প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রামপুরায় ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দুই থানায় ৮০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

সুজন কৈরী : [২] রাজধানীর রামপুরায় বাসচাপায় মাইনুদ্দিন নামে এক শিক্ষার্থী মৃত্যুর পর বাসে আগুন ও ভাঙচুরের ঘটনায় বুধবার সকালে হাতিরঝিল থানায় অজ্ঞাতপরিচয়ের ২৫০-৩০০ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলাটি করেছেন থানার এসআই এ কে এম নিয়াজউদ্দিন মোল্লা।

[৩] হাতিরঝিল থানার ওসি আব্দুর রশীদ বলেন, গত ২৯ নভেম্বর রাতে রাজধানীর রামপুরা ডিআইটি সড়কে মোল্লা টাওয়ারের সামনে ‘উচ্ছৃঙ্খল ছাত্র ও জনতা’ বেআইনিভাবে সমাবেশ ঘটিয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সড়কে চলমান গাড়ি ভাঙচুর ও পেট্রলবোমা দিয়ে গাড়িতে আগুন এবং পথচারীদের ভয়ভীতি প্রদর্শন ও মারধর করে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। এতে ২৫০-৩০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।

[৪] এর আগে রাজধানীর রামপুরায় অনাবিল বাসের চাপায় শিক্ষার্থী মাইনুদ্দিনের মৃত্যুর ঘটনায় মঙ্গলবার রামপুরা থানায় মামলা করেন তার মা রাশিদা বেগম।
রামপুরা থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, নিহত শিক্ষার্থীর মায়ের দায়ের করা মামলায় ঘাতক বাস অনাবিলের চালক সোহেল, হেলপার গোলাম রাব্বি ও কন্টাকটর চাঁন মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গণপিটুনির শিকার চালক বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পুলিশি প্রহরায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

[৫] এদিকে ৮টি বাসে আগুন ও ৪টিতে ভাঙচুর করায় রামপুরা থানায় পৃথক একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। থানার এসআই মারুফ হোসেন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। এই মামলায় অজ্ঞাতনামা ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

[৬] সোমবার রাত পৌনে ১১টার দিকে রাজধানীর রামপুরা এলাকায় গ্রিন অনাবিল পরিবহনের বাসের চাপায় শিক্ষার্থী মাইনুদ্দিন নিহত হন। এ ঘটনায় রাতে সড়ক অবরোধ করেন উত্তেজিত জনতা। এ সময় ঘাতক বাসসহ আটটি বাসে আগুন দেওয়া হয়। ভাঙচুর করা হয় আরও চারটি বাস।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত