে আছে : সমাজকল্যাণমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীনতা পেতাম না: রণজিৎ কুমার রায় এমপি ◈ উত্তরায় গার্ডার পড়ে নিহত ৪ জনের দাফন জামালপুরে সম্পন্ন ◈ দিরাইয়ে বসতঘর থেকে যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত : ০১ জুলাই, ২০২২, ০৭:৩০ বিকাল
আপডেট : ০১ জুলাই, ২০২২, ০৭:৩০ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

গবেষণা ও উদ্ভাবনে ঢাবির ভবিষ্যত দেখছেন উপাচার্য

ঢাবির ১০২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্বোধন

আখতারুজ্জামান

শরীফ শাওন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১০২তম বর্ষে পদার্পণ করায় ১০২ পাউন্ড ওজনের কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রতিপাদ্য 'গবেষণা ও উদ্ভাবন: ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিয়া সহযোগিতা’। ঢাবি উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, এই প্রতিপাদ্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেয়, শতবর্ষ পেরিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কোন দিকে যাবে, কোন পথে পরিচালিত হবে। 

শুক্রবার দিনব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধনকালে উপাচার্য জানান, ২২ ও ২৩ অক্টোবর গবেষণা মেলা অনুষ্ঠিত হবে। 

উপাচার্য বলেন, এই পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে ইন্ডাস্ট্রির চাহিদা অনুযায়ী মানবসম্পদ তৈরি এবং জাতির উন্নয়নে যে ঐতিহাসিক অবদান রেখে আসছে, এই বিশ্ববিদ্যালয় সেটি অক্ষুণ্ন থাকবে। সরকার, অ্যাকাডেমিয়া, ইন্ডাস্ট্রি ও অ্যালামনাইদের একযোগে কাজ করতে হবে।

তিনি জানান, বিশ্বের বিভিন্ন উন্নত দেশের অনেক খ্যাতিমান অধ্যাপক শিল্প প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে গবেষণা কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে নোবেল পুরষ্কার লাভ করেছেন। এসময় তিনি, শিক্ষার্থীদের প্রায়োগিক জ্ঞান বৃদ্ধি ও স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে শিল্প প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম চালুর জন্য শিল্প মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান।

পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী এদিন সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব হল ও হোস্টেল থেকে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা শোভাযাত্রা সহকারে শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রের খেলার মাঠে সমবেত হন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ও হলসমূহের পতাকা উত্তোলন ও পায়রা উড়ান উপাচার্য। এরপর সবাইকে নিয়ে কেক কেটে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন উপাচার্য আখতারুজ্জামান।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বিশ্ববিদ্যালয়ের থিম সংগীত পরিবেশিত হয়। উদ্বোধন শেষে উপাচার্যের নেতৃত্বে সকলের অংশগ্রহণে শোভাযাত্রা বের করেন, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে এসে শেষ হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, উপ-উপাচার্য(শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার, শিক্ষক সমিতির সাধারণ অধ্যাপক নিজামুল হক ভূঁইয়া, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ, বিভাগীয় চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

মূল প্রবন্ধে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, ‘গবেষণা ও উদ্ভাবন: ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিয়া সহযোগিতা’ কার্যক্রম গ্রহণের ফলে উভয়পক্ষ তথা দেশ উপকৃত হবে।

তিনি জানান, প্রয়োজনীয় দক্ষতাসম্পন্ন লোকবল তৈরি এবং শিল্পখাতে নানা উৎপাদন প্রক্রিয়ার উন্নতি ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ইতিমধ্যে একটি শিল্পখাত-অ্যাকাডেমিয়া সহযোগিতা প্ল্যাটফর্ম গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে। এক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনের জন্য বাস্তবতার মূল্যায়ন করে নির্দিষ্ট করণীয়সমূহ চিহ্নিত করা প্রয়োজন। এই ব্যাপারে সরকার বাস্তবতা-ভিত্তিক যথাযথ নীতিমালা ও আইন প্রণয়ন করতে পারে।

  • সর্বশেষ