শিরোনাম

প্রকাশিত : ১৮ জানুয়ারী, ২০২২, ১১:৫৬ দুপুর
আপডেট : ১৮ জানুয়ারী, ২০২২, ০১:২৪ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

চিত্রাভিনেত্রী শিমুকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন স্বামী আলীম নোবেল

ইমরুল শাহেদ: কেন তাকে হত্যা করা হয়েছে বা কিভাবে হত্যা করা হয়েছে এ বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। রাইমা ইসলাম ওরফে শিমুকে হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোমবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। রাতভর জেরার পরে দায় স্বীকার করে নোবেল। চ্যানেলআই অনলাইন

হত্যাকাণ্ডে সহায়তার অভিযোগে স্বামীর বন্ধু ফরহাদ হোসেনকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত আলামত ও বস্তাবন্দি করে লাশ ফেলে দেয়ার ঘটনায় ব্যবহৃত প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়েছে।

র‌্যাবের একটি সূত্র জানিয়েছে, গাড়ি চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করলে র‌্যাবের কাছে তিনি কিছু তথ্য দেন। তাদের দেওয়া তথ্যানুযায়ী এখন অভিযান চলছে। স্বামী নোবেলের প্রাইভেটকারের ব্যাকডালায় রক্ত দেখা গেছে।

অভিনেত্রী ফেসবুক স্ট্যাসে লিখেছেন, রাইমা ইসলাম শিমু আমাদের চলচ্চিত্রে বহু ছবির নায়িকা। তাকে দুর্বৃত্তরা হত্যা করে কেরানী গঞ্জ,আলীপুর গ্রামের ব্রীজের পাশে ফেলে রেখেছিলো।(ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তার আত্মার শান্তি কামনা করছি আমিন।
চলচ্চিত্রশিল্পের অনেকেই শিমুর হত্যাকাণ্ডে শোকাহত।

স্বামী ও দুই সন্তানকে নিয়ে শিমু থাকতেন রাজধানীর গ্রিনরোডে। রোববার (১৬ জানুয়ারি) অভিনেত্রী শিমুর অভিভাবকরা নিখোঁজ সংক্রান্তে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন কলাবাগান থানায় । পরে জিডিসূত্রে অজ্ঞাত নামা কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা করা হয়।
নিহত শিমুর ভাই শহিদুল ইসলাম খোকন রাতে গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন, বোন শিমুর জামাই নোবেল প্রায়ই শিমুকে মারধর করতেন। তিনি মাদকাসক্ত।

পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সোমবার কেরানীগঞ্জ থেকে বস্তাবন্দি একটি লাশ উদ্ধার করে। শিমুর পরিবারের পক্ষ থেকে পরে লাশটিকে শনাক্ত করা হয়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে আছে। সেখানেই শিমুর স্বামী ও গাড়ি চালক ফরহাদকে আটক করা হয়।

শিমুকে হত্যা করা হয়েছে কি না, জানতে চাইলে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কাজী রমজানুল হক জানান, যেহেতু মরদেহটি বস্তাবন্দি ছিল এবং গলায় দাগ ছিল, তাই প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি এটি হত্যাকাণ্ড। তবে এ বিষয়ে আমরা তদন্ত করছি।

১৯৯৮ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত প্রায় ২৫ সিনেমায় অভিনয় করেন শিমু। তিনি কাজী হায়াতের ‘বর্তমান’ সিনেমায় প্রথম অভিনয় করেন। পরে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, চাষি নজরুল ইসলাম, শরিফ উদ্দিন খান দিপুসহ আরও বেশ কিছু পরিচালকের সিনেমায় কাজ করেন।
কয়েক বছর ধরে একটি বেসরকারি টিভির মার্কেটিং বিভাগে কর্মরত ছিলেন শিমু। টুকটাক নাটকে কাজ করতেন। পাশাপাশি তার নিজের নাটক নির্মাণের প্রোডাকশন হাউজ ছিল বলে জানা যায়। তিনি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সহযোগী সদস্য।

  • সর্বশেষ