শিরোনাম

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী, ২০২২, ০৩:৩১ রাত
আপডেট : ২২ জানুয়ারী, ২০২২, ০৪:৫০ সকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

শাবিতে মশাল মিছিল: অনশনকারীদের সবাই অসুস্থ, তবুও চলছে আন্দোলন

নিউজ ডেস্ক: উপাচার্যের বাসভবনের সামনে তীব্র শীতে ২৪ অনশনকারীর প্রায় সবাই অসুস্থ হয়ে পড়েছে।উপাচার্যের বাসভবনের সামনে তীব্র শীতে ২৪ অনশনকারীর প্রায় সবাই অসুস্থ হয়ে পড়েছে।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি হয়েছেন। তবে তারা একমাত্র উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের ভিত্তিতেই আলোচনায় বসবেন বলে জানান। তারা আরো জানান, উপাচার্য পদত্যাগের আগ পর্যন্ত অনশন চলবে। উপাচার্যের বাসভবনের সামনে তীব্র শীতে ২৪ অনশনকারীর প্রায় সবাই অসুস্থ হয়ে পড়েছে। ১২ অনশনকারীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভিসি ভবনের সামনে বসা অপর ১২ অনশনকারীকে ক্যানোলার মাধ্যমে লিকুইড স্যালাইন ও ভিটামিন সাপ্লিমেন্টারি দেওয়া হচ্ছে।

এর মধ্যে শ্বাসকষ্ট থাকায় চার জনকে নেবুলাইজারও দেওয়া হচ্ছে। গতকাল উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে মশাল মিছিলও করে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী। এদিকে, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করতে ঢাকায় যাচ্ছেন বলে প্রথমে শিক্ষার্থীরা জানালেও সন্ধ্যায় তারা মত পালটেছেন। তারা বলেছেন, ঢাকায় নয়, আলোচনা হবে সিলেটেই। সেজন্য মন্ত্রীকে সিলেট আসতে হবে। তারা আরেকটি বিকল্প প্রস্তাব দিয়ে বলেন, ভিডিও কলেও আলোচনা হতে পারে। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে সাদিয়া আফরিন এই কথা জানিয়েছেন। সাদিয়া বলেন, ‘এখানে আন্দোলনকারীদের ফেলে ঢাকা যাওয়া সম্ভব না।’

একজন ডায়াবেটিস আক্রান্ত অনশনকারীর অনশন ভাঙার বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতারা আন্দোলনকারীদের সহযোগিতা চাইলে তারা বলেন, আমরা অসুস্থ অনশনকারীদের অনশন ভাঙার বিষয়ে চেষ্টা করছি। কিন্তু কেউই অনশন ভাঙতে রাজি নয়। পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগ নেতারা তাদের এ মতামত নিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে দেখা করেন।

এর আধাঘণ্টা পর আওয়ামী নেতারা আন্দোলনকারীদের সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে মোবাইলে সংযুক্ত করে দেন। এ সময় ডা. দীপু মনি আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব দিলে তারা রাজি হন। এর কিছুক্ষণ পর আন্দোলনকারীরা সাংবাদিকদের সঙ্গে প্রেস ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আপনারা আলোচনা করতে প্রস্তুত কিনা, এমন প্রশ্নে তারা বলেন, অনশন চালু রেখেই উপাচার্যের পদত্যাগ নিয়ে কেবল আলোচনা করতে প্রস্তুত। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাসুম বিল্লাহ চৌধুরী অনশনকারীদের উদ্দেশে বলেন, আমরা শাবির সাবেক ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা আপনাদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করছি। আপনারা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যান।

শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে একাত্মতা প্রকাশ করে ‘সার্ক হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন’ সিলেট মহানগর। সংগঠনটির সভাপতি মো. মোসাদ্দেক হোসাইন সজল বলেন, আমরা আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শাবি উপাচার্যের পদত্যাগ চাই। আমাদের শিক্ষার্থী গত তিন দিন ধরে না খেয়ে আছে। কেউ কেউ হাসপাতালে আছে।

এদিকে, অসুস্থ শিক্ষার্থীদের দেখতে শুক্রবার ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যান সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন। নেতৃবৃন্দ অসুস্থ শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে সিলেট মহানগর বিএনপি নেতা সিসিক কাউন্সিলর আবদুল কাইয়ূম জালালী পংকী, সিসিক কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদীসহ বেশ কয়েকজন নেতা শিক্ষার্থীদের দেখতে যান এবং তাদের স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেন।

গত ১৯ জানুয়ারি দুপুর থেকে উপাচার্যের পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আমরণ এ অনশন কর্মসূচি শুরু হয়। যেখানে ১৫ জন ছেলে ও ৯ জন মেয়ে সহ মোট ২৪ জন কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

ইত্তেফাক

  • সর্বশেষ