প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে ভাসছে রাউজানের হাজারো কৃষকের স্বপ্ন

শাহাদাত হোসেন: [২] ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে টানা তিন দিনের গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির পানিতে ভাসছে রাউজানের হাজারো কৃষকের স্বপ্ন। মাঠ ভরা হাজার হাজার একর ফসলী ক্ষেত তলিয়ে গেছে অসময়ের বৃষ্টির পানিতে। সারাবছরের কষ্টে অর্জিত সোনালী ফসল ঘরে তুলার আগেই মাটি হয়ে গেছে কৃষকের সেই স্বপ্ন।

[৩] আমন ধান, আগাম জাতের আলু, বিভিন্ন শীতকালীন সবজিসহ ফসলের ক্ষেত্র রয়েছে। তবে ফসলী জমিতে জমে থাকা বৃষ্টির পানিতে ফসল পচে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন কৃষকেরা। এছাড়া জমিতে কেটে রাখা পাকা আমন ধান এখন পানিতে ধান পচে যাচ্ছে। বছরের খোরাকি বৃষ্টিতে পচে যাওয়ায় মাথায় হাত পড়েছে কৃষকের।

[৪] উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জীব কুমার সুশীল জানান, এ বছর উপজেলায় ১১ হাজার ৮৭০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়েছিল। ইতোমধ্যেই প্রায় বৃষ্টির আগে ৮ হাজার হেক্টর জমিতে ধান কাটা হয়েছে। ৩ হাজার হেক্টর মতো ধান জমিতে আধাপাকা রয়েছে। সেখানে কিছু পরিমাণ ধান ক্ষতি হলেও হতে পারেন বলে জানান তিনি।

[৫] তিনি আরও জানান, রাউজান উপজেলার মধ্যে উত্তর রাউজানে প্রায় জমিতে ধান কাটা সম্পূর্ণ হয়েছে। শুধুমাত্র দক্ষিণ রাউজানের পাহাড়তলী ইউনিয়ন, বাগোয়ান ইউনিয়ন, পূর্ব শুজরা, পশ্চিম গুজরা, নোয়াপাড়া ইউনিয়ন, কদলপুর। এই কয়েকটি ইউনিয়নে কিছু পরিমাণ ধান জমিতে রয়েছে। এতে করে কৃষকের তেমনটা ফসলের ক্ষতি হবে না বলে তিনি জানান।

[৬] এ বিষয়ে কৃষকদের সার্বক্ষণিক পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও রাউজানে ৪ হাজার ৯’শ ৫৫ জন কৃষককে বিনামূল্য বোরো হাইব্রিড, উফশি, রবি ফসলের বীজ, সার ও কৃষি যন্ত্রপাতি দেয়া হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে অল্প পরিমাণ ধানের ক্ষতি হলেও কৃষকরা ক্ষতি পূরণ পাবে না। যেহেতু সরকারি প্রণোদনা চলমান রয়েছে। এরপর আমরা খবর নিচ্ছি কোন কৃষকের বড় ধরনের কোন ক্ষতি হয়েছে কিনা। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বাধিক পঠিত