প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রতীক ইজাজ: আহা! এভাবে বদলে গেলো রাজনীতি, নির্বাচন ও ভোট উৎসব!

প্রতীক ইজাজ: ওপার ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি)Ñ এপার পৌরসভা। আমরা পৌরসভার বাসিন্দা। ইউপির বন্ধুরা এপার এসে খেলতো। আমরাও যেতাম। তাদের নানা উৎসবে আমরা যোগ দিতাম। আনন্দ করতাম। এর মধ্যে নির্বাচন ছিলো একটি বড় উৎসব। ইউপি নির্বাচনে আমরা তাদের ওইখানে কয়েকদিন আগে থেকেই আসা-যাওয়া করতাম। মিছিল করতাম। ভোট উৎসবে যোগ দিতাম। এমনকি ভোটের দিন আনন্দমুখর পরিবেশে ভোট কেন্দ্রের সীমানার বাইরে থাকতাম। কতো কিছু খেতাম, গান করতাম। সন্ধ্যার আগে ঘরে ফিরতাম। ফল ঘোষণা হতো। আমরা পরের দিন খবর পেতাম। যেতাম। বিজয়ী ও পরাজিত- উভয় প্রার্থীর লোকজন, বন্ধুরা খাওয়াতে। সুখের ও দুঃখের গল্প করতো। কীভাবে জিতলো ও হারলো, সেসব বিচার বিশ্লেষণ করতো। যারা হারতো, তারা আফসোস নিয়ে বলতো, পরেরবার আরও খাটতে হবে। এখনো ইউনিয়ন পরিষদ আছে। সেখানকার মানুষের এখন আগের চেয়ে আর্থিক সচ্ছলতা কিছুটা বেড়েছে, শিক্ষার হারও। অবশ্য এখনো অশিক্ষিত ও দরিদ্র মানুষ আছে আগের মতোই। আমাদের বন্ধুরাও আছে। শুধু বদলেছে দৃশ্যপট, বাস্তবতা। এখন ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হয়, সংঘর্ষ হয়, মানুষ মারা যায়। এখন সেখানকার মানুষ অনেক বেশি হিংস্র হয়েছে। লুঙ্গি লেংটি মেরে, খালি গায়ে, হাতে বাঁশ ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। নির্দ্বিধায় মানুষ মারে।

দোষ তাদেরও। তবে তাদের যারা এ পথে নামায়, মূলত দোষ তাদেরই। মানে রাজনীতির। রাজনীতি ঢুকে গেছে এসব গ্রামে, মানুষের মধ্যে। ক্ষমতার দাপট, ক্ষমতাসীন রাজনীতির দৌরাত্ম্য, তাদের হিংস্র করে তুলেছে। ভোটে জিততে এখন তারা পেশীশক্তি প্রয়োগ করে, রক্ত ঝরায়, মানুষ মারে। প্রতিবেশীর ভোটে তাদের বিশ্বাস নেই। জোর করে ভোট আদায় করতে চায়। এখন একপক্ষ অন্য পক্ষকে ঘায়েল করতে লোকজন লেলিয়ে দেয়। মারতে বলে। যেকোনো উপায়ে ভোট কেন্দ্র ও মাঠ নিজেদের দখলে রাখার প্রতিযোগিতায় নামে। যেকোনো উপায়ে ভোটে জিততে চায়, ক্ষমতায় থাকতে হয়। ভোট হলো এখন ক্ষমতার পালাবদলের একমাত্র হাতিয়ার, জনপ্রতিনিধিত্ব নয়। আহা! সময় কীভাবে বদলে যায়, বদলে গেলো। শৈশব কৈশোরের দেখা সেই নির্বাচন, ভোট উৎসব, এখন কতোটা ভীতিকর মর্মন্তুদ হয়ে ওঠলো। এখন পাড়ার সবচেয়ে ছোট ছেলেটাও রাজনীতির পদ পদবির বড়ায় করে, জামার কলার উল্টো করে সিগারেটের ধোঁয়া ছেড়ে পথ হাঁটে। ১১/১১/২১ ইং দেশের ৮৩৫টি ইউনিয়নে নির্বাচন হলো। দেড় কোটির বেশি ভোটার। সংঘর্ষে প্রাণ গেলো সাতজনের। ভোট উৎসব ভেসে গেলে প্রতিবেশীর স্বজনের চোখের জলে। রক্তে ভাসলো নির্বাচনী মাঠ। আহা! এভাবে বদলে গেলো রাজনীতি, নির্বাচন, ভোট উৎসব। লেখক : সিনিয়র সাংবাদিক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত