শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারী, ২০২২, ১১:১৯ দুপুর
আপডেট : ২৫ জানুয়ারী, ২০২২, ০৩:৪৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] বিশ্বজুড়েই মানবাধিকার ও গণতন্ত্র খর্ব হয়েছে, দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় ১৩তম বাংলাদেশ

লিহান লিমা, মহসীন কবির: [২] বার্লিনভিত্তিক ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই) পরিচালিত ‘দুর্নীতির ধারণা সূচক (সিপিআই) ২০২১’ প্রতিবেদনে সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ১৮০টি দেশের মধ্য এক ধাপ পিছিয়ে হয়েছে ১৪৭তম। গতবার ছিল ১৪৬তম। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ১২ থেকে এগিয়ে হয়েছে ১৩তম। টিআইবি

[৩] ১০০ ভিত্তিতে এই সূচকে বাংলাদেশের স্কোর গত তিন বছরের মত এবারও ২৬। এই স্কেলে শূন্য স্কোরকে প্রবল দুর্নীতিগ্রস্ত এবং ১০০ স্কোরকে সর্বোচ্চ সুশাসনের দেশ ধরে হিসেব করা হয়। এই সূচকে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের চেয়ে বাজে অবস্থা কেবল আফগানিস্তানের।

[৪] ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত চার বছর ধরে আমাদের অবস্থান একই জায়গায় রয়েছে। এটি হতাশাজনক। সরকারের সর্বোচ্চ মহল থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীলতা দেখানোর রাজনৈতিক অঙ্গীকার থাকলেও সেটি ঠিকমতো কার্যকর হচ্ছে না। কারণ, যাদের হাতে এই দায়িত্ব, তাদের একাংশই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত।

[৫] তালিকায় সবচেয়ে শীর্ষ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ আফ্রিকার দক্ষিণ সুদান (স্কোর ১১) এরপরে রয়েছে যথাক্রমে সিরিয়া, সোমালিয়া, ভেনেজুয়েলা, ইয়েমেন, উত্তর কেরিয়া, আফগানিস্তান, লিবিয়া, ইকুয়েটোরিয়াল গিনি ও তুর্কমেনিস্তান।

[৬] অন্যদিকে সর্বোচ্চ ৮৮ স্কোর নিয়ে তালিকায় শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে ডেনমার্ক। এর পরে রয়েছে ফিনল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, সিঙ্গাপুর, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, লুক্সেমবুর্গ ও জার্মানি।

[৭] ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই গত এক দশক ধরে স্থবির হয়ে পড়েছে। ৮৬ শতাংশ দেশ সমস্যা মোকাবেলায় আরো পিছিয়ে গিয়েছে কিংবা কোনো অগ্রগতি করতে পারছে না। বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ ও অঞ্চলের সরকার মানবাধিকার এবং গণতন্ত্রকে খর্ব করতে মহামারীতে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছে।

[৮] তারা উদ্বেগ প্রকাশ করে জানায়, দুর্নীতি মোকাবেলায় ব্যর্থতা মানবাধিকার লঙ্ঘনকে আরো বাড়িয়ে তুলছে এবং গণতন্ত্রকে দুর্বল করছে। ২০২০ সালে মানবাধিকার কর্মীদের হত্যার ৩৩১টি নথিভুক্ত মামলার মধ্যে ৯৮শতাংশই এমন দেশগুলোতে ঘটেছে যাদের সিপিআই স্কোর ৪৫ এর নীচে।

 

  • সর্বশেষ