শিরোনাম

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর, ২০২১, ১১:০৮ রাত
আপডেট : ১০ ডিসেম্বর, ২০২১, ১১:০৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ফের আদালতে শাহরুখপুত্র আরিয়ান!

নিউজ ডেস্ক: বন্দিদশার ইতি টানলেও আরিয়ানের জামিন খুব সহজ নয়। আদালতের বেশ কিছু নির্দেশ মেনে চলতে হচ্ছে তাকে। তিনি আর দশজনের মতো স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারছেন না। আর তাই মাদক মামলায় বিচারপতি নিতিন শাস্ত্রের দেওয়া জামিনের শর্তে পরিবর্তন চেয়ে মুম্বাই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন আরিয়ান খান।

শাহরুখপুত্রকে দেওয়া জামিনের শর্তগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো প্রতি শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টার মধ্যে মুম্বাইয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর (এনসিবি) দপ্তরে তাকে হাজিরা দিতে হবে। তিনি এই শর্তে কিছু শিথিলতার আবেদন জানিয়েছেন। কেননা হাজিরা দিতে গিয়ে আরিয়ানকে প্রশাসনের বেষ্টনির মধ্যে থাকতে হয়। প্রতি শুক্রবার এভাবে হাজিরা দিতে গিয়ে তার অস্বস্তি আরও বাড়ছে।

গেলো ২৯ অক্টোবর ভারতের মুম্বাই হাইকোর্টের পক্ষ থেকে আরিয়ানের জামিনের জন্য নানান শর্তারোপ করা হয়। বিস্তারিত ওই শর্তাবলি জেনে নিন-

১. এক লাখ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পাবেন আরিয়ান, সঙ্গে থাকতে হবে একজন সিউরিটি। উল্লেখ্য, আরিয়ানের সিউরিটি হয়েছেন জুহি চাওলা।

২. এই ধরনের কোনো পার্টির অংশ হতে পারবেন না আরিয়ান খান।

৩. এই মামলার সহ-অভিযুক্তর সঙ্গে কোনোরকম যোগাযোগ রাখা যাবে না। সুতরাং, ছেলেবেলার বন্ধু আরবাজের সঙ্গে কথা বন্ধ আরিয়ানের। এই মামলার সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যোগাযোগ রয়েছে এমন কারও সঙ্গেই যোগাযোগ রাখা যাবে না।

৪. এনডিপিএস আদালতে পাসপোর্ট জমা দিতে হবে আরিয়ানকে, ছাড়া যাবে না দেশ। প্রয়োজনে নিতে হবে এনডিপিএস আদালতের অনুমতি।

৫. তদন্তের সঙ্গে জড়িত কোনো সাক্ষীকে প্রভাবিত করা বা তথ্যপ্রমাণ লোপাটের চেষ্টা থেকে বিরত থাকবে অভিযুক্ত।

৬. সংবাদমাধ্যম বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনোরকম মন্তব্য করা যাবে না।

৭. মুম্বাইয়ের বাইরে যেতে হলে এই মামলার তদন্তকারী অফিসারকে আগে থেকে জানাতে হবে এবং তার অনুমতি নিতে হবে।

৮. প্রত্যেক শুক্রবার এনসিবির দপ্তরে হাজিরা দিতে হবে আরিয়ান খানকে। সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত উপস্থিত থাকতে হবে।

৯. মামলার শুনানির দিন অবশ্যই আদালতে হাজিরা দিতে হবে।

১০. তদন্তে যোগ দিতে এনসিবি কর্মকর্তাদের ডাকে সাড়া দিতে হবে, তাদের সঙ্গে সবরকম সহায়তা করতে হবে।

১১. ট্রায়াল শুরু হলে কোনোভাবেই সেই প্রক্রিয়াকে বিলম্বিত করবার চেষ্টা করা যাবে না।

১২. উপরোক্ত কোনো শর্ত যদি অমান্য করা হয়, তাহলে এনসিবির পক্ষে এনডিপিএস আদালতে আবেদন জানানো যাবে অভিযুক্তর জামিন খারিজের জন্য।

ওপরের প্রত্যেকটি নির্দেশই বর্তমানে মেনে চলতে হচ্ছে আরিয়ান খানকে। মুম্বাইয়ের আর্থার রোড জেল থেকে মুক্তি পেয়ে ‘মান্নত’-এ ফিরলেও আপাতত পুরোপুরি নিশ্চিন্তে থাকতে পারছেন না আরিয়ান।

সূত্র: আনন্দবাজার

  • সর্বশেষ