প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দৌলতদিয়ায় পারের অপেক্ষায় ৮ শতাধিক যান, চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

সোহেল মিয়া: [২] ফেরি সংকট ও অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ভয়াবহ ভোগান্তি সৃষ্টি হয়েছে। যানবাহনের চাপে পণ্যবাহী ট্রাকের দীর্ঘ সারি তৈরি হচ্ছে। অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাঝে মাঝে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট।

[৩] দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটের ফেরির নাগাল পেতে যানাবহন চালকদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে তিনদিন পর্যন্ত। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাস বাস ও ব্যক্তিগত প্রাইভেটকার পার করছে ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ। যানবাহনের চাপে যাত্রীবাহী বাসকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে ঘন্টার পর ঘন্টা। অনেক যাত্রী বাস থেকে নেমে লঞ্চে ফেরি পার হয়ে চলে যাচ্ছে। এতে করে গুণতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। ফেরি ঘাটে চরম দুর্ভোগ সৃষ্টি হলেও ফেরি বাড়ানোর হয়নি দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে।

[৪] বুধবার (১০ নভেম্বর) সকালে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে দেখা যায়, দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা খুলনা মহাসড়কে ফেরি পারের অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় ৩ শতাধিক যানবাহন। অন্যদিকে এই মহাসড়ক সচল রাখার জন্য রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কে ফেরি পারের অপেক্ষায় রয়েছ প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন।

[৫] একাধিক চালক জানান, এই ভোগান্তির জন্য দায়ী ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে এক সময় ২০ টি ফেরি চলাচল করতো। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এই ফেরি বৃদ্ধি করেছিলো। সেখান থেকে ফেরি কেন, কিভাবে হ্রাস করা হলো জানিনা। বর্তমানে তিনদিন পর্যন্ত দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে আটকে থাকতে হচ্ছে। খোঁলা আকাশের নিচে সারারাত থাকতে হচ্ছে। অর্থ ও সময় অপচয় হচ্ছে। এই ভোগান্তির জন্য দায়ী ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ। দ্রুত সময়ের মধ্যে ফেরি বাড়ানোর দাবি করেন যানবাহনের চালকেরা।

[৬] রাজবাড়ীর ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর তারক চন্দ্র পাল বলেন, দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে এই মুহূর্তে প্রায় ৩ শত এবং গোয়ালন্দ মোড়ে ৫ শত ট্রাক আটকে রয়েছে। ফেরি বৃদ্ধি না করা গেলে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব নয়।

[৭] দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে কর্মরত বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিসি’র) ব্যবস্থাপক মো. জামাল হোসেন বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করছি বিষয়টি খুব দ্রুতই সমাধান হয়ে যাবে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বাধিক পঠিত