শিরোনাম

প্রকাশিত : ০১ জানুয়ারী, ২০২২, ০৪:২৩ দুপুর
আপডেট : ০১ জানুয়ারী, ২০২২, ০৪:২৩ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

লাখো পর্যটক সমুদ্র সৈকতে উদযাপন করল থার্টিফাস্ট নাইট

আয়াছ রনি : কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে লাখো পর্যটকের আলোর ঝলকানি থার্টিফাস্ট নাইট উদযাপন । সৈকতে সন্ধ্যায় মানুষের তেমন কোলাহল ছিল না। কিন্তু, রাত ১২টার আগেই কক্সবাজার সৈকত যেন লোকে লোকারণ্য। যেন বাদ ভাঙ্গা মানুষের উচ্ছ্বাস। বিশেষ করে সুগন্ধা সৈকত সহ বিভিন্ন পয়েন্টে আতশবাজি, ফানুস উড়িয়ে ২০২২ সালকে স্বাগত জানান পর্যটকসহ সমবেত সকলে হাজারো পর্যটক। মুহুর মহুর শব্দে প্রকম্পিত সৈকতে আলোর ঝলকানি।

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের পশ্চিম আকাশে সূর্য যখন লাল বৃত্ত ধারণ করে তখন সবাই অনুভব করেন এটি বছরের শেষ সূর্যাস্ত। আর এর মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে একটি বছর। তাই লাল বৃত্তের সূর্য এবং উত্তাল সমুদ্রকে ঘিরে সৈকত জুড়ে সমবেত হয়েছিলেন প্রায় আড়াই লক্ষাধিক মানুষ।

এদিকে, ইংরেজী নববর্ষ বরণকে কেন্দ্র করে থার্টি পর্যটন নগরী কক্সবাজারে কঠোর অবস্থান নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

বিদায়ী ২০২১ সালের শেষ দিন শুক্রবার বিকেল থেকে সমুদ্র সৈকতসহ শহরের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নেয় জেলা পুলিশ, র্্যাব, গোয়েন্দা পুলিশ ও ট্যুরিস্ট পুলিশের সদস্যরা।

সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট, লাবনী পয়েন্ট, কলাতলী মোড়সহ প্রতিটি প্রবেশ পথে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট।

দিন পেরিয়ে রাত সাড়ে নয়টার দিকে কক্সবাজার র্যাব-১৫ এর সিপিসি কমান্ডার শেখ ইউছুপ আহমেদের নেতৃত্বে শতাধিক সদস্য ব্লক রেইড পরিচালনা করেন।

এসময় তিনি বলেন, ইংরেজি নববর্ষ বরণ উপলক্ষে টহল জোরদার করা হয়েছে। যাতে আগত পর্যটকরা কোন অপ্রীতিকর ঘটনার শিকার না হন। এ টহল সকাল পর্যন্ত চলবে বলে তিনি জানান।

রাত সাড়ে ১০টার দিকে লাবনী পয়েন্টে দেখা যায় ট্যুরিস্ট পুলিশের সদস্যরা সন্দেহজনক যে কোন ব্যক্তিকে তারা তল্লাশি করছেন। পাশাপাশি সৈকতের প্রবেশ মুখে বসিয়েছে তল্লাশি চৌকি।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, বর্ষবরণ উপলক্ষে আগত পর্যটকসহ সকলের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এসব তল্লাশি চৌকি বসানো হয়েছে। যাতে কোন অপরাধী চক্রের সদস্যরা সৈকতে প্রবেশ করতে না পারে। সম্পাদনা : জেরিন আহমেদ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়