প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] তাহাজ্জুদের নামাজ পড়তে উঠে দেখলেন দরজার সামনে ডাকাতের দল

শাহাজাদা এমরান : [২] কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় ডাকাতি করে যাওয়ার সময় এক জনকে আটক করেছে স্থানীয়রা। উপজেলার শাকপুর ইউনিয়নের মধ্য লক্ষ্মীপুর গ্রামের সাবেক মেম্বার মৃত আবদুল মান্নানের বাড়ির আনোয়ার হোসেন (৫৫) এর ঘরে এ ঘটনা ঘটে।

[৩] স্থানীয় মেম্বার মোহাম্মদ মমতাজ বলেন, ডাকাতির ঘটনা শুনে আমি আনোয়ারের বাড়ি যাই। তখন আনোয়ার আমাকে বিস্তারিত বলে। বুধবার রাতে আনোয়ার ও তার স্ত্রী তাহাজ্জুদের নামাজ পড়তে অজু করার জন্য দরজা খোলে। দরজা খুলেতেই ৫/৬ জন ডাকাত ঘরে ঢুকে পড়ে। তারা আনোয়ারের মুখে উড়না দিয়ে ও হাতে দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলে। তার ছেলে রুবেল হোসেনকে (২৬) চেয়ারের সাথে বেঁধে ফেলে। এবং তাদের মারধরও করে।

[৪] আনোয়ারের স্ত্রী ও তার ছেলের বউকেও বেঁধে ফেলে। তারপর ডাকাতদল ঘরে থাকা লাখ দেড়েক নগদ টাকা, তিনটি মোবাইলফোন ও প্রায় ৯ ভরি স্বর্ণ নিয়ে চলে যায়। ডাকাত যাওয়ার পরে পাশের ঘরের লোকজন আনোয়ারদের ঘরের দরজা খোলা দেখে ও তাদের চিৎকার শুনে এসে তাদের উদ্ধার করে।

[৫] তিনি আরও জানান, ঘটনার কিচ্ছুক্ষণ পর শুনি পাশের বেকি গ্রামে একজন ডাকাতকে আটক করা হয়েছে। এবং তার কাছে আনোয়ারের ছেলে রুবেলের মোবাইল ফোন ও দেশীয় অস্ত্র পাওয়া যায়। পরে ঘটনাস্থলে গেলাম। ডাকাতদল যাওয়ার সময় স্থানীয় তিনজনকে ছুরিকাঘাত করলে তারা গুরুতর আহত হন। তাদের একজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে। শুনেছি আশংকাজনক। আর দুজন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে।

[৬] তাদের ছুরিকাঘাত করলে  চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে একজন ডাকাতকে আটক করেন। বাকিরা পালিয়ে যায়। পরে সকালে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়।

[৭] চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন বলেন, এলাকাসবাসী এক ডাকাতকে আটক করেছে। তাকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আমার এলাকায় এমন দুর্র্ধষ ঘটনা আর ঘটেনি। এই ঘটনা দুঃখজনক।

[৮] বরুড়া থানার ওসি ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, একজন ডাকাতকে আটক করেছে স্থানীয়রা। তাকে থানায় আনা হয়েছে। আমরা প্রাথমিক ভাবে তার পরিচয় পেয়েছি। তিনি তিতাস উপজেলার বাসিন্দা। তার নাম আবদুর রহিম(৩৮)। বিস্তারিত তদন্তের পর বলা যাবে। আমরা ধারণা করছি সে ওই ডাকাতির সাথে জড়িত। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। সম্পাদনা: শান্ত মজুমদার

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত